নয়াদিল্লি: দেশের লোকসভা এবং বিভিন্ন বিধানসভায় শেষ হল রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। আগামী বৃহস্পতিবার ভোট গণনা। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, শতাংশের বিচারে এনডিএ সমর্থিত প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দের পক্ষে ৬২ শতাংশ ভোট পড়তে পারে।

সোমবার, সংসদের বাদল অধিবেশন শুরুর দিনই অনুষ্ঠিত হয়েছে এই ভোটগ্রহণ। সংসদের ষোলো নম্বর ঘরে চলে ভোটগ্রহণ। সব থেকে প্রথমে ভোট দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার পর একে একে ভোট দেন অমিত শাহ, যোগী আদিত্যনাথরা। সংসদ ছাড়াও সারা দেশে ৩২টি জায়গায় চলে ভোটগ্রহণ।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা থেকেই সব থেকে কম ভোট পেতে চলেছেন কোবিন্দ। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার তিন জন এবং বিজেপির তিন জন বিধায়ক ছাড়া সব বিধায়কই বিরোধী প্রার্থী মীরা কুমারকে ভোট দিয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গের শাসক এবং বিরোধীর মধ্যে এক্যের ছবি ধরা পড়েছে।

মীরা কুমারের পক্ষে ভোট দেওয়ার পরেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, “সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন বিজেপিকে কেউ সমর্থন করবেন না।”

অন্যান্য বিধানসভাতেও ভোটগ্রহণ চলেছে। ক্রস ভোটিং-এর জল্পনা ছিল এনসিপি-র ব্যাপারে। তবে ক্রস ভোটিং-এর জল্পনাটি স্রেফ গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে তারা। এনসিপির মুখপাত্র নাওয়াব মালিক বলেন, “আমরা মীরা কুমারের পক্ষেই ভোট দিয়েছি।” তবে এই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ঘিরে ফের সামনে এসেছে সমাজবাদী পার্টির অন্তর্কলহ। কোবিন্দকেই সমর্থনের কথা জানিয়েছিলেন বাবা মুলায়ম, অন্য দিকে সব বিধায়ককে মীরা কুমারের পক্ষে ভোট দেওয়ার আবেদন করেন ছেলে অখিলেশ।

সব ব্যালট বৃহস্পতিবারের মধ্যে দিল্লিতে নিয়ে আসা হবে। আগামী ২৫ জুলাই শেষ হচ্ছে বর্তমান রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মেয়াদ।

ছবি: রাজীব বসু ও টুইটার

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন