bankura sandalwood

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়া: সারা বাঁকুড়া জেলা জুড়েই চন্দন কাঠ চোরদের দৌরাত্ম্যে একে একে নিশ্চিহ্ন হচ্ছে বহুমূল্য চন্দন গাছ। এই চুরির তদন্তে নেমে ফের বড়ো সাফল্য পেল বাঁকুড়া পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার রাতে হিড়বাঁধ ব্লকের বড়কোনিয়া গ্রাম থেকে অজিত হেমব্রম এবং ওন্দা ব্লকের পুনিশোলের দক্ষিণ পাড়া থেকে আব্দুল কাদের মল্লিককে গ্রেফতার করেছিল হিড়বাঁধ থানার পুলিশ। ধৃতদের জেরা করে আরও এক অভিযুক্তের সন্ধান পায় পুলিশ। এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে হিড়বাঁধ থানা এলাকার জামডহরা গ্রাম থেকে বীরবল টুডু নামে আর  এক পাচারকারীকে। তার বাড়িতে মজুত রাখা চন্দন কাঠও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

sandalwood

হিড়বাঁধ এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, বেশ কিছু দিন ধরেই চন্দন গাছ চুরির একাধিক ঘটনা ঘটছিল। এর পর চন্দন কাঠ চুরির তদন্তে নেমেই প্রথম দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রথমে পাঁচ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয় খাতরা মহকুমা আদালত। পরে শুক্রবার আরও চোদ্দো দিনের হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে তারা। তাদের জেরা করেই আরও এক অপরাধীর সন্ধান পায় পুলিশ।

এলাকাবাসী ও পুলিশের ধারণা আন্তঃরাজ্য কোনো পাচারকারী চক্র এই চন্দন গাছ চুরির সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে। এই ঘটনায় যুক্ত অন্যদেরও ছাড়া হবে না বলে পুলিশ সূত্রে আশ্বাস দিয়েছে। পুলিশের ভূমিকায়  খুশি  এলাকাবাসী। তাঁরা আশা করছেন, এ বার হয়তো কিছুটা হলেও চন্দনদস্যুদের দৌরাত্ম্য কমবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here