নাগাড়ে বৃষ্টির জেরে বন্যা, ধসে মহারাষ্ট্রে মৃত শতাধিক, সরানো হল ৮০ হাজার দুর্গতকে

0
চলছে উদ্ধারকাজ। ছবি: satyaprad1-এর টুইট থেকে

খবর অনলাইন ডেস্ক: এক নাগাড়ে প্রবল বৃষ্টি এবং তার জেরে বন্যা এবং ধসের কারণে মহারাষ্ট্রে মৃত্যু হল একশোরও বেশি মানুষের। এর মধ্যে মুম্বই থেকে ৭০ কিমি দূরে অবস্থিত রায়গড় জেলায় ধসের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৩৬ জন।

কোঙ্কন অঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় শেষ কয়েক দিন ধরে অবিরাম বৃষ্টি হয়েই চলেছে। বন্যা ও ভূমিধসের কারণে বাসস্থান হারিয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ।

তিলায়ে এলাকা পরিদর্শনের পর মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী একনাথ শিন্দে জানিয়েছেন, কমপক্ষে ৩৩টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও নিখোঁজ ৫২ জন। সকাল থেকেই শুরু হয়েছে উদ্ধারকাজ। ৩২টি বাড়ি ভেঙে পড়ার খবর জানা গিয়েছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর কাছে এক প্রশাসনিক কর্তা জানান, পশ্চিম মহারাষ্ট্রের সাতারা জেলাতেও পরিস্থিতি দুর্ভাগ্যজনক। বন্যার জলে অনেকের ভেসে যাওয়ার খবর মিলেছে। একই ভাবে পূর্বাঞ্চলের জেলাগুলির মধ্যে গোন্ডিয়া এবং চন্দ্রপুর থেকেও প্রাণহানির খবর পাওয়া গিয়েছে।

[ছবি: Telugu News থেকে]

উদ্ধারকারী দল জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত কমপক্ষে ৮৪ হাজার ৪৫২ জনকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এঁদের মধ্যে কোলাপুর জেলা থেকেই সরানো হয়েছে ৪০ হাজারের বেশি মানুষকে। জেলার ৫৪টি গ্রাম বন্যার কবলে পড়ে সম্পূর্ণ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত ৮২১টি গ্রাম। ২০১৯ সালের বন্যার থেকেও ভয়াবহ প্রভাব পড়েছে এ বার।

রায়গড় ছাড়াও সাতারা জেলার অম্বেঘর এবং মিরগাঁও গ্রামে ধসের কবলে পড়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

ভারতীয় সেনা ও নৌবাহিনীর ছ’টি উদ্ধারকারী দল শনিবার উদ্ধারকাজে নামছে বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই স্থানীয় উদ্ধারকারী দল, উপকূলরক্ষী এবং জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলা বাহিনী (এনডিআরএফ) জলের নীচে চলে যাওয়া অঞ্চলে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন: অবিরাম বৃষ্টিতে বিপর্যয় মহারাষ্ট্রে, ধসের কবলে পড়ে মৃত ৩৬

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন