নয়াদিল্লি: ১৭ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। বুধবারই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। প্রথম দিনই ভোটে লড়ার জন্য মনোনয়ন পেশ করেছেন ৬ জন। ওই ৬ জনের মধ্যে রয়েছেন তিনিও। তামিলনাডুর সালেমের বাসিন্দা কে পদ্মরাজন।

‘ঊনিশটি বার ম্যাট্রিকে’ ঘায়েল হয়ে গঙ্গারাম থেমে গিয়েছিল, কিন্তু ষাট ছুঁইছুঁই পদ্মরাজনের থামার নাম নেই। ম্যাট্রিক নয়, হোমিওপ্যাথি ডাক্তার থেকে ব্যবসায়ী বনে যাওয়া পদ্মরাজনের কাছে নির্বাচনে লড়াটা একটা প্যাশন। এর জন্য নয় নয় করে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা খরচও করে ফেলেছেন তিনি(জামানত জব্দ হওয়ায়)। প্রায় তিন দশক ধরে একটানা ভোটে লড়ে অর্জন করা ‘নির্বাচনের রাজা’ তকমাটি হারাতে চান না তিনি।

১৯৮৮ সাল থেকে ভোটে লড়া শুরু পদ্মরাজনের। সেই থেকে তামিলনাডু, কেরল, কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, নয়াদিল্লি- পাঁচ রাজ্যে নানা ভোটে লড়েছেন তিনি। ৪জন প্রধানমন্ত্রী, ১১ জন মুখ্যমন্ত্রী, ১৩জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, ১৫জন রাজ্যের মন্ত্রীর বিরুদ্ধে লড়েছেন। অংশ নিয়েছেন ২৮টি লোকসভা, ৩৫টি রাজ্যসভা, ৫১টি বিধানসভা ও অন্যান্য স্থানীয় ভোটে। ৮ বার দাঁড়িয়েছেন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনেও। এবারেরটা নিয়ে ৯ বার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে লড়বেন পদ্মরাজন।

তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীদের তালিকাটি মারাত্মক গ্ল্যামারাস। রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাতিল ও এপিজে আবুল কালাম। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও অটল বিহারী বাজপেয়ী, তামিলনাডুর দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এম করুণানিধি ও প্রয়াত জয়ললিতা। কেরল প্রয়াত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কে করুণাকরণ। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এ কে অ্যান্থনি…তালিকা শেষ হওয়ার নয়।

পদ্মরাজন সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছিলেন ২০১১ সালে তামিলনাডুর বিধানসভা নির্বাচনে। মেত্তুর কেন্দ্রে তিনি সেবার পান ৬,২৭৩টি ভোট।

পদ্মরাজন বিশ্বাস করেন ‘এদেশে টাকা না থাকলে ভোটে জেতা যায় না আর নির্বাচনের ফলের ওপর ভারতবর্ষের ভালোমন্দ নির্ভরও করে না’।

তবে কেন বারবার ভোটে লড়েন পদ্মরাজন?

২০০৪, ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে লিমকা বুক অফ রেকর্ডসে ‘সবচেয়ে বেশিবার ব্যর্থ প্রার্থী’র তকমা পেয়েছেন তিনি। তাঁর লক্ষ্য গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তোলা।

তাই নির্বাচনের প্রচারে এক পয়সাও খরচ করেন না এই তামিল প্রৌঢ়। নিজে যেটুকু প্রচার করেন, তাতে ভোটদাতাদের উদ্দেশে তাঁর একটাই আবেদন থাকে, “দয়া করে আমায় ভোট দেবেন না”।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here