“আক্রান্তদের সঙ্গে দেখা না করে ফিরবই না!” সারা রাত ধরনার পর নিজের অবস্থানে অনড় প্রিয়ঙ্কা

0

মির্জাপুর: উত্তরপ্রদেশ সরকার যতই চেষ্টা করুক তাঁকে ফেরত পাঠানোর, তিনি আক্রান্তদের সঙ্গে দেখা না করে কোনো ভাবেই ফিরবেন না। সারা রাত ধরনা দেওয়ার পর নিজের অবস্থানে এখনও অনড় রয়েছেন পূর্ব উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গান্ধী।

শুক্রবার রাতে চুনার দুর্গের ধরনামঞ্চ থেকে প্রিয়ঙ্কাকে একটি অতিথিশালায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সরকারের তরফ থেকে তাঁর কাছে আবেদন করা হয় অবিলম্বে দিল্লি ফিরে যাওয়ার জন্য। কিন্তু প্রিয়ঙ্কা অনড়। তিনিও সাফ জানিয়ে দেন, আক্রান্তদের সঙ্গে দেখা করতে না দিলে তিনি ফিরবেন না। শুক্রবার সারা রাত এই ঘটনা নিয়ে একাধিক টুইট করেন প্রিয়ঙ্কা।

একটি টুইটে তিনি বলেন, “বারাণসীর এডিজি, পুলিশ কমিশনার এবং মির্জাপুরের ডিআইজি আমার কাছে এক ঘণ্টা ধরে বসে রয়েছেন। আমাকে বলেছেন আক্রান্তদের পরিবারের সঙ্গে দেখা না করেই আমাকে ফিরে যেতে হবে। আমাকে কেন আটক করা হয়েছে, তার কোনো কারণ তাঁরা দেখাতে পারেননি। কোনো কাগজপত্রও আমি হাতে পাইনি।” তিনি আরও বলেন, “আমার আইনজীবী জানিয়েছেন, এ ভাবে আমায় আটক করা সম্পূর্ণ বেআইনি।”

এর পর রাত ১:১৫-এ একটি ভিডিও পোস্ট করে প্রিয়ঙ্কা জানান, পুলিশের আধিকারিকরা তাঁর সঙ্গে দেখা করে চলে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রের গুলি চালানোর ঘটনায় আক্রান্তদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন প্রিয়ঙ্কা। তখনই প্রিয়ঙ্কা এবং কংগ্রেস কর্মীদের আটক করে চুনার দুর্গে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। প্রিয়ঙ্কাও নিজের অবস্থানে প্রথম থেকেই অনড়।

আরও পড়ুন সোনভদ্রে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে প্রতিনিধিদল পাঠাচ্ছে তৃণমূল

উল্লেখ্য, গত বুধবার সোনভদ্র জেলার উভা গ্রামে একটি জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে চরম অশান্তির সৃষ্টি হয়। ৩৬ একরের একটি জমির মালিকানা কোনো ভাবেই ছাড়তে রাজি না হওয়ায় আদিবাসী কৃষকদের লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে দেয় গ্রাম প্রধান যজ্ঞ দত্ত এবং তার সাগরেদরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দশ জনের। আহত হন ২৪ জন।

যজ্ঞ এবং তার ভাই ছাড়াও আরও ২৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গোটা এলাকা জুড়ে ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। ঘটনার তদন্তে কোনো খামতি যেন না থাকে সেই নির্দেশ দেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.