নয়াদিল্লি: নোট বাতিল ইস্যুতে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে তাঁকে স্মারকলিপি দিলেন বিরোধী নেতারা। সংসদের শীতকালীন অধিবেশন ভেস্তে যাওয়ার জন্য কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপতির কাছে নালিশ করেন তাঁরা।

শুক্রবার কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে বিরোধীদের একটি প্রতিনিধিদল রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে। তবে এ দিন ঐক্যবদ্ধ বিরোধীদের দেখা যায়নি। কংগ্রেসের সঙ্গে তৃণমূল, আরজেডি আর জেডিইউ থাকলেও বাম, বিএসপি এবং এসপি-সহ ছ’টি বিরোধী দল এই প্রতিনিধিদলে ছিল না। এই প্রতিনিধিদলে বামেদের অনুপস্থিতির ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে সিপিআইয়ের ডি রাজা বলেন, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারটা ঠিকঠাক ভাবে সংগঠন করা হয়নি।  তাঁর কথায়, “নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আমরা সব বিরোধী দলের সঙ্গেই রয়েছি, কিন্তু আমরা আজ রাষ্ট্রপতির কাছে যাওয়ার প্রয়োজন মনে করিনি। কারণ সংসদের অধিবেশন শেষ হয়ে যাওয়ার পর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের কোনো মানে হয় না।”

রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে বেরিয়ে তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন, নোট বাতিল ইস্যুতে বিরোধীরা ঐক্যবদ্ধ। প্রণববাবুর সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারে সুদীপবাবু বলেন, “আমরা রাষ্ট্রপতিকে একটি স্মারকলিপি দিলাম। শীতকালীন অধিবেশন ব্যাহত হওয়ার দায় সম্পূর্ণভাবে সরকারের ওপর। আমরা সংসদে বিতর্কের কথা বললেও, সরকার তা এড়িয়ে গিয়েছে। এ দিকে শেষ দিনেও ব্যাহত হয় সংসদের দুই কক্ষের অধিবেশন। বারবার অধিবেশন ব্যাহত হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন উপরাষ্ট্রপতি তথা রাজ্যসভার অধ্যক্ষ হামিদ আনসারি।

অন্য দিকে, শুক্রবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে কৃষিঋণ মুকুবের দাবি জানান কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী। প্রায় দশ মিনিট বৈঠক হয় দু’জনের মধ্যে। বৈঠক শেষে বেরিয়ে রাহুল বলেন, নোট বাতিলের ফলে দুর্ভোগে পড়েছেন পঞ্জাব, হরিয়ানা আর উত্তরপ্রদেশের কৃষকরা। এর থেকে সুরাহা পাওয়ার জন্যই  ঋণ মুকুবের দাবি জানিয়েছেন তিনি। রাহুলের কথায়, “কৃষকদের অবস্থা যে শোচনীয় সে কথা মেনে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে ঋণ মুকুবের ব্যাপারে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। চুপ করে ছিলেন।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here