rajinikanth

ওয়েবডেস্ক: একদা ভক্তদের জানিয়েছিলেন তিনি, “ঈশ্বর যদি ইচ্ছা করেন, তাহলে কাল থেকেই আমি ভারতের রাজনীতিতে যোগ দেবো”। সেই সময় কি তাহলে এসে গেল? এবার শুধু দক্ষিণী ছবির জগতই নয়, পাশাপাশি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসাবেও তামিলনাড়ু শাসন করতে চলেছেন রজনীকান্ত?

জল্পনা-কল্পনা অন্তত সেই রকমই ইঙ্গিত করছে। জানা গিয়েছে, ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভক্তদের সঙ্গে দেখা করার এক বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন তালাইভা। সেই মতো তামিলনাড়ুতে ইতিমধ্যেই সমবেত হতে শুরু করেছেন ভক্তরা। “ছয় দিন ব্যাপী এই সভার শেষ দিন, অর্থাৎ ৩১ ডিসেম্বর একটি ঘোষণা করতে চলেছেন রজনীকান্ত। ওই দিনই তিনি ভক্তদের স্পষ্ট করে তাঁর রাজনীতিতে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেবেন”, বলেছেন এই সভার উদ্যোক্তা তামিলনাড়ুর এক গান্ধীবাদী সমাজসেবী তামিলারুবি মানিয়ান।

মানিয়ানের বক্তব্য একেবারে অগ্রাহ্য করার মতো নয়। কেন না, চলতি বছরের অগস্টেও তিনি একটি সভার আয়োজন করেছিলেন তামিলনাড়ুতে রজনীকান্তকে কেন্দ্র করে। সেই সভার অধিবেশন থেকে জানা গিয়েছিল, সুশাসন, রাজ্যের নদীগুলির সংযুক্তিকরণ এবং দুর্নীতি রদের বিষয়টি ভাবাচ্ছে তালাইভাকে। এর থেকেই স্পষ্ট, মুখে কিছু না বললেও রাজনীতির বিষয়টি রয়েই গিয়েছে তাঁর চিন্তাভাবনায়।

তাহলে কি এবার সত্যিই রাজনীতিতে আসতে চলেছেন রজনীকান্ত? তাঁর মুখপাত্র এখনই এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে এটুকু জানিয়েছেন, এই বিষয়ে দীর্ঘ এক বৈঠক হয়েছে শুক্রবার রজনীকান্ত আর মানিয়ানের মধ্যে। আপাতত কর্তার নির্দেশে সেই বৈঠকের কোনো কথাই ফাঁস করতে চাইছেন না কেউ। যা জানাবার, তালাইভা নিজেই জানাবেন!

অবশ্য স্ত্রী লতা রজনীকান্ত এই বিষয়ে একেবারে চুপ করে থাকেননি। “দেখবেন, উনি রাজনীতিতে এলে দেশের চেহারাটাই বদলে যাবে, পরিবর্তন আসবে একের পর এক”, এটুকু বলেই থেমে গিয়েছেন তিনি।

এবার অতএব প্রতীক্ষার পালা! সম্ভাবনা বলছে, নিজের দল তৈরি করেই রাজনীতিতে নামবেন রজনীকান্ত। দেখা যাক! সে উত্তর তো বছর শেষের দিনেই মিলবে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here