rahul-gandhi

ওয়েবডেস্ক: কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর মুখ কর্নাটক কতটা রক্ষা করে এখনও কিছু বোঝা যাচ্ছে না। তবে রাহুল বিজেপিকে এক পা জমিও ছাড়তে রাজি নন। তাই পরবর্তী ‘টার্গেট’-এ নেমে পড়তে চলেছেন তিনি।

নির্বাচনের এখনও বাকি ছ’মাস। কিন্তু বৃহস্পতিবার থেকেই ছত্তীসগঢ়ে প্রচার শুরু করে দেবেন তিনি। সীতাপুর এবং গাউরেলা-পেন্দ্রায় দু’টি জনসভা করবেন রাহুল। পাশাপাশি রায়পুরে পঞ্চায়েতিরাজ সংক্রান্ত একটি সভাতেও যোগ দেবেন রাহুল। সেই সঙ্গে দুর্গ এবং বিলাসপুরে বাইক র‍্যালিতেও যোগ দেওয়ার কথা রাহুলের।

কর্নাটকে কংগ্রেসের প্রচারের সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন রাহুল। ২৪ দিনে ৪০টা র‍্যালি এবং ৬০টি জনসভায় যোগ দিয়েছেন তিনি। এ বার ছত্তীসগঢ়েও সেটাই তুলে ধরতে চাইছেন রাহুল।

এমনিতে ২০০৩ থেকে ছত্তীসগঢ়ে ক্ষমতার বাইরে কংগ্রেস। তবে তিন বারের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংহের বিরুদ্ধে এ বার কিছুটা প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা দেখা যাচ্ছে। মধ্যপ্রদেশ এবং রাজস্থানের মতো বিজেপির ছত্তীসগঢ় ধরে রাখাও বেশ কঠিন মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল। সেই হাওয়াকে কাজে লাগাতেই সম্ভবত এত তাড়াতাড়ি প্রচার শুরু করে দিচ্ছেন রাহুল। তবে দলের কাছে খারাপ খবর একটাই যে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস হেভিওয়েট অজিত যোগী দল ছেড়ে নতুন দলের সূচনা করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩-এর নির্বাচনে কংগ্রেস এবং বিজেপি ভোট ভাগের ফারাক ছিল মাত্র এক শতাংশ। এক দিকে বিজেপি যখন ৪১.০৪ শতাংশ মানুষের সমর্থন পেয়েছিল, তখন কংগ্রেস পেয়েছিল ৪০.২৯ শতাংশ মানুষের সমর্থন। কংগ্রেসের আশা রাজ্যে বিজেপি বিরোধিতার হাওয়া তুলে দিলে এই ভোট ভাগের উলটপুরাণ করে দেওয়া যাবে, আর সেটা হলেই তো কেল্লাফতে!

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন