Congress and Tmc

কলকাতা: আগামী লোকসভা ভোটে বিজেপি-কে রুখতে এ রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের আবেদন নিয়ে গত বৃহস্পতিবার মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম চৌধুরি। এই ঘটনায় যথেষ্ট জলঘোলা হয় রাজ্য রাজনীতিতে। প্রশ্ন ওঠে, বিধায়ক মইনুল হককে সঙ্গে নিয়ে সাংসদের ওই বৈঠক কি শুধুই জোট সংক্রান্ত? না কি তাঁরা যোগ দিতে চলেছেন রাজ্যের শাসক দলে? সেই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার মাঝেই গত শুক্রবার তিনি দেখা করেছেন দলনেত্রী সনিয়া গান্ধীর সঙ্গেও।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত শুক্রবার চৌধুরি দেখা করেন ইউপিএ চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে। সেখানে তিনি পার্থবাবুর সঙ্গে আলোচনার বিষয়বস্তু পেশ করেন। তবে রাহুল গান্ধীর অবর্তমানে তেমন কোনো সদুত্তর দিতে চাননি সোনিয়া।

একই সঙ্গে জানা গিয়েছে, মইনুল হক এবং আরও বেশ কয়েক জন বিধায়ক এ বিষয়ে কথা বলেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক অশোক গেহলট এবং প্রবীণ নেত্রী অম্বিকা সোনির সঙ্গেও। মইনুল জানিয়েছেন, তিনি এবং আরও অনেক বিধায়ক ও নেতা জোটের পক্ষে। তবে এ ব্যাপারে হাইকমান্ড, বিশেষত রাহুল গান্ধীই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।

আবু হাসেম দিল্লিতে জানান, “বিজেপি-কে রুখতে তৃণমূলের সঙ্গে জোট প্রসঙ্গে পার্থবাবুর সঙ্গে কথা হয়েছে। পার্থবাবু বলেছেন, এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুলের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আলোচনার প্রয়োজন”। সেই বার্তা পৌঁছে দিতেই আবু হাসেম দিল্লিতে সোনিয়ার সঙ্গে দরবার করেন বলে জানান।

যদিও এই মতের সম্পূর্ণ বিপরীত প্রান্তে অবস্থান করছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী। তিনি জানিয়েছেন, “আমরা কেন তৃণমূলের সঙ্গে জোট গড়তে যাব, যারা পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসকে শেষ করে দিতে উদ্যত। প্রতিদিন আমাদের কর্মীরা শাসক দলের হাতে লাঞ্ছিত হচ্ছেন”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here