dalit1

ওয়েবডেস্ক: নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ জুটিকে সতর্ক করে দিল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ (আরএসএস)। বিজেপি সরকারের বর্তমান নীতি যে দেশের একটি বৃহৎ জনসংখ্যার মনে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি করছে, তা আগামী দিনে ভয়াবহ আকার নিতে পারে বলে ধারণা করছেন আরএসএস নেতৃত্ব। অন্য দিকে দলিতদের ডাকা ভারত বনধের চেহারাও কপালে চিন্তার ভাঁজ আরও প্রশস্ত করেছে বিজেপির।

সারা দেশ জুড়ে গত কয়েক সপ্তাহে দলিত বিক্ষোভ দমনে প্রায় ব্যর্থ হয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। সরকারি হিসাব অনুযায়ী, দলিত বিক্ষোভে প্রাণ গিয়েছে ছ’জনের। বেসরকারি হিসাবে তা আরও বেশি। এর উপর শুধুমাত্র উত্তরপ্রদেশেই এমন পাঁচ জন সাংসদের নমুনা মিলেছে যাঁরা ওই দলিত বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন অথবা সমর্থন জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে মোটেই সুখকর পরিস্থিতিতে নেই বিজেপি।

Dalit 2

বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ লখনউ দৌড়ে গিয়েছেন ওই পাঁচ সাংসদের সঙ্গে কথা বলতে। কিন্তু তাঁরা স্পষ্টতই জানিয়েছেন, দলিতদের ভোটে জিতেই তাঁরা সংসদে গিয়েছেন ফলে ওই সম্প্রদায়ের দাবি-দাওয়ার সঙ্গে তাঁরাও এক মত। বিজেপির রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে সারা দেশের ৬৬টি সংরক্ষিত আসনের মধ্যে ৪৪টিতেই জিতে ছিলেন বিজেপি প্রার্থীরা। সংসদে বিজেপির দলিত প্রতিনিধি যে কারণে সব থেকে বেশি। ফলে এখনই তফশিলি জাতি/উপজাতি বা অনগ্রসর শ্রেণির ক্ষোভ প্রশমনের চেষ্টা শুরু না করলে তা আগামী ২০১৯ ভোটেও ব্যাপক আকারে প্রভাব ফেলতে পারে।

এ ব্যাপারে উত্তপপ্রদেশ, গুজরাত ও রাজস্থানের সাম্প্রতিক নির্বাচনের ফলাফল নিয়েও যথেষ্ট চুলচেরা বিশ্লেষণ চলেছে। কারণ গত কয়েক সপ্তাহে দলিত বিক্ষোভে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠা রাজ্যগুলির প্রায় প্রতিটিই বিজেপির শাসন চলছে। তা সত্ত্বেও কেন, দলিতদের মন জয় করা সম্ভব হচ্ছে না, সেটাই ভাবিয়ে তুলেছে বিজেপি এবং আরএসএস-কে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন