‘চাইলে আপনি চেয়ারে বসতে পারেন’, চিদাম্বরমকে বললেন বিচারক

0
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: আইএনএক্স মিডিয়া-কাণ্ডে ‘অভিযুক্ত’ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে বৃহস্পতিবার বিশেষ আদালতে পেশ করল সিবিআই। এ দিন বিচারক অজয়কুমার কুহারের এজলাসে তাঁকে তুলে পাঁচ দিনের হেফাজতে চেয়ে আবেদন জানায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

চিদাম্বরমের হয়ে আদালতে উপস্থিত চার আইনজীবী। তাঁর হয়ে সওয়াল করছেন কপিল সিব্বল। উপস্থিত রয়েছেন
অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি এবং বিবেক তনখা। এ ছাড়া হাজির হয়েছেন চিদাম্বরমের স্ত্রী নলিনী এবং ছেলে কার্তি।

এ দিন শুনানির শুরুতেই বিচারক চিদাম্বরমকে বলেন, “চাইলে আপনি চেয়ার বসতে পারেন”।

উত্তরে চিদাম্বরম বলেন, “না আমি এ ভাবেই ঠিক আছি”।

সলিসিটর জেনারেল আদালতে সওয়াল করতে গিয়ে বলেন, “আইএনএক্স মিডিয়ার বিদেশি বিনিয়োগ চুক্তিতে বেনিয়ম হয়েছিল। আগস্টে নথি জমা দিতে বলা হয়েছিল। চিদাম্বরম এ ব্যাপারে সহযোগিতা করেননি। তিনি সেই সব নথি জমা দেননি। হাইকোর্টের নির্দেশে জিজ্ঞাসাবাদেও তিনি সহযোগিতা করেননি। মামলার গুরুত্ব বুঝে চিদাম্বরমকে ছাড়া যাবে না”।

কপিল সিব্বল বলেন, “এই মামলায় অন্যান্য অভিযুক্তদের জামিন দেওয়া হয়েছে। এই মামলায় অভিযুক্ত ভাস্কর রমন এবং কার্তি চিদাম্বরম জামিন পেয়েছেন। একই সঙ্গে আইএনএক্স মিডিয়ার কর্ণধার পিটার এবং ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়কেও জামিন দেওয়া হয়েছে”।

চিদাম্বরমের হয়ে কপিল সিব্বল বলেন, “সিবিআইয়ের দাবি, তদন্তে সহযোগিতা করেনিন চিদাম্বরম। গত ২০১৮ সালের ৬ জুন চিদাম্বরমকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল সিবিআই। সে সময় যদি তিনি সহযোগিতা না করে থাকেন, তা হলে এত দিন কেন তাঁকে তলব করা হয়নি। সিবিআই তো তাঁকে আগেই তলব করতে পারত। কিন্তু তা করেনি সিবিআই। সত্যিই যদি চিদাম্বরম জবাব না দিয়ে থাকেন, তা হলে সেই তথ্য হাইকোর্টকে জানানো হয়নি কেন। এই মামলায় চার্জশিট-ই গঠন করতে পারেনি সিবিআই”।

সলিসিটর জেনারেল বলেন, “চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। তদন্ত প্রায় শেষ, আমরা চার্জশিট পেশের আগের মুহূর্তে রয়েছি। নীরব থাকা সাংবিধানিক অধিকার, আমরা সম্মান করি। কিন্তু তদন্তে সহযোগিতা করছেন না চিদাম্বরম। তাই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেওয়া জরুরি। বেআইনি লেনদেনে ভূমিকা রয়েছে চিদাম্বরমের। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ না করলে পর্বত প্রমাণ দুর্নীতির কিনারা করা সম্ভব নয়”।

কপিল ফের বলেন, “কাল (বুধবার) রাতে চিদাম্বরমকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। আজও দুপুর ১২টা পর্যন্ত জেরা করেনি সিবিআই। চিদাম্বরম তদন্তে অসহযোগিতা করেননি।সিবিআই কিছু বললেই ধ্রুব সত্য হয়ে যায় না।সিবিআইয়ের কিছু বলার থাকলে হাইকোর্টে বলতে পারত”।

অন্য দিকে চিদাম্বরমের হয়ে অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি বলেন, “চিদাম্বরম ৬ জনের সিদ্ধান্তে সম্মতি দিয়েছিলেন। ঘটনার ১১ বছর পর গ্রেফতার করা হল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে”। এর পর তিনি ইশারা করে চিদাম্বরমকে কিছু বলতে বলেন। এর তীব্র আপত্তি জানান সলিসিটর জেনারেল। তাঁর আবেদনে মান্যতা দিয়ে চিদাম্বরমকে বলার অনুমতি দেননি বিচারক।

আপডেট পেতে সঙ্গে রাখুন: Khaboronline.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here