padmaavat

ওয়েবডেস্ক: অবশেষে স্বস্তি। বুধবার শীর্ষ আদালত সাফ জানিয়ে দিল, দেশের আইন-শৃঙ্খলা সুরক্ষিত রাখতে ‘পদ্মাবৎ’-এর মুক্তি কোনো রাজ্যেই আটকানো যাবে না। এমনকী, কেউ যদি ছবির প্রদর্শনের বিরোধিতা করে আইন ভঙ্গ করতে চায়, তবে সেই ব্যক্তি বা গোষ্ঠাকে ঠেকানোর দায়ও রাজ্যের, জানিয়ে দিল শীর্ষ আদালত।

জানা গিয়েছে, রাজস্থান-গুজরাত-হিমাচল প্রদেশ-মধ্য প্রদেশ-উত্তরাখণ্ডের অনুকরণে হরিয়ানা যখন সোমবার রাজ্যে ছবিটির প্রদর্শন হতে দেবে না বলে বিবৃতি দিয়েছিল, তার ঠিক পরের দিন অর্থাৎ মঙ্গলবার ছবিটির প্রযোজকরা রাজ্যগুলির এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে একটি মামলা দায়ের করেন শীর্ষ আদালতে। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর বেঞ্চে প্রযোজকদের হয়ে সওয়াল-জবাব করেন বিচারপতি হরিশ সালভে এবং মহেশ আগরওয়াল। তাঁদের যুক্তি ছিল- সেন্সর বোর্ডের সব শৰ্ত যখন মেনে নিয়েছেন ছবির প্রযোজকেরা, তখন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা কী ভাবে ছবির প্রদর্শনে বাধা দিতে পারেন!

তাঁদের সেই যুক্তিকে স্বাগত জানিয়ে বুধবার দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানায় শীর্ষ আদালত, কোনো রাজ্যই সংবিধানকে অমান্য করে ছবিটির প্রদর্শন বন্ধ করতে পারে না। এ ব্যাপারে ব্যক্তিগত মতামত নয়, প্রাধান্য দিতে হবে দেশের আইনকে। ‘পদ্মাবৎ’-এর প্রযোজকেরা যখন সেন্সর বোর্ডের সব শৰ্ত মেনেছেন, তখন ছবিটির মুক্তি আটকানো বেআইনি কাজ। দেশের আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে তা করতে পারেন না কোনো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীই!

স্বাভাবিক ভাবেই শীর্ষ আদালতের এই রায় ‘পদ্মাবৎ’-এর পক্ষে জয়সূচক হয়েছে। জানা গিয়েছে, এই সাফল্যে উৎসাহিত হয়ে ছবির প্রযোজকেরা নির্ধারিত তারিখের কয়েক ঘণ্টা আগেই ছবিটির মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অর্থাৎ ২৫ জানুয়ারি নয়, ‘পদ্মাবৎ’ দেশের বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে ২৪ জানুয়ারি রাত সাড়ে ন’টায়। প্রেক্ষাগৃহগুলোতে ওই সময়ে দেখানো হবে ছবিটির পেইড প্রিভিউ। যাতে এটা স্পষ্ট হয় যে সেন্সর বোর্ডের হুকুম অমান্য করা হয়নি। বরং যে সব পরিবর্তনের দাবি করা হয়েছিল, সে সব সমেতই মুক্তি পাচ্ছে ‘পদ্মাবৎ’।

আপাতত দেশ জুড়ে তাই কেবলই ‘পদ্মাবৎ’-এর সুর! এমনকী, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিজের রাজ্য গুজরাতেও। জানা গিয়েছে, ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু যখন মোদীর রাজ্য ভ্রমণে যান, তখন তাঁকে নেচে-গেয়ে অভ্যর্থনা জানিয়েছিল একটি দল। ভারতীয় জনতা পার্টির অনেক প্রথম সারির নেতা ‘পদ্মাবৎ’ মুক্তির বিরোধিতা করলেও সেই দলের নর্তকীরা কিন্তু নেচেছিলেন ‘ঘুমর’ গানের সঙ্গেই!

এ বার শুধু ছবি মুক্তির অপেক্ষা!

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন