একের পর এক ঘূর্ণিঝড়, ভেঙে যেতে পারে অতীতের সব রেকর্ড

0

ওয়েবডেস্ক: অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছিল ২০১৮ সাল। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে ২০১৯-এ সেই রেকর্ডও ভেঙে যেতে পারে। ফলে ঘূর্ণিঝড়ের নিরিখে নতুন রেকর্ড তৈরি করতে পারে ২০১৯।

গত বছর উত্তর ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে তৈরি হয়েছিল সাতটি ঘূর্ণিঝড়। এর আগে কোনো বছরেই এত সংখ্যক ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়নি। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এ বছর ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এ বছর জানুয়ারি থেকে ৬ নভেম্বর সকাল সাড়ে দশটা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগর এবং আরব সাগরে সৃষ্টি হয়েছে ৬টি ঘূর্ণিঝড়। আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আরও একটি ঝড় তৈরি হতে চলেছে। ফলে মোট ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা দাঁড়াবে সাত।

এ বছর, জানুয়ারিতেই একটি ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়েছিল। কিন্তু ‘পাবুক’ নামক সেই ঝড় বঙ্গোপসাগরে বিলীন হয়ে যায়। এর পর মে মাসে ওড়িশায় আছড়ে পড়ে তীব্র ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। তার একমাস পর আরব সাগরে তৈরি হয় ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’।

Shyamsundar

সেপ্টেম্বর আরও একটি ঘূর্ণিঝড়ের জন্ম দেয় আরব সাগর। ‘হিক্কা’ নামক সেই ঝড় ওমানে আছড়ে পড়ার পরের মাসেই আবার ঘূর্ণিঝড় আরব সাগরে। সেই ঘূর্ণিঝড় ‘কিয়ার’ আবার সুপার সাইক্লোনে পরিণত হয়েছিল। কিন্তু সেই সাগরেই দুর্বল হয়ে যাওয়ায়, কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

‘কিয়ার’ দুর্বল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তৈরি হয়ে গেল ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’। এই ‘মহা’ ঝড়টি দিউ উপকূলে আছড়ে পড়তে চলেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে।

এ দিকে জেগে উঠেছে বঙ্গোপসাগরও। আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেখানে জন্ম নিতে চলেছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল।’ ফলে এ বছর উত্তর ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা দাঁড়াবে ৭-এ।

আরও পড়ুন ১০০০ কোটি টাকা দিয়েছেন…, চাঞ্চল্যকর দাবি কর্নাটকের বিদ্রোহী বিধায়কের

কিন্তু আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, আবারও জেগে উঠতে পারে বঙ্গোপসাগর। কারণ নভেম্বর, ডিসেম্বরে দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তামিলনাড়ু উপকূলে ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনা অত্যন্ত বেশি থাকে। তেমনটা হলে অষ্টম ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

আর এটা হলেই রেকর্ড। ২০১৮-কে ছাপিয়ে যাবে ২০১৯। কিন্তু এই রেকর্ড আদৌ সুখকর নয়। কারণ তেমনটা হলে, গত দু’ বছরে ১৫টা ঘূর্ণিঝড় পেয়ে যাবে বঙ্গোপসাগর এবং আরব সাগর। ব্যাপারটা যে জলবায়ু পরিবর্তনের দিকেই ইঙ্গিত করছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন