সামনে ছয় রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন, বাজেটে কৃষকের ‘মানভঞ্জনে’ মোদী

0

ওয়েবডেস্ক: আগামী এক বছরের মধ্যে সারা দেশের ছ’টি রাজ্যে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে পঞ্চায়েত নির্বাচন। পশ্চিমবঙ্গ-সহ অসম, অন্ধ্রপ্রদেশ, পণ্ডিচেরি ও জম্মু-কাশ্মীর এবং প্রধানমন্ত্রীর নিজের রাজ্য গুজরাতেও পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছে। সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার নতুন বছরের গোড়া থেকেই পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে সরকারি উদ্যোগ নিয়ে ফেলেছে। ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরের কেন্দ্রীয় বাজেটেও ঘটল তারই প্রতিফলন। গত চারটি বাজেটে মোদী সরকারের ‘কৃষক-দরদের’ যে এমন নজির নেই, তা  স্পষ্ট হয়ে ফুটে উঠল বহুবিধ পরিকল্পনা ঘোষণায়।

কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে ঠিক কী কী পরিকল্পনা নিল কেন্দ্র?

রবিশস্যের উৎপাদন ব্যয়ে সহায়ক মূল্য দেড়গুণ বাড়ানোর ঘোষণা সর্বাগ্রে ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। এই তহবিলে বরাদ্দ বাড়িয়ে করা হল ১১ লক্ষ কোটি টাকা।

ফসলের সঠি্ক মূল্যায়ন নিয়ে অভিযোগ দীর্ঘ দিনের। পর্যাপ্ত শস্য সঞ্চয় ভাণ্ডার, সবজির ক্ষেত্রে কোল্ড স্টোরেজের পরিমাণ বৃদ্ধি-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রেও অভিযোগ নিতান্তই কম নয়। সরকার সে সব নিয়ে নির্দিষ্ট ভাবে কোনো ঘোষণা না করলেও ধরে নেওয়া যেতে পারে সরকারি বরাদ্দের একটি অংশ সে দিকেও টেনে নেওয়া হবে। তবে নির্দিষ্ট ভাবে খাদ্য প্রক্রিয়া করণে বরাদ্দ বাড়াল কেন্দ্র। এ বারের বাজেটে খাদ্য প্রক্রিয়া করণে বরাদ্দ হয়েছে ১৫০০ কোটি টাকা। পাশাপাশি আলু, পিঁয়াজ, টম্যাটো চাষের জন্য আর্থিক সহায়তা দিতে পৃথক ভাবে ৫০০ কোটি টাকার তহবিল ঘোষণা করল কেন্দ্র।

এ ছাড়া চাষের কাজে সেচের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে বাড়তি গুরুত্ব দিতে সরকার আগাম পরিকল্পনা নেবে বলে জানানো হয়েছে। ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পে আলাদা করে তহবিল ঘোষণা না করলেও কৃষি মন্ত্রককে বাড়তি দায়িত্ব তুলে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। এমনকি কৃষি পণ্য পরিবহণের দিকটিও কৃষিমন্ত্রক বাড়তি গুরুত্ব সহকারে তত্ত্বাবধান করবে বলে জানা গিয়েছে।

সব মিলিয়ে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে কৃষকের আয় দ্বিগুণে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য বলছে, এক জন কৃষকের মাসিক আয় ৬৪২৬ টাকা। অঙ্কের হিসাবে ২০২২ সালের মধ্যে মোদী সরকার তা নিয়ে যাবে ১২৮৫২ টাকায়। প্রতিশ্রুতি রয়েছে তেমনটাই। কিন্তু তার আগে টপকাতে হবে ২০১৯-র লোকসভা ভোটের হাডর্ল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.