ওয়েবডেস্ক: “চৌকিদারই চোর।” রাফাল চুক্তি সংক্রান্ত একটি গোপন নথিকে হাতিয়ার করে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে চূড়ান্ত আক্রমণ শানালেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

উল্লেখ্য, ইংরেজি সংবাদপত্র ‘দ্য হিন্দু’তে রাফাল সংক্রান্ত একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। রাহুলের দাবি, এই নথি থেকেই প্রমাণিত হয়, সবাইকে অন্ধকারে রেখে এই চুক্তি সই করেছেন মোদী।

উল্লেখ্য, ২০১৫-এর ২৪ নভেম্বর ওই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয় প্রধানমন্ত্রীর দফতরকে দেওয়া প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের একটি গোপন চিঠি।

এই চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং মধ্যস্থতাকারী দলকে অন্ধকারে রেখে রাফাল যুদ্ধবিমানের দামের বিষয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে সমান্তরাল দরাদরি চালিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷

শুধু তা-ই নয়, ওই চিঠিতে প্রতিরক্ষা সচিব জি মোহন কুমার জানিয়েছিলেন, এই ধরনের পদক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর দফতরের করা উচিত নয়। কারণ, এতে সংশ্লিষ্ট দফতরকে অগ্রাহ্য করা হয়৷

সংবাদপত্রে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনকে হাতিয়ার করেই এ বার মোদীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন রাহুল গান্ধী৷ তাঁর প্রশ্ন, “কেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রককে অন্ধকারে রেখে ফ্রান্সের সঙ্গে সরাসরি দর কষাকষি করেছেন প্রধানমন্ত্রী?”

তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘বায়ুসেনার ৩০ হাজার কোটি টাকা লুট করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ সেই টাকা তিনি তুলে দিয়েছেন অনিল অম্বানির হাতে৷ রাফালের বিষয়ে মিথ্যা কথা বলেছেন বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণও৷ এখন বিষয়টি দিনের আলোর মতো পরিষ্কার৷’’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার লোকসভায় জবাবি ভাষণে কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের তীব্র আক্রমণ করেছিলেন মোদী। সরাসরি বলে দিয়েছিলেন, “চোর উলটে চৌকিদারকে বকে।”

কিন্তু শুক্রবারই রাহুলের পালটা আক্রমণ বুঝিয়ে দিল, রাফাল চুক্তি নিয়ে জল এখন অনেক দূর গড়াবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here