চণ্ডীগড়: ২০০২ সালে তাঁর দুই ভক্তকে ধর্ষণের অভিযোগে গত ২৮ আগস্ট ২০ বছরের জেল হয়েছে ডেরা সাচা সৌদা প্রধান বাবা গুরমিত রাম রহিমের। সাজা দিয়েছে পঞ্চকুলার সিবিআই-এর বিশেষ আদালত। জেলে তিনি খুব ভালো ব্যবহার করছেন, এমন তথ্যও দিয়েছে হরিয়ানা পুলিশ। যদিও এর মধ্যেই গ্রেফতারের ভয়ে গা-ঢাকা দিয়েছেন ডেরার দায়িত্বে থাকা সাধ্বী বিপাসনা এবং বাবার ‘পালিতা কন্যা’ হানিপ্রীত ইনসান। অন্যদিকে হানিপ্রীতের প্রাক্তন স্বামী সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছেন, হানিপ্রীত মোটেই বাবার মেয়ে নন। বরং তাঁর সঙ্গে বাবার নিয়মিত যৌন সম্পর্ক ছিল। বাবার গুম্ফায় বাবার সঙ্গে নিজের প্রাক্তন স্ত্রীকে নাকি নগ্ন অবস্থায় দেখেওছিলেন তিনি।

কিন্তু সে সব পুরোনো কথা। নতুন খবর হল, সিবিআই আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছেন রাম রহিম।

অন্যদিকে বাবার বিরুদ্ধে ২টি খুনের মামলাও চলছে সিবিআই আদালতে। সেই মামলার শেষ শুনানিটুকুই বাকি। সোমবার ওই মামলায় নতুন করে বয়ান দেওয়ার আবেদন জানান বাবার প্রাক্তন ড্রাইভার ও মামলার সাক্ষী সাক্ষী খাট্টা সিং। সেই আবেদন নাকচ করে দিয়েছে আদালত। এর আগে ২০০৭ সালে একবার সাক্ষী দিয়েছিলেন খাট্টা সিং। ২০১২ সালে সেই বয়ান বদল করে নতুন করে বয়ান দেন। তাঁর আইনজীবীর দাবি, সে বার প্রাণের ভয়ে বয়ান বদল করেছিলেন তিনি। এখন পরিস্থিতি বদলে যাওয়াতেই নতুন করে বয়ান দিতে চাইছেন তিনি।

রাম রহিমের বিরুদ্ধে চলা জোড়া খুনের মামলার শুনানি স্থগিত রেখে নতুন করে তদন্তের জন্য আদালতের কাছে গত ১৮ সেপ্টেম্বর আবেদন জানিয়েছেন ৭ জন আইনজীবী।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন