প্রতিষ্ঠান-বিরোধিতার হাওয়া নেই, কেরলে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে এখনও জনপ্রিয় পিনারাই বিজয়ন

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ৪০ বছরের ধারা এ বারই কি ভেঙে যাবে কেরলে? অন্তত বিভিন্ন জনমত সমীক্ষা এমনই ইঙ্গিত দিতে শুরু করেছে। সব থেকে বড়ো কথা হল, প্রতিষ্ঠান-বিরোধিতার হাওয়াকে উড়িয়ে দিয়ে কেরলে এখনও মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয় পিনারাই বিজয়ন।

আর কয়েক মাসের মধ্যেই বিধানসভা নির্বাচন কেরলে। অতীতের ধারা অনুযায়ী এ রাজ্যে এ বার বামজোটকে ক্ষমতাচ্যুত করে কংগ্রেস জোটের ক্ষমতা দখল করার কথা। কিন্তু জনমত সমীক্ষাগুলি বলছে, এ বার ফের ক্ষমতায় ফিরতে চলেছে বামজোটই, মুখ্যমন্ত্রিত্বের আসনে ফের একবার বসবেন বিজয়ন।

এশিয়ানেট-সি ফোরের করা এই সমীক্ষায় জানা গিয়েছে যে রাজ্যের ৩৯ শতাংশ মানুষ চান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ফিরে আসুন বিজয়ন। কংগ্রেস নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমেন চান্ডির পক্ষে মত দিয়েছেন ১৮ শতাংশ মানুষ। অন্য দিকে, কংগ্রেস নেতা শশী তরুর পেয়েছেন মাত্র ৯ শতাংশ মানুষের সমর্থন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি কে সুরেন্দ্রনকে মুখ্যমন্ত্রী দেখতে চান মাত্র ৬ শতাংশ মানুষ।

সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে আসন্ন নির্বাচনে কেরলে ১৪০ আসনের মধ্যে ৭২ থেকে ৭৮টি আসন জিততে পারে বামজোট। কংগ্রেস জোট পেতে পারে ৫৬ থেকে ৬৫টি আসন। অন্য দিকে ৩ থেকে ৭টা আসনের মধ্যেই সন্তুষ্ট থাকতে হতে পারে বিজেপিকে।

Shyamsundar

সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ৩৪ শতাংশ মানুষ বলেছেন গত বছর লকডাউনের সময়ে রাজ্য সরকার সাধারণ মানুষের হাতে বিনামূল্যে যে খাদ্য পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিল, ওটাই সেই সরকারের সেরা সাফল্য। ১৮ শতাংশ মানুষ কিন্তু মনে করেন কোভিড অতিমারি বিজয়ন সরকার যে ভাবে মোকাবিলা করেছে, সেটাই সব থেকে বড়ো সাফল্যের।

উল্লেখ্য, গত বছর ডিসেম্বরে রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনে সব হিসেব উলটে দিয়ে ক্ষমতায় ফিরে এসেছিল বামেরাই। তখন থেকেই বিশেষজ্ঞরা মনে করছিলেন যে প্রতিষ্ঠান-বিরোধিতার হাওয়া এ বার কেরলে একদমই নেই।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুট মার্চ শুরু জয়নগরে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন