প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবি: পিটিআই-এর সৌজন্যে

নয়াদিল্লি: সংসদের বাদল অধিবেশন (Parliament Monsoon Session) শুরু হচ্ছে সোমবার। আগের দিন, রবিবার সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। ওই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তুলল বিরোধী দলগুলি।

সংসদের কাজকর্ম সুষ্ঠু ভাবে পরিচালনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সর্বদলীয় বৈঠক ডাকা এবং করা একটি প্রথা। কিন্তু এই নিয়ে দ্বিতীয় বার এ ধরনের বৈঠক এড়ালেন নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। এ ধরনের কাজ ‘অসংসদীয়’ কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন কংগ্রেস নেতা।

প্রবীণ কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ টুইটারে লেখেন, “সংসদের আসন্ন অধিবেশন নিয়ে আলোচনার জন্য সর্বদলীয় বৈঠক শুরু হলেও অনুপস্থিত প্রধানমন্ত্রী। এটা কি ‘অসংসদীয়’ নয়”?

শেষ বার বাজেট অধিবেশনের আগে সর্বদলীয় বৈঠকটিও এড়িয়েছিলেন মোদী। সে সময় বিজেপি দাবি করেছিল, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহও (Manmohan Singh) এ রকম অনেক বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন।

এ দিনের বৈঠকে সংসদ বিষয়কমন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশী সংসদের কার্যকারিতা সুষ্ঠু ভাবে পরিচালনা করার জন্য সমস্ত দলের প্রতি আহ্বান জানান।

অন্য দিকে, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সিঙ্গাপুর সফরের অনুমতিতে বিলম্ব, সশস্ত্র বাহিনীর জন্য অগ্নিপথ নিয়োগ প্রকল্প, মুদ্রাস্ফীতি, বেকারত্ব এবং কেন্দ্রের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর অপব্যবহার-সহ অন্যান্য বিষয়ও উত্থাপন করে বিরোধীরা।

প্রহ্লাদ ছাড়াও বৈঠকে বিজেপির তরফ থেকে উপস্থিত রাজনাথ সিংহ, পীযূষ গয়ল, অর্জুন মেঘওয়াল এবং মুরালিধরন। কংগ্রেসের প্রতিনিধিত্ব করছেন মল্লিকার্জুন খাড়্গে, অধীররঞ্জন চৌধুরী এবং জয়রাম রমেশ। এনসিপি থেকে শরদ পওয়ার এবং সুপ্রিয়া সুলে, জেডিইউ-র রামনাথ ঠাকুর, আপ-এর সঞ্জয় সিংহ এবং অকালি দলের হরসিমরত কউরও উপস্থিত রয়েছেন।

আরও পড়তে পারেন: 

উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ধনকরকে সমর্থন করবে কি তৃণমূল? বৈঠকে বসছেন মমতা

জগদীপ ধনকরের পর বাংলার পরবর্তী রাজ্যপাল কে? জল্পনায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

এনডিএ-র উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী জগদীপ ধনকর, ঘোষণা করলেন জেপি নড্ডা

বিরোধীদের জায়গা কমেছে, সুস্থ গণতন্ত্রের লক্ষণ নয়, উদ্বেগ প্রধান বিচারপতি এনভি রমনার

শ্রীলঙ্কা ডুবেছে, অর্থনৈতিক সংকটের মুখে আরও ডজনখানেক দেশ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন