Rahul Gandhi and Sonia Gandhi
প্রতীকী ছবি। ডেকান ক্রনিকল থেকে

নয়াদিল্লি: জাতীয় কংগ্রেসের ১৩ জুলাইয়ের কার্যকরী সমিতির বৈঠকের যাবতীয় তথ্য চাউর হয়ে গিয়েছিল সংবাদ মাধ্যমে। কিন্তু আগামী লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ইশতেহার কী হতে চলেছে, সে বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য সম্প্রতি প্রকাশ্যে নিয়ে এল ‘দ্য প্রিন্ট’। তাদের তরফে দাবি করা হচ্ছে, ইশতেহারে প্রবল ভাবে প্রাধান্য দেওয়া হবে তরুণ প্রজন্মের ভোটারদের। মূলত ৩৫ বছর বয়সি ভোটারদের জন্য থাকছে চমকপ্রদ প্রতিশ্রুতি।

জানা গিয়েছে, ওই বৈঠকে প্রাথমিক ভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, ২০১৯-এ বিজেপি-বিরোধী জোট সরকার গড়লে ৩৫ বছর বয়স ব্যক্তিদের করের আওতার বাইরে রাখা হবে। এবং এই ধরনের পদক্ষেপের কথা ইশতেহারে উল্লেখও থাকবে। ঠিক কোন যুক্তিকে সামনে রেখে কংগ্রেসের এই ধরনের পদক্ষেপ?

দেশের মোট ভোটারের দুই তৃতীয়াংশ ভোটারের বয়স ৩৫ বছরের নীচে। অন্য দিকে আগামী লোকসভায় প্রথম বার ভোট দিতে চলেছেন প্রায় দেড় কোটি ভোটার। সব মিলিয়ে নতুন প্রজন্মের ভোটারদের কাছে টানতেই কংগ্রেস এমন পদক্ষেপ নিতে পারে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা। কিন্তু সে ক্ষেত্রে রাজকোষের কী হবে?

আরও পড়ুন: অভূতপূর্ব ঘটনা: বিজেপির শরিক দলের নেতার জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানালেন রাহুল গান্ধী

এমন প্রশ্নের উত্তরে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, আয়কর দেন এমন ভারতীয় নাগরিকের বেশির ভাগটাই চলিশোর্ধ্ব। কারণ কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের পর আয় বা সঞ্চয়ের টাকার উপর কর দেওয়ার সময়টা আসে ওই বয়সেই। ব্যতিক্রমীদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়। কিন্তু তা তুলনামূলক ভাবে কম। যে কারণে ৩৫ বছর পর্যন্ত কর ছাড় দিলে রাজকোষের কর আদায়ের ঘাটতি তেমন ভাবে প্রভাব নাও ফেলতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here