খবর অনলাইন ডেস্ক: ভারতের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের তীব্র সমালোচনা করল আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট’। তাদের দাবি, “ভারতের এই বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিজেই তৈরি করেছে মোদী সরকার”।

দ্য ল্যানসেট লিখেছে, “বারবার সতর্ক করা সত্ত্বেও সরকার ধর্মীয় উৎসব পালন এবং রাজনৈতিক জমায়েতের মতো অতি সংক্রামক অনুষ্ঠান হতে দিয়েছে। এই ধরনের অতি সংক্রামক বা সুপার স্প্রেডার অনুষ্ঠানই বিপদ ডেকে এনেছে ভারতে”।

Loading videos...

করোনা-সংকটের সমালোচনা নিয়ে চিকিৎসা সংক্রান্ত এই পত্রিকাটি তাদের সম্পাদকীয় বিভাগে লিখেছে, “সমালোচকদের চুপ করিয়ে দেওয়া এবং খোলা মনে পরামর্শ নিতে না চাওয়ার সরকারি মনোভাবই ভারতের সংকট বাড়িয়েছে, যা ক্ষমার অযোগ্য”।

কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে জার্নালে লেখা হয়েছে, “বেশ কয়েক মাস সংক্রমণের হার কমতে থাকায় ভারত করোনা ভাইরাসকে পরাস্ত করে ফেলেছে, এ রকম একটা বার্তা দিতে থাকে। যদিও তার আগে বারবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এবং নতুন স্ট্রেন নিয়ে সতর্ক বার্তা দেওয়া হচ্ছিল। স্বভাবতই, করোনা মোকাবিলায় মোদী সরকার তার প্রথম দফার সাফল্যকে তছনছ করে দিয়েছে”।

তবে শুধু ওই আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল-ই নয়, এ দেশের বিশিষ্ট চিকিৎসকদের একাংশও অভিযোগ করছেন, “আমরা কতকটা কালীদাসের মতো আচরণ করেছি। যে ডালে বসে রয়েছি, সেটাই কাটছি”।

পত্রিকাটি দাবি করেছে, মার্চ মাসের গোড়ার দিকে ভারতে করোনা সংক্রমণের হার কমে যায়। কিন্তু সে সময় বিশ্বের অন্য দেশে জোরালো প্রভাব ফেলে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ। তারই মধ্যে ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন দাবি করেন, “দেশে মহামারির সমাপ্তি ঘটে গিয়েছে”।

জার্নালের মতে, সাফল্য ধরে রেখে বর্তমান বিপদ এড়ানো যেত, যদি মোদী সরকার ভুল স্বীকার করে নিত। কিন্তু অনমনীয় মনোভাব সমস্যা বাড়িয়েছে। যে কারণে ভারতের উদ্দেশে পরামর্শে বলা হয়েছে, ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েই করোনা মোকাবিলায় পরবর্তী পদক্ষেপ করতে হবে। নেতৃত্বের দায়বদ্ধতা বজায় রেখে স্বচ্ছতার সঙ্গে বৈজ্ঞানিক ভাবে জনস্বাস্থ্যের উপর জোর দিতে হবে।

আরও পড়তে পারেন: Corona Lockdown: লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল দিল্লিতে, আরও কঠোর নিয়ন্ত্রণবিধি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.