dmk president stalin azhagiri
ডিএমকের উত্তরসূরি নিয়ে ভাইয়ে ভাইয়ে দ্বন্দ। ছবি: তামিল নিউজ

চেন্নাই: দাদা বললেন ‘ফল ভুগতে হবে।’ কিন্তু এই হুমকি তোয়াক্কা না করেই দলের সর্বেসর্বা নির্বাচিত হয়ে গেলেন ভাই। আনন্দে ফেটে পড়লেন দলীয় কর্মীরা। ভাইয়ের নামে জয়ধ্বনি দেওয়া হল।

৪৯ বছর ধরে ডিএমকের সভাপতি ছিলেন প্রয়াত করুণানিধি। তাঁর জায়গায় বসলেন করুণার ছোটো ছেলে স্টালিন। মঙ্গলবার সভাপতি নির্বাচন হয়ে গেল। স্টালিনই যে সভাপতি হবেন সে ব্যাপারে কারও কোনো সন্দেহ ছিল না। কারণ গত ১৪ আগস্ট দলের কার্যনির্বাহী সমিতির বৈঠকে স্থির হয়ে গিয়েছিল দলের নতুন প্রধান কে হবেন? সেই মতোই মঙ্গলবার সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে যান তিনি।

সভাপতি নির্বাচিত হতে গিয়ে কারও কোনো বাধার মুখেই পড়তে হয়নি স্টালিনকে। দলের ৬৫ জন জেলা সচিবের সবাই স্টালিনেরই নাম প্রস্তাব করেছিলেন। তবুও এই নির্বাচনের মধ্যে তাল কেটে দিয়েছে স্টালিনের দাদা তথা করুণার বড়ো ছেলে আঝাগিরির হুমকি।

আরও পড়ুন এ বার বাঁকুড়ায় মোমো আতঙ্ক!

গত বেশ কয়েকবছর ধরেই দল থেকে বহিষ্কৃত আঝাগিরি। করুণানিধির মৃত্যুর পরে দলে ফিরে আসতে চাইছেন তিনি।এই মুহূর্তে মাদুরাইয়ে রয়েছেন তিনি। সেখান থেকেই তিনি বলেন, “আমাকে যদি দলে না ফিরিয়ে না নেওয়া হয় তা হলে কিন্তু ফল ভুগতে হবে।”

কিছুদিন আগেই আঝাগিরি বলেছিলেন, দলের প্রকৃত কর্মী সমর্থকরা তাঁর পাশেই রয়েছেন। যদিও তাঁর সেই মন্তব্যের বিশেষ পাত্তা দিতে চাননি ডিএমকের কোনো নেতাই।

এখন দেখার করুণা-হীন ডিএমকের ভবিষ্যৎকে ঘিরে দুই ভাইয়ের লড়াই কেমন জমে ওঠে!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন