mayawati

ওয়েবডেস্ক: ২০১৯ লোকসভা ভোটে যে উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টি (এসপি), বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি) এবং কংগ্রেসের জোট হচ্ছে, তা প্রায় নিশ্চিত। এসপি এবং বিএসপি নিজেদের মধ্যে এ বিষয়ে প্রাথমিক আলোচনা সেরে ফেলেছে ইতিমধ্যেই। অন্য দিকে সে রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্বের দ্বিমত না থাকলে কংগ্রেস হাইকম্যান্ডও সরকারি ভাবে বিজেপি-বিরোধী জোটের ঘোষণা করতে পারে এ বছরেই। তবে আসন সমঝোতা নিয়ে উত্তরপ্রদেশের রাজনৈতিক মহলে তৈরি হয়েছে জোর চাঞ্চল্য। একটি মহল থেকে শোনা যাচ্ছে, কংগ্রেস হাইকম্যান্ড চাইলে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার আসন বণ্টনের কাজটিও যত দ্রুত সম্ভব সেরে ফেলতে চায় এসপি-বিএসপি।

একটি মহল থেকে দাবি করা হচ্ছে, ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে পৃথক ভাবে লড়াই করে কংগ্রেস, বিএসপি পেয়েছিল যথাক্রমে ২টি এবং ৫টি আসন। সে বার প্রাপ্ত ভোটের শতাংশ হারে সারা দেশের নিরিখে বিএসপি তৃতীয়স্থান দখল করলেও কোনো আসনই জোটেনি তাদের ভাগ্যে। বিজেপির দখলে গিয়েছিল ৭১টি আসন। ফলে এই তিন শক্তি একত্রিত হয়ে না লড়লে বিজেপির আসনে কোপ ফেলা সম্ভব নয়।

সূত্রের দাবি, বিএসপি এবং এসপি উভয় দলই চাইছে ২০১৯ লোকসভা ভোটে ৩০টি করে আসনে লড়তে। যদি তা কংগ্রেসের পক্ষে মেনে নেওয়া সম্ভব হয় তা হলে তাদের খাতে যেতে পারে মাত্র ১০টি আসন। কারণ, সে ক্ষেত্রে অজিত সিংয়ের রাষ্ট্রীয় লোক দল (আরএলডি‌)-কে বাদ দিয়ে বিজেপি-বিরোধী জোট অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। ফলে আরএলডি-সহ অন্যান্য কোনো ধর্মনিরপেক্ষ দলের জন্য হাতে রাখতে হবে আরও ১০টি আসন। সব মিলিয়ে ৮০ আসনের বণ্টনে বিএসপি,এসপি, কংগ্রেস, আরএলডি (অন্যান্য) যথাক্রমে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারে ৩০,৩০,১০ এবং ১০টি আসনে।

যদিও এ ব্যাপারে সমর্থিত সূত্রে তেমন কোনো খবর মেলেনি।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন