Connect with us

দেশ

গুজরাত উপকূলের কাছ থেকে ২২ ভারতীয় মৎস্যজীবীকে বন্দি করল পাকিস্তান

ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তান মেরিটাইম সিকিউরিটি এজেন্সি বা পিএমএসএ গুজরাতের ২২ জন মৎস্যজীবীকে বন্দি করেছে বলে বুধবার জানাল সংশ্লিষ্ট মৎস্যজীবী সংগঠন।

এর দিন দুয়েক আগেই ৩৪ জন মৎস্যজীবীকে পিএমএসএ আটক করেছিল বলে জানানো হয়েছিল। পোরবন্দর ভিত্তিক ন্যাশনাল ফিসওয়ার্কার্স ফোরামের সম্পাদক মণীষ লোধারি জানান, গত বুধবার আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক সীমার কাছ থেকে ওই ২২ জন মৎস্যজীবীকে ধরে পাকিস্তানে এজেন্সি।

লোধারি জানান, চারটি নৌকায় করে ওই মৎস্যজীবীরা গুজরাতের উপকূলের কাছে মাছ ধরতে ধরতে আন্তর্জাতিক জলসীমায় চলে যায়। সেখান থেকেই তাদের ধরে ফেলে পিএমএসএ।

একই ভাবে গত ৬ মে পোরবন্দর থেকে ছ-টি নৌকায় করে মাছ ধরতে যাওয়া ৩৪ জন মৎস্যজীবীকে আটক করে পাকিস্তানের এজেন্সি। এর পর ফের ২২ জনকে ধরেছে তারা। ফোরামের কাছে খবর রয়েছে, ওই মৎস্যজীবীদের বন্দি করার পর পিএমএসএ তাদের করাচি বন্দরে নিয়ে গিয়ে রেখেছে।

[ লহোরের সুফি দরগায় বিস্ফোরণ, হত ৪, আহত অন্তত ১৫ ]

লোধারি দাবি করেছেন, পাকিস্তানের এজেন্সি এ রকম ধারাবাহিক ভাবেই ভারতীয় মৎস্যজীবীদের আটক করছে।

দেশ

বলিউড ছবির ধাঁচে কী ভাবে রচিত হয় বিকাশ দুবের ধরা দেওয়ার চিত্রনাট্য?

বৃহস্পতিবার তার নাটকীয় গ্রেফতারিতে আত্মসমর্পণের জোরালো তত্ত্বও উঠে আসছে।

ওয়েবডেস্ক: কুখ্যাত দুষ্কৃতী বিকাশ দুবের (Vikas Dubey) ধরা পড়া নিয়ে জোর জল্পনা চলছে। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে বেড়ালেও বৃহস্পতিবার তার নাটকীয় গ্রেফতারিতে আত্মসমর্পণের জোরালো তত্ত্বও উঠে আসছে।

এ দিন সকালে মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দির থেকে বিকাশকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। অনেকেই তার গ্রেফতারির সঙ্গে মিল খুঁজে পাচ্ছেন, বলিউডি ছবির চিত্রনাট্যের সঙ্গে। নিজের ডেরা থেকে হাজার কিমি দূরে মহাকাল মন্দির প্রাঙ্গণে দাঁড়িয়ে তাকে বলতে শোনা যায়, “ম্যায় হুঁ বিকাশ দুবে, কানপুরওয়ালা”। যা সঞ্জয় দত্ত (Sanjay Dutt) অভিনীত “খলনায়ক” ছবির কথা মনে করিয়ে দেয়।

কানপুরে আট পুলিশকর্মী খুন হওয়ার পর থেকেই সপ্তাহখানেক ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল বিকাশ। পুলিশ তার খোঁজে হরিয়ানা, দিল্লি এবং ভারত-নেপাল সীমান্তে জোর তল্লাশি চালায়। তার ঘনিষ্ঠ মহলের কথায়, নয়ের দশকে অপরাধ জগতে আবির্ভাব হয় বিকাশের। এর পর সানি দেওলের (Sunny Deol) ছবি “অর্জুন পণ্ডিত”-এর মতো নিজের ইমেজ গড়ে তুলতে শুরু করে সে। পুলিশ এবং রাজনৈতিক মহলে তার পরিচিতি ছিল ‘পণ্ডিত’ নামেই।

গ্রেফতার হওয়ার জমকালো চিত্রনাট্য

সূত্রের খবর অনুযায়ী, এ দিন সকাল ৮টা নাগাদ মহাকাল মন্দিরে পৌঁছোয় বিকাশ। সেখানে গিয়ে নিরাপত্তারক্ষীদের কাছে নিজের পরিচয় দেয়। এমনকী নিরাপত্তারক্ষীদের উদ্দেশে সে বলে, পুলিশকে খবর দিতে। যাতে পুলিশ এসে তাকে গ্রেফতার করতে পারে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ছবিতে দেখা গিয়েছে, মন্দিরে একটি সোফায় বসে রয়েছে বিকাশ। কিন্তু কী কারণে মন্দিরকেই বেছে নিল সে?

মন্দিরের মতো জায়গা অনেকটাই নিরাপদ। যেখানে সহজে গুলিগোলা চালানোর সম্ভাবনা কম। সাধারণ পুণ্যার্থীদের কথা ভেবে পুলিশও কোনো ভারী পদক্ষেপ নিতে একাধিক বার ভেবে দেখতে পারে।

গ্রেফতার নয়, আত্মসমর্পণ!

বিকাশের ধরা পড়ার পর পুলিশ মহল থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও একাধিক প্রশ্ন তুলছেন।

উত্তরপ্রদেশে কর্মরত আইপিএস অফিসার অমিতাভ ঠাকুর টুইটারে লিখেছেন, “আমরা বিকাশ দুবেকে গ্রেফতার করতে পারিনি। সে উজ্জয়িনীতে আত্মসমর্পণ করল। এত বড়ো একটা ঘটনার পরেও আমরা তাকে গ্রেফতার করতে পারিনি। সে আশেপাশের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছে। কী ভাবে? এটা তদন্ত করা উচিত”।

কতকটা একই রকম ভাবে এক অবসরপ্রাপ্ত ডিজিপি জানিয়েছেন, “এটা একটা পূর্বপরিকল্পিত আত্মসমর্পণ, সেটা সহজেই বোঝা যাচ্ছে। গত এক সপ্তাহ ধরে বিকাশ তিনটি রাজ্যের পুলিশকে ঘোল খাইয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের আবহে মুখে মাস্ক না পরেই সে মুখে ঢুকে পড়ে। সে ভালো করেই জানত, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের খপ্পরে পড়লে তাকে গুলি করে মেরে দেওয়া হবে”।

তিনি আরও বলেন, বিকাশ দুবেকে গ্রেফতার করতে পুলিশকে কোনো বলপ্রয়োগ করতে হয়নি। আসলে কুখ্যাত দুষ্কৃতী কোনো ‘নিরাপদ রাজ্যে’ই আত্মসমর্পণের ছক কষেছিল।

বলে রাখা ভালো, বিকাশের খোঁজে নেমেছিল চার ডজন স্পেশাল টাস্ক ফোর্স, পাশাপাশি রাজ্য পুলিশ তো তার পিছনে ধাওয়া করছিল-ই!

আরও পড়তে পারেন: উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দির থেকে গ্রেফতার বিকাশ দুবে

Continue Reading

দেশ

সক্রিয় করোনা রোগীর ৯০ শতাংশই আটটি রাজ্যে!

সক্রিয় কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যার দিক থেকে তালিকার উপরের দিকে রয়েছে দেশের আটটি রাজ্য।

নয়াদিল্লি: ভারতে করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে সাত লক্ষের গণ্ডি ডিঙনোর পাশাপাশি আক্রান্তের হারও বেড়ে চলেছে ক্রমশ। বৃহস্পতিবার কেন্দ্র জানাল, সক্রিয় কোভিড-১৯ (Covid-19) রোগীর সংখ্যার দিক থেকে তালিকার উপরের দিকে রয়েছে দেশের আটটি রাজ্য। যেগুলিতে সারা দেশের প্রায় ৯০ শতাংশ সক্রিয় রোগী রয়েছেন।

এ দিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিগোষ্ঠীর (GoM) বৈঠকের আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রক দেশের করোনা সংক্রমণের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি এবং প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপগুলির পাশাপাশি স্বাস্থ্য পরিকাঠামো পুনর্গঠনগত যাবতীয় উদ্যোগের তথ্য পেশ করে।

কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান অনুযায়ী, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি এবং কর্নাটক-সহ দেশের আটটি রাজ্যে ৯০ শতাংশ সক্রিয় রোগী রয়েছেন। অন্য দিকে সারা দেশের ৪৯টি জেলায় ৮০ শতাংশ সক্রিয় রোগীর চিকিৎসা চলছে।

কোন কোন রাজ্য

মন্ত্রিগোষ্ঠীর বৈঠকে পেশ করা তথ্য অনুযায়ী, আটটি রাজ্যের তালিকায় রয়েছে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, কর্নাটক, তেলঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাত, তামিলনাড়ু এবং উত্তরপ্রদেশ।

এ দিন মন্ত্রিগোষ্ঠীর ১৮তম বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন। দেশের যে সমস্ত এলাকায় সংক্রমণ এবং আক্রান্তের মৃত্যুর হার অত্যধিক, সেই সমস্ত জায়গায় বাড়তি নজরদারি চালানোর কথা উল্লেখ করা হয়।

মৃত্যুর হার

এ দিন মন্ত্রিগোষ্ঠীর বৈঠকে পেশ করা পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, দেশের ছ’টি রাজ্যে করোনা মৃত্যুর হার অন্যান্য রাজ্যের থেকে তুলনামূলক ভাবে বেশি।

সারা দেশে মোট করোনা-মৃত্যুর ৮৬ শতাংশই ওই ছ’টি রাজ্যে। অন্য দিকে মোট করোনা-মৃত্যুর ৮০ শতাংশই ৩২টি জেলায়।

রাজ্যগুলির মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাত, তামিলনাড়ু, উত্তরপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ।

প্রতিরোধী ব্যবস্থা

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্যপরিষেবা সম্পর্কে এ দিন কেন্দ্র জানায়, সারা দেশে ৩,৯১৪টি কেন্দ্রে ৩,৭৭,৭৩৭টি আইসোলেশন বেড (আইসিইউ ছাড়া), ৩৯,৮২০টি আইসিইউ বেড এবং ১,৪২,৪১৫টি অক্সিজেন-যুক্ত বেড এবং ২০,০৪৭টি ভেন্টিলেটরের মাধ্যমে চিকিৎসা চলছে।

কেন্দ্র এখনও পর্যন্ত ২১.৩ কোটি এন৯৫ মাস্ক, ১.২ কোটি পিপিই এবং ৬.১২ কোটি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট সরবরাহ করেছে।

আরও পড়তে পারেন: করোনায় মৃত্যুহারে কে কোথায়

Continue Reading

দেশ

করোনায় মৃত্যুহারে কে কোথায়

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস যে মারণ ভাইরাস নয়, সেটা ভারতের গড় মৃত্যুহারই বুঝিয়ে দিচ্ছে। এখনও গোটা দেশে মৃত্যুর হার তিন শতাংশেরও কম। তবে কিছু রাজ্যে মৃত্যুহার জাতীয় গড়ের থেকে বেশি রয়েছে। আবার অনেক রাজ্য আর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল রয়েছে যেখানে মৃত্যুহার জাতীয় গড়ের থেকে কম।

একবার দেখে নেওয়া যাক, ভারতের বিভিন্ন রাজ্য আর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে মৃত্যুহার কী রকম রয়েছে।

১) গুজরাত

মোট রোগী- ৩৮,৩৩৩

মৃত্যুহার- ৫.১৯%

২) মহারাষ্ট্র

মোট রোগী- ২,২৩,৭২৪

মৃত্যুহার- ৪.২২%

৩) মধ্যপ্রদেশ

মোট রোগী- ১৬,০৩৬

মৃত্যুহার- ৩.৯২%

৪) পশ্চিমবঙ্গ

মোট রোগী- ২৪,৮২৩

মৃত্যুহার- ৩.৩৩%

৫) দিল্লি

মোট রোগী- ১,০৪,৮৬৪

মৃত্যুহার- ৩.০৬%

৬) উত্তরপ্রদেশ

মোট রোগী- ৩১,১৫৬

মৃত্যুহার- ২.৭১%

৭) পঞ্জাব

মোট রোগী- ৬,৯০৭

মৃত্যুহার- ২.৫৭%

৮) রাজস্থান

মোট রোগী- ২২,০৬৩

মৃত্যুহার- ২.১৮%

৯) কর্নাটক

মোট রোগী- ২৮,৮৭৭

মৃত্যুহার- ১.৬২%

১০) জম্মু-কাশ্মীর

মোট রোগী- ৯,২৬১

মৃত্যুহার- ১.৬০%

১১) হরিয়ানা

মোট রোগী- ১৮,৬৯০

মৃত্যুহার- ১.৫০%

১২) উত্তরাখণ্ড

মোট রোগী- ৩,২৫৮

মৃত্যুহার- ১.৪১%

১৩) পুদুচেরি

মোট রোগী- ১,০০৮

মৃত্যুহার- ১.৩৮%

১৪) চণ্ডীগড়

মোট রোগী- ৫১৩

মৃত্যুহার- ১.৩৬%

১৫) মেঘালয়

মোট রোগী- ৮০

মৃত্যুহার- ১.২৫%

১৬) অসম

মোট রোগী- ১৩,৩৩৬

মৃত্যুহার- ১.১৯%

১৭) অন্ধ্রপ্রদেশ

মোট রোগী- ২২,২৫৯

মৃত্যুহার- ১.১৮%

১৮) তেলঙ্গানা

মোট রোগী- ২৯,৫৩৬

মৃত্যুহার- ১.০৯%

১৯) হিমাচল প্রদেশ

মোট রোগী- ১,১০১

মৃত্যুহার- ০.৯৯%

২০) বিহার

মোট রোগী- ১৩,১৮৯

মৃত্যুহার- ০.৮১%

২১) ঝাড়খণ্ড

মোট রোগী- ৩,০৯৬

মৃত্যুহার- ০.৭১%

২২) অরুণাচল প্রদেশ

মোট রোগী- ২৮৭

মৃত্যুহার- ০.৭০%

২৩) ত্রিপুরা

মোট রোগী- ১.৭৬১

মৃত্যুহার- ০.৫৪%

২৪) ওড়িশা

মোট রোগী- ১০,৬২৪

মৃত্যুহার- ০.৪৫%

২৫) কেরল

মোট রোগী-৬,১৯৫

মৃত্যুহার- ০.৪৩%

২৬) ছত্তীসগঢ়

মোট রোগী- ৩,৫২৫

মৃত্যুহার- ০.৩৯%

২৭) গোয়া

মোট রোগী- ২,০৩৯

মৃত্যুহার- ০.৩৯%

২৮) তামিলনাড়ু

মোট রোগী- ১,২২,৩৫০

মৃত্যুহার- ০.১৩%

২৯) লাদাখ

মোট রোগী- ১,০৪১

মৃত্যুহার- ০.০৯%

৩০) সিকিম

মোট রোগী- ১৩৩

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

৩১) মিজোরাম

মোট রোগী- ১৯৭

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

৩২) নাগাল্যান্ড

মোট রোগী- ৬৫৭

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

৩৩) দাদরা, দমন দিউ

মোট রোগী- ৪০৮

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

৩৪) আন্দামান

মোট রোগী- ১৪৯

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

৩৫) মণিপুর

মোট রোগী- ১,৪৩৫

মৃত্যুহার- ০% (কারও মৃত্যু হয়নি)

Continue Reading
Advertisement
বিনোদন7 mins ago

‘তারক মেহতা…’ বাদে সোমবার থেকে হিন্দি বিনোদনের চ্যানেলগুলোয় ফিরছে নতুন এপিসোড

দেশ34 mins ago

বলিউড ছবির ধাঁচে কী ভাবে রচিত হয় বিকাশ দুবের ধরা দেওয়ার চিত্রনাট্য?

রাজ্য41 mins ago

ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’, রঞ্জন ঘোষাল

দেশ1 hour ago

সক্রিয় করোনা রোগীর ৯০ শতাংশই আটটি রাজ্যে!

বিদেশ1 hour ago

বিদেশি ছাত্রদের বিতাড়ন সংক্রান্ত নয়া মার্কিন নির্দেশিকার বিরুদ্ধে মামলা হার্ভার্ড ও এমআইটির

গাড়ি ও বাইক2 hours ago

এ বার অনলাইনেই কেনা যাবে হোন্ডার বাইক-স্কুটার

Kolkata High Court
কলকাতা3 hours ago

শুক্রবার থেকে বন্ধ কলকাতা হাইকোর্ট

Mamata Banerjee
রাজ্য4 hours ago

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অক্সফোর্ডে বক্তব্য রাখার আমন্ত্রণ

দেশ8 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৭৯, সুস্থ ১৯৫৪৭

currency
শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

পিপিএফের ৯টি নিয়ম, যা জেনে রাখা ভালো

কলকাতা23 hours ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

রাজ্য2 days ago

পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় ফের কড়া লকডাউনের জল্পনা

দেশ2 days ago

দ্রুত গতিতে বাড়ছে সুস্থতা, ভারতে এক সপ্তাহেই করোনামুক্ত লক্ষাধিক

ক্রিকেট3 days ago

ওপেনার সচিন তেন্ডুলকরের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

বিদেশ2 days ago

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

রাজ্য2 days ago

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া লকডাউন

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা3 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা4 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা1 week ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

নজরে