ওয়েবডেস্ক: বলেছিলেন, রাজনীতিতে নামবেন কিনা, তা জানাবেন ৩১ ডিসেম্বর। জানিয়ে দিলেন কিংবদন্তি নায়ক। নিজের রাজনৈতিক দল গঠন করবেন রজনীকান্ত। ২০২১ সালে তামিলনাডুর বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের ২৩৪টি আসনেই প্রার্থী দেবে সেই দল। তবে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে তাঁর দল লড়বে কি না, সেটা ভোটের আগেই ঠিক করবেন নেতা।

কোনো ক্ষমতা বা রপদের জন্য তিনি রাজনীতিতে আসছেন না বলে এদিন জানিয়েছেন ৬৭ বছরের অভিনেতা। তাঁর দাবি, তেমন হলে ১৯৯৬ সালেই তিনি রাজনীতিতে আসতে পারতেন। “পুরো ব্যবস্থাটার খোলনলচে বদলানো দরকার। গণতন্ত্র সব দিকে থেকে দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে গেছে । আগেকার দিনে শাসকরা অন্য রাজ্য দেশে লুটপাট চালাত। এখন শাসকরা নিজেদের জনগণের ওপরই লুটপাট চালাচ্ছে,” এদিন চেন্নাইতে বলেন রজনী। পাশাপাশিতাঁর দাবি, তামিল রাজনীতির অবস্থা দেখে অন্য রাজ্যের মানুষ হাসাহাসি করে। তাতে তাঁর কষ্ট হয়।

নতুন দলের সাংগঠনিক দিক নিয়েও এদিন মুখ খুলেছেন রজনীকান্ত। বলেছেন, রাজ্যে জুড়ে ছড়িয়ে থাকা নিজের ফ্যান ক্লাবগুলিকে নতুন করে সংগঠিত করাই তাঁর লক্ষ্য। তিনি বলেন, তাঁর দল কোনো ধর্ম বা জাতভিত্তিক রাজনীতি করবে না।

রজনীকান্তের দলগঠন নিয়ে কংগ্রেস বা বিজেপি সরাসরি কোনো প্রতিক্রিয়া না দিলেও, বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণম স্বামী বলেছেন, ” রজনীকান্ত অশিক্ষিত। প্রচারের জন্যই তিনি এসব বলছেন”।

স্বামী যাই বলুন। ফিল্ম জগতের সঙ্গে তামিল রাজনীতির সম্পর্ক অতি প্রাচীন। করুণানিধি অসুস্থ হয়ে পড়া এবং জয়ললিতার মৃত্যুতে সেই জায়গাটা সম্পূর্ণ ফাঁকা হয়ে গেছিল। তারপর কমল হাসন ও রজনীকান্তের রাজনীতিতে আসার ঘোষণা সেই জায়গাটাই যে পূরণ করবে, তা তো কোনো সন্দেহ নেই। তবে সে রাজ্যের রাজনীতির নতুন সমীকরণ কী দাঁড়াবে, সেটা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু স্বামীর তড়িঘড়ি মন্তব্য থেকে মনে হচ্ছে, কজনীকান্ত বিজেপির হাত হয়তো ধরবেন না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here