৬ আগস্ট উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচন। প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। এখনও পর্যন্ত প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেনি শাসক অথবা বিরোধী, কোনো শিবিরই। তবে এরই মধ্যে বিরোধীদের একটা অংশের পছন্দের প্রার্থী হিসেবে চর্চায় উঠে এল পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নাম। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, তাঁকেই রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে তুলে ধরতে ইতিমধ্যেই তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন বিরোধী শিবিরের একাংশ।

২০১৭ সালে উপরাষ্ট্রপতি পদের জন্য বিরোধী জোটের প্রার্থী করা হয় গোপালকৃষ্ণ গান্ধীকে। যদিও ক্ষমতাসীন জোটের প্রার্থী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডুর কাছে পরাজিত হন তিনি।

তবে এ বার তাঁকে রাষ্ট্রপতি পদের জন্য প্রার্থী হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা চলছে। বেশ কিছু বিরোধী নেতা ফোনে কথা বলেছেন তাঁর সঙ্গে। তাঁদের তরফেই পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন রাজ্যপালকে প্রার্থী হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়।

২০০৪-২০০৯ সাল পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল ছিলেন মহাত্মা গান্ধীর পৌত্র। এ বার রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হওয়ার জন্য তাঁকে অনুরোধ করা হয়েছে বিরোধীদের তরফে।

সেই অনুরোধে তিনি ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন বলেও সূত্রের খবর। অনুরোধ বিবেচনার জন্য কিছুটা সময় চেয়ে নিয়েছিলেন তিনি। খুব শীঘ্রই তিনি নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানানোর আশ্বাসও দিয়েছেন। ফলে যদি তিনি অনুরোধ গ্রহণ করেন, তা হলে তিনি শীর্ষপদের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী করা হবে। ঠিক যে ভাবে গত উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে তাঁকে নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছেছিল বিরোধী দলগুলি।

৭৭ বছর বয়সি প্রাক্তন আমলা দক্ষিণ আফ্রিকা এবং শ্রীলঙ্কায় ভারতের হাইকমিশনার হিসেবেও কাজ করেছেন। তিনি মহাত্মা গান্ধী এবং সি রাজাগোপালচারীর পৌত্র।

অন্য দিকে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাষ্ট্রপতি পদে বিরোধীদের মনোনীত পার্থী বাছাইয়ের বিষয়ে আলোচনা করতে একটি বৈঠক ডেকেছেন। বুধবার  দিল্লির কনস্টিটিউশন ক্লাবে ওই বৈঠকে বিভিন্ন বিরোধী দলের অংশ নেওয়ার কথা।

জল্পনায় রয়েছে এনসিপি নেতা শরদ পওয়ারের নামও। ক’দিন ধরেই শোনা যাচ্ছে, এ বারের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী জোটের প্রার্থী হিসেবে তুলে ধরা হতে পারে এই প্রবীণ রাজনীতিবিকে। বুধবারের বৈঠকে থাকছেন তিনিও।

মঙ্গলবার মুম্বইয়ে প্রবীণ এনসিপি নেতা ছগন ভুজবল বলেন, “পওয়ার সাহেব যদি ভারতের রাষ্ট্রপতি হন, তা হলে কোনো সন্দেহ নেই প্রতিটি মরাঠি মানুষের বুক গর্বে ফুলে উঠবে। কিন্তু প্রশ্ন হল, আমাদের কাছে প্রয়োজনীয় সংখ্যা আছে কি”?

একই সঙ্গে ভুজবল বলেন, “আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল, তৃণমূলনেত্রী মমতা এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে পওয়ারের নাম প্রস্তাব করেছেন। তিনি নিজের রাজনৈতিক জীবনে কোনো নির্বাচনে হেরে যাননি। তাই, প্রয়োজনীয় সংখ্যা থাকলে, তিনি আমাদের দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন”।

আরও পড়তে পারেন:

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধীদের প্রার্থী হচ্ছেন শরদ পওয়ার? জল্পনা উসকে দিল তাঁর দল

দিল্লি পৌঁছেই শরদ পওয়ারের সঙ্গে সাক্ষাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের, বিরোধী জোটের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী নিয়ে জল্পনা

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে সামনে রেখে দিল্লি সফরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বৈঠকে যোগ দিচ্ছে কংগ্রেস

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিজেপি-কে চাপে ফেলার কৌশল, দেশের প্রবীণ এই রাজনীতিক হতে পারেন বিরোধী জোটের প্রার্থী

১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন, প্রার্থী হিসেবে কাকে বেছে নিতে পারে বিজেপি

 রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে কিছুটা এগিয়ে এনডিএ, ভিন্ন কৌশল বিরোধীদের, জানুন ভোটের সম্ভাব্য সমীকরণ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন