ads

ওয়েবডেস্ক: ২০১৫-র ক্রেতা সুরক্ষা বিল অনুযায়ী, বিজ্ঞাপনে মুখ দেখিয়ে ভুল তথ্য দিলে তারকারা মোটা অঙ্কের জরিমানা-সহ হাজতবাসের সম্মুখীন হতে পারেন। কিন্তু ২০১৮-য় যে নয়া বিলের প্রস্তাবনা উঠল লোকসভায়, তা ছেঁটে দিল হাজতবাসের বিষয়টি।

বদলে বলা হল এই প্রস্তাবনায়, এবার থেকে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মানুষকে ভ্রান্ত করলে তারকাদের ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে! পাশাপাশি, তিন বছরের জন্য বন্ধ হয়ে যেতে পারে বিজ্ঞাপনে মুখ দেখানোর সুযোগও। সংসদে সম্প্রতি এই মর্মেই ক্রেতা সুরক্ষার নয়া বিল পেশ করেছেন ক্রেতা সুরক্ষা মন্ত্রী রাম বিলাস পাসোয়ান। সংসদ এই বিলের প্রস্তাবনায় মঞ্জুরি দিলে ৩১ বছর ধরে একটানা বলবৎ ক্রেতা সুরক্ষা বিল বদলে গিয়ে নতুন আকার নেবে।

জানা গিয়েছে, বিজ্ঞাপনটিতে কোও রকমের ভুল বা বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়া হচ্ছে কি না, তা বিচারের ভার থাকবে কেন্দ্রীয় ক্রেতা সুরক্ষা পর্ষদের উপরে। পর্ষদ এ ব্যাপারে যাচাই করে দেখবে বিজ্ঞাপনটি এবং তার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য করা হবে। বিজ্ঞাপনে প্রচারিত তথ্য কতটা ভুল বা বিভ্রান্তিকর, তার উপর যাচাই করে তারকার জরিমানার অঙ্কের মূল্য ঘোরাফেরা করবে ১০ লক্ষ থেকে ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া পর্ষদের নির্দেশ অনুযায়ী বিজ্ঞাপনটি নতুন করে তৈরি বা সম্পাদনা করতে হবে।

“যদি বিজ্ঞাপনের প্রচারকারী তারকারা পণ্যটি সম্পর্কে সব রকম খোঁজখবর নিয়ে কাজে হাত দেন এবং যদি তাঁদের দাবি সঠিক হয়, সে ক্ষেত্রে তাঁদের শাস্তিদানের প্রশ্নই উঠবে না”, উল্লেখ করা হয়েছে এই নয়া ক্রেতা সুরক্ষা বিলের প্রস্তাবনায়। “কিন্তু তা না হলে বিজ্ঞাপনদাতা এবং বিজ্ঞাপন-প্রচারকারীর কোনো অজুহাতেই কান দেওয়া হবে না”, কড়া হুঁশিয়ারি কেন্দ্রীয় ক্রেতা সুরক্ষা পর্ষদের!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন