Mamata Banerjee and Rahul Gandhi

কলকাতা: দিল্লিতে কি ক্রমশ দূরত্ব কমছে কংগ্রেস ও তৃণমূলে। সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হওয়ার পর বিরোধী আসন থেকে এই দুই দলের সংসদরা একই বিষয়ে, একই ঢঙে শাসকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে মুখর হচ্ছেন। পাশাপাশি সংসদের বাইরেও উভয় দলের নেতৃত্বের কথায় বিজেপি বিরোধিতার প্রসঙ্গে খানিকটা একই কথার অনুরণন শোনা যাচ্ছে।

কয়েকদিন আগেই বাংলার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি তৃণমূল এবং বিজেপির সম্পর্ক প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছিলেন, ওদের তো রাজ্যে কুস্তি আর দিল্লিতে দোস্তি সম্পর্ক। এখন হয়তো সে কথাই ব্যুমেরাং হয়ে ফিরছে।

সংসদে গত পরশু দিন কংগ্রেস নেতা বীরাপ্পা মৌলি এবং তৃণমূলের সৌগত রায় ২জি দুর্নীতি নিয়ে যে ভাবে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই চালান, তা দেখে ভ্রু কুঁচকে যায় বিজেপি সাংসদদের। ২জি কাণ্ডে প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী এ রাজা এবং কানিমোঝি-সহ ১৭ জনের বেকসুর খালাস পাওয়ার পর কংগ্রেস এবং তৃণমূল যৌথ ভাবে দাবি করে, তৎকালীন কম্পট্রলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল বা ক্যাগ-কে ক্ষমা চাইতে হবে। এই দুই দলের দাবি এতটাই জোরাল হয়ে ওঠে যে ব্যাপক হট্টগোলের সৃষ্টি হয়।

এখানেই শেষ নয়, কংগ্রেসের সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি রাহুল গান্ধীও কিছুটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সুরে বিজেপির প্রতি আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছেন। তিনি আজ সকালে বিজেপির বিরুদ্ধে মারাত্মক একটি ট্যুইট করেন। লেখেন, বিজেপি আসলে একটি ফিল্ম ফ্যানচাইজি-ওদের সেই ছবির নাম ‘লাই হার্ড’।

রাজনৈতিক মহলের মতে, এমন মন্তব্যে আবার শোনা যাচ্ছে মমতার কথারই প্রতিধ্বনি। কারণ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সেই কবে নোটবন্দির সময় থেকে শুরু করে জিএসটি চালু পর্যন্ত কেন্দ্রের শাসক দলকে মিথ্যাবাদী আখ্যা দিতে ছাড়েন না।

রাহুলের এমন মন্তব্যে নিয়ে ততটা চাপ নিতে চাইছেন না বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির মুখপাত্র জি ভি এল নরসিমা রাও জানিয়েছেন, রাহুল খুবই নিম্নমানের রাজনীতি করেন। যে কোনো ভাবে ক্ষমতা দখলের জন্য সস্তা রাজনীতি করছেন।

কিন্তু পুরো বিষয়টির সমাপ্তি কি এখানেই? আগামী ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি গোপনে কী ছক কষে চলছে, তা নিয়ে কি বিজেপির কাছে কোনো খবর নেই?

রাজ্যের এক বিজেপি নেতা অবশ্য দাবি করছেন, নয়াদিল্লিতে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে আসা এক সাংসদ জাতীয় কংগ্রেসের এক প্রথম সারির নেতার সঙ্গে গোপনে দেখা করেছেন।

ওই বিজেপি নেতার কথা যদি সত্যি হয়, তা হলে তো তাঁকে অধীরবাবুর দোস্তি-কুস্তি তত্ত্বই ধার করতে হয়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here