rahul gandhi

ওয়েবডেস্ক: “কাশ্মীর সীমান্ত সমস্যা সমাধান করতে পারবেন এক মাত্র রাহুল গান্ধী। দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে রাহুল গান্ধীর মতো কোমল হৃদয়ের নেতার পক্ষেই দুই দেশের এই চিরকালীন সমস্যার সমাধান হতে পারে”। মন্তব্য করলেন বিজেপির প্রাক্তন পরামর্শদাতা সুধীন্দ্র কুলকার্নি। যিনি অতীতে লালকৃষ্ণ আডবাণীর ঘনিষ্ঠ হিসাবেই দলীয় মহলে পরিচিত ছিলেন।

মুম্বইয়ে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সুধীন্দ্র বলেন, “নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকার ব্যর্থ হয়েছে দুই প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান এবং চিনের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলতে”। ওই অনুষ্ঠানে তিনি গান্ধী পরিবারের তরুণ নেতা রাহুলের ভূয়সী প্রশংসাও করেন। বলেন, এক জন সত্যিকারের শুভচিন্তক রাজনীতিবিদ রাহুল।

পাকিস্তানের সঙ্গে বৈরিতার সম্পর্ক নিয়ে তিনি বলেন, “এ ভাবে এগোলে হবে না। পাকিস্তানের সঙ্গেও বেশ কিছু ক্ষেত্রে সমঝোতার প্রয়োজন রয়েছে। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে পারলে ভারত মহান হয়ে উঠবে”।

কুলকার্নি বলেন, “এখনকার নেতৃত্বের মধ্যে সমবেদনা জানানোর বৈশিষ্ট্য দেখা যায় না। কিন্তু রাহুল ব্যতিক্রমী। ওঁর মধ্যে সমবেদনা এবং ভালোবাসার অভাব নেই। ওঁর রাজনীতির ভিত্তিই ভালোবাসা”। পুরোনো অভিজ্ঞতা তুলে ধরে সুধীন্দ্র বলেন, “আমি তখন বিরোধী আসনে, প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী আফগানিস্থানে গিয়েছিলেন। দুই দেশের মধ্যে নতুন সম্পর্কের উত্থান হয়। একই রকম ভাবে রাহুল যদি প্রধানমন্ত্রী হয়ে পাকিস্তান, চিন এবং বাংলাদেশে যান, তা হলে বেশ কিছু দীর্ঘস্থায়ী সমস্যারও সমাধান সম্ভব”।

ওই অনুষ্ঠানে কুলকার্নি নিজেকে এক জন কংগ্রেসের শুভানুধ্যায়ী হিসাবে ব্যাখ্যা করেন। কংগ্রেস নেতা সলমন খুরশিদের একটি পুস্তক প্রকাশ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি বারবার টেনে নিয়ে আসেন আগামী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে রাহুলের গ্রহণযোগ্যতার প্রসঙ্গ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here