হায়দরাবাদ: ১২৭ জনকে আধার কর্তৃপক্ষের নোটিশ দেওয়াকে কেন্দ্র করে তীব্র বিতর্ক ছড়িয়েছে। বিরোধীরা অভিযোগ করেছে ওই ১২৭ জনের থেকে নাগরিকত্বের প্রমাণ চাওয়া হয়েছে। যদিও আধার কর্তৃপক্ষ অর্থাৎ ইউআইডিএআই-এর বক্তব্য, এর সঙ্গে নাগরিকত্বের কোনো সম্পর্ক নেই।

তবে ইউআইডিএআই-এর সাফ কথা ওই ১২৭ জন ভুল তথ্য দিয়ে আধার সংগ্রহ করেছেন। তাঁরা বেআইনি অনুপ্রবেশকারী, সেটাও সাফ বলে দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

একটি বিবৃতিতে ইউআইডিএআই জানিয়েছে, “রাজ্য পুলিশের পাওয়া তথ্যে হায়দরাবাদের ইউআইডিএআই অফিস জানতে পেরেছে, ওই ১২৭ জন বেআইনি ভাবে ভারতে বসবাস করছে। তাদের আধার পাওয়ার কোনো অধিকার নেই।”

আধার আইন উদ্ধৃত করে ইউআইডিএআই বলেছে, ১২৭ জনের আধার নম্বরই বাতিল করা হতে পারে যদি তাঁরা সন্তোষজনক জবাব না দিতে পারেন।

আরও পড়ুন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও শীত ফিরবে না, আগামী সপ্তাহে বৃষ্টির সম্ভাবনা

তবে নাগরিকত্বের ব্যাপারে খুব স্পষ্ট করে ইউআইডিএআই বলছে, “এর সঙ্গে নাগরিকত্বের কোনো সম্পর্ক নেই।”

প্রথমে সিদ্ধান্ত হয়েছিল যে শুনানির জন্য ২০ ফেব্রুয়ারি হায়দরাবাদে ইউআইডিএআইয়ের অফিসে সবাইকে হাজিরা দিতে হবে। কিন্তু পরে সেটা পিছিয়ে মে করা হয়েছে। আধার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আধার নম্বরের স্বপক্ষে যুক্তি দিতে এই ১২৭ যাতে নিজেদের বিভিন্ন নথি সংগ্রহ করতে পারে, সে কারণেই দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন