চণ্ডীগড়: প্রধান প্রধান সড়কের ধারে হোটেল-রেস্তোরাঁ-ক্লাব যাতে মদ পরিবেশন করতে পারে তার জন্য মদ বিক্রি সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে উদ্যোগী হল পাঞ্জাব।

জাতীয় সড়কের পাঁচশো মিটারের মধ্যে অবস্থিত হোটেল-রেস্তোরাঁগুলিতে মদ পরিবেশন বন্ধ করার ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। পাঞ্জাব সরকারের বক্তব্য, এর ফলে বিশাল রাজস্ব ক্ষতির মুখে পড়েছে তাদের রাজ্য। হোটেল, রেস্তোরাঁ এমনকি বিবাহ অনুষ্ঠানের বাড়িগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে রাজ্যে বেকারি বেড়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেই নিজেদের আবগারি আইন সংশোধন করার সিদ্ধান্ত নিল পাঞ্জাব সরকার।

শুক্রবার পাঞ্জাব বিধানসভায় এই সংশোধনী পাশ হয়। এর ফলে হোটেল-রেস্তোরাঁ-ক্লাবে মদ পরিবেশনে কোনো বাধা থাকল না। তবে জাতীয় সড়কের পাঁচশো মিটারের মধ্যে কোনো ভাবেই কোনো মদের দোকান খোলা যাবে না বলে জানিয়েছে পাঞ্জাব সরকার।

পাঞ্জাবের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ব্রাহ্ম মোহিন্দ্রা বলেন, “১ এপ্রিল থেকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ কার্যকর হওয়ার পর আমরা তা পালন করেছি। জাতীয় সড়কের পাঁচশো মিটারের মধ্যে সমস্ত হোটেল, রেস্তোরাঁ এবং বিবাহ অনুষ্ঠানের হলগুলো বন্ধ করে দিয়েছি। কিন্তু এর ফলে বেকারি ক্রমশ বাড়ছিল। এই রাজ্যে এমনিতেই বেকারদের সংখ্যা বেশি, আরও বেকারি বাড়ুক সেটা আমরা চাইনি। তাই আবগারি সংক্রান্ত রাজ্যের যে আইন রয়েছে, সেটা আমরা সংশোধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে শুধু মদ বিক্রি করে এমন দোকান জাতীয় সড়কের ধারে থাকবে না।” ‘ক্লাব’, ‘হোটেল’ এবং ‘মদের দোকান’- এই শব্দগুলির মধ্যে পার্থক্য তৈরি করা হয়েছে আবগারি আইনে।

প্রসঙ্গত গত বছর ১৫ ডিসেম্বর, একটি নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল ১ এপ্রিল থেকে জাতীয় সড়কের পাঁচশো মিটারের মধ্যে কোনো মদের দোকান রাখা যাবে না। সড়ক দুর্ঘটনা কমানোর জন্যই এই নির্দেশ বলে জানায় শীর্ষ আদালত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন