BJP Flag

ওয়েবডেস্ক:  রৌরকেলার বিজেপি বিধায়ক দিলীপ রায় শুক্রবার একই সঙ্গে বিধায়কপদ এবং দল ছাড়লেন। এ দিন তিনি ওড়িশা বিধানসভার অধ্যক্ষ পি কে আমতের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিধায়কপদ থেকে নিজের ইস্তফাপত্র তুলে দেন। এ দিনই তিনি দলের সদস্যপদ ছাড়তে চেয়ে বিজেপির রাজ্য দফতরে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠান বলে জানা গিয়েছে।

দিলীপ বলেন, “বুকে গভীর যন্ত্রণা নিয়েই আমি একই সঙ্গে বিধায়কপদ এবং দল ছাডার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কারণ আমি আমার আবেগকে কোনো মতেই পদের থেকে বড়ো ভাবতে পারছি না। রৌরকেলার একাধিক উন্নয়ন মূলক কাজের স্বার্থেই আমি বিজেপি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলাম”।

Dilip-Ray
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দিলীপ রায়

আগামী ২০১৯ সালেই রয়েছে ওড়িশার বিধানসভা নির্বাচন। দিলীপ চেয়েছিলেন, তার আগেই ব্রাহ্মণী নদীর উপর সেতু অথবা ইস্পাত জেনারেল হাসপাতাল (আইজিএইচ)-এর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে উন্নীত হয়ে যাক। তিনি বলেন, “ওই এলাকার মানুষ যোগাযোগ এবং স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে এই দু’টি জ্বলন্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাক। কিন্তু সেই কাজ আমি বিগত চার বছরেও আদায় করে নিতে পারিনি। এই দুই আবেগঘন সমস্যার সমাধানের লক্ষ্য নিয়েই ২০১৪ বিধানসভা নির্বাচনে আমি জয়ী হয়েছিলাম। কিন্তু সফল হতে না পারার ব্যর্থতার দায় আমাকেই নিতে হবে”।

Dilip-Ray

দিলীপ বলেন, “মাটি আগে পার্টি পরে। কেন্দ্রের বিজেপি সরকার আমাকে এই দুই প্রকল্পের বাস্তবায়নে হাজারো প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এমনকী ২০১৫ সালে ওড়িশা সফরে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জোর গলায় বলেছিলেন ব্রাহ্মণী সেতুর কাজ যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব শেষ করা হবে।কিন্তু চার বছর সময় অতিক্রান্ত হতে গেলেও তার কিছুই হল না। এর পরে পদ আঁকড়ে পড়া থাকাটা এখানকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতার শমিল হয়ে দাঁড়াচ্ছে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here