ফণী নিয়ে সতর্ক উত্তরপূর্ব, বেশ কিছু উড়ান ও ট্রেন বাতিল

0
airport signboard damaged in bhubaneshwar
ফণীর ধ্বংসলীলা ভুবনেশ্বরে। ছবি সৌজন্যে নিউজ ১৮।

নিজস্ব সংবাদদাতা, গুয়াহাটি: বঙ্গোপসাগর থেকে উৎপন্ন হওয়া ঘূর্ণিঝড় ফণী ওড়িশায় তাণ্ডব চালিয়ে পশ্চিমবঙ্গের দিকে ঢুকছে। এর পর পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে হয়ে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রবেশ করবে ফণী। শনিবার বিকেলের দিকে ফণীর প্রভাব পড়বে অসমে। ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় প্রস্তুত অসম-সহ সমগ্র উত্তরপূর্ব। নেওয়া হয়েছে সব রকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা।   

(ফণীর লাইভ আপডেট দেখার জন্য ক্লিক করুন এখানে)

অসমে প্রবেশ করার সময় ফণীর গতিবেগ ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত হবে। ফলে শনিবার ও রবিবার প্রচণ্ড ঝড়বৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা আছে। এই খবর দিয়েছে আঞ্চলিক আবহাওয়া কেন্দ্র। প্রচণ্ড বৃষ্টির ফলে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। ঘূর্ণিঝড়ে নিম্ন অসমের পাশাপাশি মেঘালয়েরও ক্ষতির আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। সাধারণ মানুষকে সুরক্ষিত স্থানে থাকার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। এনডিআরএফ ও এসডিআরএফ বাহিনীকে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। রাজ্যের সমস্ত জেলায় চরম সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

অসমে ফণীর প্রভাব ব্যাপক হারে প্রভাব পড়বে বলে তার মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত হয়েছে রাজ্য। তবে উত্তরপূর্বে ঘূর্ণিঝড়ের ভয়াবহতা যে ওড়িশা বা পশ্চিমবঙ্গের মতো হবে না তা নিশ্চিত। কলকাতাগামী সমস্ত উড়ান বাতিল করা হয়েছে। গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ২৩টি উড়ান বাতিল করা হয়েছে। এর মধ্যে ৯টি গুয়াহাটিতে আসার ও ১৪টি যাওয়ার।

ও দিকে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল বাতিল করেছে বেশ কয়েকটি ট্রেন। এ সম্পর্কে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের জনসংযোগ আধিকারিক নৃপেন ভট্টাচার্য বলেন, যাত্রী সুরক্ষার দিকে লক্ষ্য রেখেই বৃহস্পতিবার থেকেই কিছু ট্রেন বাতিল করা হয়েছে এবং আগামী দিনেও বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার থেকে বাতিল করা তিনটি ট্রেন হল তিরুঅনন্তপুরম সেন্ট্রাল এক্সপ্রেস, গুয়াহাটি সেকেন্দরাবাদ এক্সপ্রেস এবং ডিব্রুগড় এক্সপ্রেস। শনিবার যে পুরী কামাখ্যা এক্সপ্রেস রওনা হওয়ার কথা ছিল তা বাতিল করা হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে শুক্রবার ও সোমবারের কামাখ্যা সেকেন্দরাবাদ স্পেশ্যাল ট্রেন। এ ছাড়াও রবিবার বাতিল করা হয়েছে সেকেন্দরাবাদ গুয়াহাটি এক্সপ্রেস  এবং ডিব্রুগড় তাম্বারাম এক্সপ্রেস। তিরুঅনন্তপুরম সেন্ট্রাল শিলচর এক্সপ্রেস যা মঙ্গলবার রওনা হওয়ার কথা ছিল তা-ও বাতিল করা হয়েছে। কিছু ট্রেনকে বিকল্প রুটে চালানো হচ্ছে।

ও দিকে কেন্দ্রীয় জল কমিশনের (সিডব্লিউসি) তথ্য অনুযায়ী পশ্চিম এবং মধ্য অসমের জেলাগুলিতে ৪ ও ৫ মে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সে জন্য এসডিআরএফ বাহিনীকে রাজ্যের ৪০টি জায়গায় এবং এনডিআরএফকে অধিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে এমন সব জেলায় যেমন কাছাড়, বরপেটা, বঙ্গাইগাঁও, শোণিতপুর, তিনসুকিয়া ও জোরহাটে বাহিনীকে তৈরি রাখা হয়েছে। এ ছাড়া ধেমাজি এবং গুয়াহাটির পাটগাঁওতেও এনডিআরএফ বাহিনী তৈরি রয়েছে। ডিস্ট্রিক্ট কন্ট্রোলরুমের টোল ফ্রি নম্বর ১০৭৭ এবং স্টেট কন্ট্রোল রুমের টোল ফ্রি নম্বর ১০৭০ ও ১০৭৯ চব্বিশ ঘণ্টা খোলা থাকবে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.