মাইনাস ১৭ ডিগ্রি উপেক্ষা করে প্রশাসনের বিরুদ্ধে সারা রাত বিক্ষোভ জনতার!

kargil leh protests
সোমবার রাতভর এ ভাবেই চলল বিক্ষোভ।

কার্গিল: সম্প্রতি লাদাখ অঞ্চলকে আলাদা ডিভিশনের স্বীকৃতি দিয়েছে কাশ্মীর প্রশাসন। লেহ শহরকে এই ডিভিশনের সদর হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এর প্রতিবাদেই বিক্ষোভে শামিল হলেন কার্গিলের বাসিন্দারা।

হিমাংকের ১৭ ডিগ্রি নীচে তাপমাত্রা। এই ঠান্ডা সহ্য করে সারা রাত কার্গিলের রাস্তায় বিক্ষোভ দেখাল জনতা। মানুষের প্রতিবাদে কার্গিলে যেতে গিয়েও আটকে গেলেন লাদাখ ডিভিশনের নবনিযুক্ত ডিভিশনাল কমিশনার সুগত বিশ্বাস।

বিক্ষোভকারীদের মুল দাবি মূলত একটাই। লেহকে সব সময়ের জন্য সদর ঘোষণা না করে ছ’মাসের জন্য কার্গিল এবং ছ’মাসের জন্য লেহকে সদর ঘোষণা করা হোক।

উল্লেখ্য, কার্গিল এবং লেহ জেলা দু’টিকে নিয়ে লাদাখ অঞ্চল। মুসলিম এবং বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষের মূলত বসবাস এই অঞ্চলে। কার্গিল মূলত মুসলিম-প্রধান অঞ্চল এবং লেহ বৌদ্ধ-প্রধান অঞ্চল।

আরও পড়ুন বিরোধী জোটকে শক্তিশালী করতে একাধিক পদক্ষেপ, দিল্লির পথে মুখ্যমন্ত্রী

কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক বলেন, লাদাখের বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল এই আলাদা ডিভিশন। তবে সেই সঙ্গে তিনি আস্বাস দিয়েছেন, “কার্গিলের দাবি খুব গুরুত্ব সহকারে বিচার করা হবে।”

কার্গিলের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সরব। লাদাখ হিল এরিয়া ডেভেলপমেন্ট অথোরিটির সিইও ফিরোজ আহমেদ এবং জম্মু কাশ্মীর লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হাজি আনায়াত আলির নেতৃতে এই বিক্ষোভ চলছে।

আনায়াত আলি বলেন, “লাদাখকে আলাদা ডিভিশন করার সিদ্ধান্তে আমরা খুশি। কিন্তু আমরা চাই কার্গিলের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ বন্ধ করা হোক।”

তিনি আরও যোগ করেন, “ভারতের পতাকার তলায় আমরা এই প্রতিবাদ শুরু করেছি। কারণ ভারতের সংবিধানে আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.