কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার ডাক দেওয়া বিজেপির এক মন্ত্রী বললেন, ‘কংগ্রেস নেই বলে বিজেপি দিল্লিতে হারল!’

0

নয়াদিল্লি: কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিল বিজেপি। সেই বিজেপির এক মন্ত্রীই বলছেন কংগ্রেস নেই বলেই দিল্লিতে হেরেছে বিজেপি।

পরিসংখ্যান বলছে, দিল্লিতে বিজেপির হারের পিছনে অন্যতম কারণ কংগ্রেসের দুর্বল লড়াই। সে কথা প্রকাশ্যে স্বীকার করে নিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। তাঁর কথায়, “দিল্লির রাজনীতি থেকে কংগ্রেস আচমকাই গায়েব হয়ে গিয়েছে। আর এটাই দিল্লির বিধানসভায় বিজেপির হারের অন্যতম কারণ।” বিজেপি শীর্ষস্তরের নেতার এ হেন স্বীকারোক্তিতে কার্যত অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

শুক্রবার এক সাংবাদিক বৈঠকে জাভড়েকর বলেন, “দিল্লি নির্বাচনে বিজেপির হারের অন্যতম কারণ কংগ্রেসের দুর্বলতা। এটা ঠিক যে মানুষ কংগ্রেসকে বিদায় দিয়েছে। কিন্তু তাদের সেই ভোট পেয়েছে আম আদমী পার্টি।” দেখা গিয়েছে, লোকসভা নির্বাচনে দিল্লিতে কংগ্রেস পেয়েছিল ২৬ শতাংশ ভোট, সেখানে বিধানসভা নির্বাচনে তাদের ঝুলিতে এসেছে মাত্র ৪ শতাংশ।

জাভড়েকরের কথায়, “কংগ্রেস ময়দানে না থাকায় বিজেপির সঙ্গে আপের সরাসরি লড়াই হয়েছে। আমরা ভেবেছিলাম আপ পাবে ৪৮ শতাংশ ভোট আর আমরা পাব ৪২ শতাংশ ভোট। কিন্তু দুই ক্ষেত্রেই ৩ শতাংশ ভোটে পার্থক্য হয়েছে। কংগ্রেস ভোটব্যাংক সরাসরি আপে চলে গিয়েছে।”

আরও পড়ুন ‘কাশ্মীর নিয়ে নাক গলাবেন না,’ পাকিস্তানের পর আরও এক দেশকে কড়া বার্তা ভারতের

এবার দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি পেয়েছে ৩৯ শতাংশ আর আপ পেয়েছে ৫২ শতাংশ ভোট। একই সঙ্গে জাভড়েকরের আরও দাবি, তিনি কখনই অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে সন্ত্রাসবাদী বলেননি।

বিজেপি বরাবরই কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার বার্তা দিয়েছে। তাঁদের সেই ‘স্বপ্ন’পূরণও হয়েছে কিছুটা। কিন্তু সেটা যে বিজেপির কাছে এ ভাবে বুমেরাং হয়ে যাবে সেটা সম্ভবত বিজেপি ভাবতেই পারেনি।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.