ধর্ষকদের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানানোর অধিকার বাতিল করা উচিত: রাষ্ট্রপতি

0
ramnath kovind
ফাইল ছবি

উদয়পুর: রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ শুক্রবার রাজস্থানের সিরোহিতে একটি অনুষ্ঠানে বলেন, মহিলাদের সুরক্ষা একটি গুরুতর বিষয়। পকসো (যৌন অপরাধ থেকে শিশুদের সুরক্ষা) আইনের আওতায় ধর্ষণের অপরাধীদের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানানোর ক্ষমতা দেওয়া উচিত নয়। এই আইনটি নিয়ে সংসদের পর্যালোচনা করা উচিত।

উল্লেখ্য, এই আইনের অধীনে শিশুদের যৌন হয়রানি, যৌন শোষণ ও পর্নোগ্রাফির মতো অপরাধ রোধে মহিলা ও শিশু উন্নয়ন মন্ত্রক পকসো আইন ২০১২ কার্যকর করা হয়েছিল।

এ দিন রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্র রাজস্থানের ডবোক বিমানবন্দরে রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত জানান। অনুষ্ঠানে তাঁকে মন্ত্রী বি ডি কল্লা, মেয়র জি এস ট্যঙ্ক, বিভাগীয় কমিশনার বিকাশ ভলে, ব্রিগেডিয়ার পীযূষ কুমার, আইজি বিনিতা ঠাকুর, জেলাশাসক আনন্দী, এসপি কৈলাশ বিষ্ণোই, বিধায়ক ধর্মনারায়ণ জোশী তাঁকে স্বাগত জানিয়েছেন। নিজের বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি নারীসুরক্ষার বিষয়টি নিয়ে কড়া সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, “পকসো আইনে ধর্ষণের অপরাধীদের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানানোর অনুমতিও দেওয়া উচিত নয়। এই বিষয়টি নিয়ে সংসদের পর্যালোচনা করা উচিত”।

নির্ভয়া ধর্ষণকাণ্ডের এক অপরাধীর প্রাণভিক্ষার আবেদনের উপর মতামত জানিয়ে এ দিনই একটি ফাইল রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এর আগেও একই আবেদন জানানো হয়েছিল রাষ্ট্রপতির কাছে। তার পরই নির্ভয়ার বাবা-মা রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে গিয়ে ওই আবেদন ফিরিয়ে দেওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সকাল থেকেই হায়দরাবাদে মহিলা পশু চিকিৎসককে ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগে চার অভিযুক্তের মৃত্যুর ঘটনায় উত্তাল গোটা দেশ। এমন পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রপতির পরামর্শে নতুন করে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.