patna-police

পটনা: পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তাদের আবাসনে ভাঙচুর চালালেন পুলিশকর্মীরা। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে পটনার পুলিশ লাইনে। শুধু আবাসনেই নয়, ভাঙচুর চালানো হয় দফতরের যানবাহনেও। পাশাপাশি হামলার অভিযোগ উঠেছে উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের ওপরও। এক কথায় পুলিশের উপর পুলিশের তাণ্ডব। কিন্তু কী কারণে?

এহেন ঘটনাj কারণ হল, এ দিন ডেঙ্গুতে ভুগে প্রাণ হারিয়েছেন পটনা থানার এক মহিলা কনস্টেবল। তারই প্রতিবাদে এই ব্যতিক্রমী আচরণ। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, পুলিশের উপরতলার আধিকারিকদের অবহেলা আর দুর্ব্যবহারের কারণেই প্রাণ গিয়েছে তাঁদের সহকর্মীর।

প্রায় ৩০০ প্রশিক্ষণরত পুলিশকর্মী-সহ বেশ কিছু মহিলা পুলিশকর্মীও এই হামলায় জড়িত। এঁরাই উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের বাসভবনে হামলা চালান বলে অভিযোগ।

 

তাঁদের অভিযোগ, এই উচ্চপদস্থকর্তারা তাঁদের ওপর অকথ্য অত্যাচার করেন। কাজের নামে এখানে তাঁদের ওপর শোষণ করা হয়, ব্যবহার করা হয়। ন্যূনতম প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধাটুকুও দেওয়া হয় না তাঁদের।

পুলিশকর্মীরা অভিযোগে জানিয়েছেন, মৃতা ওই পুলিশকর্মী ডেঙ্গুতে ভুগছিলেন। তিনি ছুটির আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু বারংবার আবেদন করা সত্বেও তাঁকে ছুটি নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

রাজস্থানে কংগ্রেস ফিরছে? কী বলছে আরও একটি জনমত সমীক্ষা

পুলিশ জানিয়েছে, পুলিশকর্মীদের এই তাণ্ডবের শিকার হয় নিকটবর্তী একটি মন্দিরও। সেটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তা ছাড়া নিজেদের থানা ছাড়াও এই বিক্ষোভকারী কর্মীরা আক্রমণ করেন সিটি সুপারিন্টেনডেন্ট অব পুলিশ, রুরাল সুপারিন্টেনডেন্ট অব পুলিশ-সহ আশেপাশের প্রায় ছয়টি থানার অফিসার ইন-চার্জের ওপর। তাঁদের ওপর পাথর ছুড়ে মারা থেকে মারধর পর্যন্ত করতে পিছপা হননি এই বিক্ষোভকারী পুলিশকর্মীরা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here