অকালি দলের পর এ বার চাপ বাড়াচ্ছে জেজেপি, হরিয়ানাতেও চাপে বিজেপি

0
dushmant singh chautala

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কৃষি বিপণন সংক্রান্ত বিলকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন শরিকের তরফে চাপে পড়ছে বিজেপি। বৃহস্পতিবারই মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন অকালি দলের হরসিমরত কউর বাদল। বিজেপির ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহারের ইঙ্গিত দিয়েছেন তাঁর স্বামী তথা অকালি নেতা সুখবীর সিংহ বাদল। এ বার হরিয়ানাতেও চাপে বেড়েছে বিজেপির ওপরে।

হরিয়ানায় বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ শরিক জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপি)। জেজেপির দশ জন বিধায়কের সমর্থনেই ক্ষমতা ধরে রাখতে পেরেছি বিজেপি। বিজেপিকে সমর্থন করার উপহার হিসেবে জেজেপি নেতা দুষ্মন্ত সিংহ চৌটলাকে উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ দিয়েছে বিজেপি। সেই দুষ্মন্ত এবং তাঁর দলের তরফেই এ বার চাপ বেড়েছে বিজেপির ওপরে।

শুক্রবার সকালে মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরের সঙ্গে বৈঠক করেন দুষ্মন্ত। সূত্রের খবর, দলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে বসেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বাদল পদত্যাগ করার পরেই হরিয়ানায় বিরোধী কংগ্রেস দুষ্মন্তকে ব্যাঙ্গ করে টুইট করে। দলের মুখপাত্র তথা হরিয়ানার নেতা রনদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা বলেন, “দুষ্মন্তজি, হরসিমরত কৌর বাদলকে দেখে আপনারও তো অন্তত উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ ছেড়ে দেওয়া উচিত ছিল। বোঝাই যাচ্ছে আপনি কৃষকদের স্বার্থ থেকে নিজের চেয়ারটাই বিশেষ পছন্দ করেন।”

কৃষকদের আন্দোলন থেকেই মূলত উত্থান জেজেপি এবং তাঁর মূল নেতা দুষ্মন্তর। এখন নিজের মূল ভোটারদের সমর্থন ধরে রাখার জন্য অকালির মতো কিছু পদক্ষেপ তাঁকে করতেই হবে বলে ওয়াকিবহাল মহল বলছে।

হরিয়ানার কুরুক্ষেত্রে গত ১০ সেপ্টেম্বর কৃষকদের সমাবেশে লাঠিচার্জ করা হয়। বেশ কয়েক জন আন্দোলনকারী তাতে আহত হন। ঘটনার নিন্দা করে বিবৃতি দেন দুষ্মন্ত। ফলে জেজেপির ওপরে চাপ যে আরও বেড়েছে তা বলাই বাহুল্য।

উল্লেখ্য, ৯০ আসনের হরিয়ানা বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার সংখ্যা ৪৬। কিন্তু বিজেপির রয়েছে ৪০ জন বিধায়ক। ফলে জেজেপি যদি সমর্থন প্রত্যাহার করে তা হলে বিজেপির আসন যে নড়বড় হয়ে যাবে তা নিশ্চিত।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

রাজ্যের দুটি জেলায় সক্রিয় কোভিডরোগীর থেকে বেশি কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন