police

ওয়েবডেস্ক: গণধর্ষণে চক্রীদের গ্রেফতার করার চেষ্টা করতে গিয়ে মাশুল দিতে হল পুলিশকেই। অপহৃত হয়ে গেল খোদ পুলিশই। ঘটনাটি ঘটেছে ঝাড়খণ্ডের খুঁটিতে।

গত সপ্তাহে এক মানবাধিকার সংগঠনের পাঁচ সদস্যাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে স্থানীয় কয়েক জন আদিবাসী নেতার বিরুদ্ধে। অভিযোগের মূল তির ছিল আদিবাসীদের পাথালগড়ি আন্দোলনের নেতা ইউসুফ পুর্তি এবং জন জোনাস টিডুর বিরুদ্ধে। রাঁচি থেকে ৫৫ কিমি দূরে উভুরু গ্রামে এই দু’জনের বাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। প্রায় ৫০০ কর্মীর বিশাল পুলিশবাহিনী থাকলেও, বারবার গ্রামবাসীদের বাধার মুখে পড়তে হয় তাদের।

এর পরেই দেখা যায় বর্তমান সাংসদ এবং প্রাক্তন লোকসভা স্পিকার করিয়া মুন্ডার আদিবাড়িতে পাহারায় থাকা তিন পুলিশকর্মীকে অপহরণ করা হয়েছে। পুলিশের সন্দেহ, যারা পুর্তি এবং টিডুর বাড়িতে তল্লাশিতে বাধা দিচ্ছিল, তারাই অপহরণ করেছে এই তিন জনকে।

উল্লেখ্য, ঝাড়খণ্ডের খুঁটি, সিমডেগা, গুমলা এবং পশ্চিম সিংভুম জেলায় এই পাথালগড়ি আন্দোলনের চল রয়েছে। পাথলগড়ি আন্দোলনে যোগ দেওয়া আদিবাসীরা মনে করে তারা সরকারের থেকে সম্পূর্ণ স্বাধীন। এই চার জেলায় এমন অসংখ্য গ্রাম রয়েছে, যেখানে গ্রামের সংগঠনগুলিকে সম্পূর্ণ স্বাধীন বলে তকমা দেওয়া আছে। তারা মনে করে, এই অঞ্চল সম্পূর্ণ আলাদা সার্বভৌম একটি অঞ্চল।

মঙ্গলবার সকালে ওই দুই নেতার বাড়িতে তল্লাশি চালানো হলেও, তাদের খোঁজ পায়নি পুলিশ। খুঁটির পুলিশ সুপার অশ্বিনীকুমার সিনহা বলেন, “আমরা পুর্তি আর টিডুর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েও তাদের ধরতে পারিনি। মনে হচ্ছে গ্রামবাসীরাই তাদের পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছে। তবে ওদের যাবতীয় সম্পত্তি আমরা বাজেয়াপ্ত করেছি।”

পুলিশ সূত্রের খবর, এই তল্লাশির বদলা নিতেই পার্শ্ববর্তী চান্ডীডিহ গ্রামে কারিয়া মুণ্ডার বাড়িতে হামলা চালায় প্রায় তিনশো গ্রামবাসী। পুলিশরক্ষীদের রাইফেল কেড়ে নিয়ে অপহরণ করে তারা। এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, “ওই তিনজনকে নিরাপদে উদ্ধার করার জন্য সব রকম চেষ্টা করা হচ্ছে।” জানা গিয়েছে, কাছের ঘাগরা গ্রামে ওই তিন জনে আটকে রাখা হয়েছে।

গত ১৯ জুন, একটি মানবাধিকার সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ৫ জন আদিবাসী মহিলাকে অপহরণ করে ধর্ষণ করা হয়। অপহরণের সময়ে স্থানীয় একটি স্কুলে তাঁরা একটি মানবপাচার বিরোধী নাটক মঞ্চস্থ করছিলেন। এর পরেই দু’জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অজুব শান্ডি এবং আশিস লোঙ্গো নামক ওই দু’জন জানায়, টিডুর নির্দেশেই এই কাণ্ড করেছে তারা।

তবে এ রকম ঘটনা এটাই প্রথম নয়, এর আগে বেশ কয়েক বার পাথালগড়ি আন্দোলনকারীদের হাতে অপহৃত হয়েছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here