খবর অনলাইন ডেস্ক: গত বৃহস্পতিবার হাথরসের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে গন্তব্যের অনেক আগেই আটকে দেওয়া হয়েছিল রাহুল গান্ধীকে। পুলিশের ধাক্কায় তিনি মাটিতে পড়ে যান। শনিবার ফের তিনি নির্যাতিতার বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন।

সিবিআই তদন্তের সুপারিশ যোগীর: নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে পরিজনদের সঙ্গে কথা বলে কংগ্রেস নেতৃত্ব এলাকা ছাড়ার কিছুক্ষণ পরেই সিবিআই তদন্ত নিয়ে যোগী সরকারের সুপারিশের কথা জানা যায়। বিস্তারিত দেখুন এখানে: হাথরসকাণ্ডে সিবিআই সুপারিশ

বিচার না পাওয়া পর্যন্ত লড়াই: নির্যাতিতার বাবা-মায়ের সঙ্গে মিনিট পঁচিশেক কথা বলেন রাহুল-প্রিয়ঙ্কা। ঘর থেকে বেরিয়ে তাঁরা জানান, “পরিজনরা জানিয়েছেন, দোষীদের কঠোর শাস্তি হোক। জেলাশাসকের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। ন্যায়বিচার না পাওয়া পর্যন্ত লড়াই চলবে”।

পরিজনদের সঙ্গে কথা রাহুলের: নির্যাতিতার বাড়িতে পৌঁছে পরিজনদের সঙ্গে কথা বললেন রাহুল গান্ধী। জানা যায়, জেলাশাসকের ভূমিকায় ক্ষোভ উগরে দেন পরিবারের সদস্যরা। রাহুলের কাছে তাঁরা জেলাশাসকের ভূমিকা নিয়ে নালিশ করেন।

বুলগড়ি পৌঁছালেন ৫ কংগ্রেস নেতা: রাহুল, প্রিয়ঙ্কা-সহ কংগ্রেসের পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল পৌঁছালো বুলগড়ি গ্রামে। অসংখ্য মানুষ কংগ্রেস নেতৃত্বকে স্বাগত জানানোর জন্য গ্রামের বাইরে জমায়েত হন। উপস্থিত বিশাল পুলিশ বাহিনী। সূত্রের খবর, রাহুল, প্রিয়ঙ্কা ছাড়াও প্রতিনিধি দলে রয়েছেন কংগ্রেস নেতা কেসি বেণুগোপাল, মুকুল বাসনিক এবং অধীররঞ্জন চৌধুরী।

অনুমতি মিলল প্রশাসনের: রাহুল এবং প্রিয়ঙ্কা-সহ পাঁচ জনকে নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দিল উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। হাথরসে নির্যাতিত বছর কুড়ির দলিত তরুণীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করবেন রাহুল,প্রিয়ঙ্কা এবং অন্য তিন কংগ্রেস নেতা।

১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগ: দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ সীমানায় জমায়েত কয়েকশো কংগ্রেস কর্মী এবং দলের নেতা রাহুল গান্ধী হাথরস যাত্রা নিয়ে নয়ডার এডিসিপি রণবিজয় সিং ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগ করলেন। তিনি বলেন, “তাঁরা ১৪৪ ধারা লঙ্ঘন করছেন। আমরা এখানে বেআইনী ভাবে জমায়েক নিয়ন্ত্রণ করতে মোতায়েন রয়েছি”। দিল্লি-নয়ডা ডিরেক্ট (ডিএনডি) ফ্লাইওভারে মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় দু’শো পুলিশকর্মী।

যোগ দিচ্ছেন কংগ্রেস সাংসদরা: বাসে করে হাথরসের উদ্দেশে রওনা দিলেন প্রায় ৩৫ জন কংগ্রেস সাংসদ। তাঁরা রাহুল-প্রিয়ঙ্কার সঙ্গে যোগ দেবেন। কংগ্রেস প্রতিনিধি দলে যোগ দিচ্ছেন সাংসদ শশী তারুর।

নয়ডায় ব্যারিকেড: এ দিন বিকেলে ফের হাথরসে নির্যাতিতার বাড়িতে রাহুল এবং প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরার যাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকা। একই সঙ্গে দিল্লি-নয়ডা করিডরেও ব্যারিকেড বসিয়ে দেওয়া হয়। (নীচের ছবিতে)

যাত্রা শুরু রাহুল-প্রিয়ঙ্কার: বেলা আড়াইটা নাগাদ গাড়িতে করে হাথরস রওনা দেন রাহুল। গাড়ি চালাচ্ছেন প্রিয়ঙ্কা। তাঁদের যে ফের আটকানো হতে পারে, সে বিষয়ে নিশ্চয়তা প্রকাশ করেন প্রিয়ঙ্কা।

নির্যাতিতার বাড়িতে পুলিশ-প্রশাসন: রাহুলের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস প্রতিনিধি দল পৌঁছানোর আগেই নির্যাতিতার বাড়িতে পৌঁছান উত্তরপ্রদেশের অতিরিক্ত মুখ্য স্বরাষ্ট্রসচিব অবনীশ অবস্থি এবং ডিজিপি এইচসি অবস্থি। (নীচের ছবিতে)

গত বৃহস্পতিবার হাথরসে নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে গ্রেফতার করা হয় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে। ভিডিও ফুটেজে ধরা পড়ে পুলিশের সঙ্গে রাহুলের উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় এবং পুলিশের ধাক্কায় তাঁর মাটিতে পড়ে যাওয়ার দৃশ্য।

আপডেট আসছে…

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন