temple thief delhi

জয়পুর: এক দিকে যখন সুপ্রিম কোর্টে ঝুলে রয়েছে কেরলের ‘লাভ জিহাদ’-এর ভুক্তভোগী হাদিয়ার ভাগ্য, তখনই দৃষ্টান্ত স্থাপন করল রাজস্থান হাইকোর্ট। ধর্মান্তরিত এক মহিলাকে তাঁর স্বামীর সঙ্গে থাকার অনুমতি দিল আদালত।

এখানে হাদিয়া’র ভাগ্য হয়েছিল পায়েল নামে এক তরুণীর। ফয়জ মোদী নামে এক মুসলিমের সঙ্গে বিয়ের পরে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে সে। নাম হয় আরিফা। কিন্তু এখানে হাদিয়ার বাবার মতো বাধা সৃষ্টি করে আরিফার দাদা। আদালতে ‘হেবিয়াস কর্পাস’ মামলা করে তিনি জানান, আরিফাকে অপহরণ করেছে ফয়জ। দু’জনের বিয়ের নথিও জাল বলে দাবি করেন তিনি। দাদার দাবি ছিল এই বিয়ে ‘লাভ জিহাদ’-এর পর্যায়ে পড়ে।

এই মামলার শুনানিতেই মঙ্গলবার এমন রায় দেয় আদালত। বিচারপতি জিকে ব্যাসের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন বলে, যে হেতু ওই তরুণী সাবালিকা, তাই নিজের পছন্দের মানুষকে বিয়ে করার সমস্ত অধিকার তার রয়েছে। আরিফাও আদালতে জানিয়ে দেয়, নিজের ইচ্ছেতেই ফয়জকে বিয়ে করেছে সে।

পুলিশ যে ভাবে কোনো প্রমাণ ছাড়াই ফয়জকে হেনস্থা করেছে, তার জন্য তাদের কটাক্ষও করেছে রাজস্থান হাইকোর্ট। পাশাপাশি আদালত এ দিন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, তাদের নির্দেশে যে ‘হোম’-এ গত এক সপ্তাহ আরিফা ছিল, সেই ‘হোম’ ছেড়ে যেন স্বামীর বাড়িতে যায় সে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here