Rahul Gandhi

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রকৃত ‘বস’ যে আদতে কে, তা প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেল গত সোমবারের টানা ৯ ঘণ্টার বৈঠকে। উল্টো দিকে আরবিআইয়ের গভর্নর উর্জিত পটেলকে মানসিক দৃঢ়তাকে আর শক্ত করতে কংগ্রেস সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী যে বক্তব্য করেছিলেন, তা ধোঁয়ায় মিলিয়ে গেল।

উর্জিত-সহ ৪ আরবিআই কর্তা এবং কেন্দ্রের তরফে ১৩ প্রতিনিধিকে নিয়ে ওই বৈঠক শুরুর পর রাহুল টুইটারে লিখেছিলেন, তিনি বলেন, “আশা করি মিঃ পটেল এবং তাঁর দলের মেরুদণ্ড আছে এবং তাঁরা তাঁকে (মোদীকে) তাঁর জায়গাটা দেখিয়ে দেবেন”। স্পষ্টত আরবিআইয়ের গভর্নর উর্জিত পটেলকে উদ্দেশ্য করেই রাহুল এই মন্তব্য করেন। একই সঙ্গে তিনি দাবি করেন,  “মিঃ মোদী এবং তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগীদের যে চক্র আছে তারা যে সব প্রতিষ্ঠানে নাক গলাতে পারছে সেই প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করছে”।

আরও পড়ুন: কেন্দ্র রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঘাড়ে চাপতেই পতনের মুখে শেয়ার বাজার!

তবে বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসে আরবিআইয়ের প্রকাশ করা প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে তেমন কোনো শক্ত মেরুদণ্ডের হদিশ মেলেনি বলেই মনে করছে অর্থনৈতিক মহল। প্রশ্ন উঠেছিল উর্জিতের পদত্যাগের। তবে সেটা তখনই সম্ভব ছিল, যদি তিনি কেন্দ্রের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতকে বজায় রাখতেন। কিন্তু তেমন কোনো নমুনা ওই বৈঠকের সমাপ্তির পর প্রকাশ্যে আসেনি।

আরও পড়ুন: মাথায় চড়ে না বসলেও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঘাড়ে চেপে বসল মোদী সরকার!

আরবিআইয়ের তত্ত্বাবধানে প্যানেল গঠন, ব্যাঙ্ক এবং ব্যাঙ্ক নয় এমন আর্থিক সংস্থার ঋণনীতি নিয়ে পুনর্বিবেচনা এবং সর্বোপতি কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের ভাঁড়ারে মজুত উদ্বৃত্ত অর্থের বাজারীকরণ- সবেতেই প্রায় ৩-০ গোলে এগিয়ে গিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকার। তা হলে এর পরেও কি আর খোলসা করে বলার দরকার হয়- রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রকৃত ‘বস’ কে? অথবা মেরুদণ্ড-বিশারদ হিসাবে রাহুলের ন্যূনতম অভিজ্ঞতা রয়েছে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here