rajnath singh

শ্রীনগর: কাশ্মীর সমস্যার সমাধানের সূত্র খুঁজে বার করার জন্য রাজ্যে পা রাখলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। শনিবার রাজধানী শ্রীনগর পৌঁছেই মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির সঙ্গে বৈঠক করেন রাজনাথ। এ ছাড়াও বিভিন্ন স্তরের ২৪টি প্রতিনিধিদলের সদস্যরা এ দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, “গুলিতে নয়, গালিতে নয়, কাশ্মীরিদের গলায় জড়ালে সমাধান হবে কাশ্মীর সমস্যা।” তার দিন কুড়ি পরেই রাজনাথের এই সফর বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। শুক্রবার একটি সাক্ষাৎকারে সংবাদসংস্থা পিটিআইকে রাজনাথ বলেছিলেন, “আমি খোলা মন নিয়ে কাশ্মীর যাচ্ছি। যে আমাদের সঙ্গে দেখা করতে আসবে আমি তার সঙ্গে দেখা করব। সমস্যার সমাধানসূত্র বের করেই ফিরব।” এঁদের মধ্যে ছিল ট্রাভেল এজেন্ট, হোটেল-রেস্তোরাঁ মালিক এবং শিকারা ও হাউসবোট অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিরা। এ ছাড়াও কাশ্মীরি পণ্ডিত, শিখ, শিয়া, গুজ্জর, বকারওয়াল এবং পাহাড়িদের প্রতিনিধিরাও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন এবং তাঁদের সমস্যার কথা বলেন।

আধিকারিকরা জানান, এ দিন সমাজের বিভিন্ন অংশের ২৪টি প্রতিনিধিদল রাজনাথ সিংহের সঙ্গে দেখা করেন।

সন্ধ্যায় রাজনাথ রাজ্যপাল এনএন ভোহরার সঙ্গেও বৈঠক করেন। দু’বছর আগে প্রধানমন্ত্রী কাশ্মীরের জন্য যে ৮০,০০০ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন। সেই প্যাকেজ অনুযায়ী কাজ কেমন এগোচ্ছে সে ব্যাপারে পর্যালোচনা করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এর পাশাপাশি অনন্তনাগে সিআরপিএফ এবং বিএসএফ জওয়ানদের সঙ্গেও দেখা করার কথা তাঁর। মেহবুবা, রাজ্য পুলিশ, সেনা, সিআরপিএফ এবং বিএসএফের আধিকারিকদের নিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থার পর্যালোচনাও করবেন।

এর পর শ্রীনগরের কলেজপড়ুয়াদের সঙ্গেও দেখা করার কথা তাঁর। কাশ্মীর সমস্যার ব্যাপারে পড়ুয়াদের মত জানবেন তিনি। সোমবার একটি সাংবাদিক সম্মেলন করে জম্মুর উদ্দেশে রওনা দেবেন রাজনাথ। সেখানে নাগরিক সমাজের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি।

প্রসঙ্গত কিছু দিন আগেই রাজনাথ দাবি করেছেন ২০২২-এর মধ্যে সন্ত্রাসবাদ, মাওবাদী সমস্যা এবং কাশ্মীর সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন