বেঙ্গালুরু: ঘুরপথে হিন্দি ভাষা চাপিয়ে দেওয়ার বিরুদ্ধে কন্নড়পন্থী সংগঠন এবং শহরবাসীর একাংশের আন্দোলনের ফলে টনক নড়ল কর্নাটক সরকারের। বেঙ্গালুরু মেট্রো রেল কর্পোরেশনকে (বিএমআরসি) স্টেশনের সাইনবোর্ড থেকে হিন্দি সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া।

কেন্দ্রকে এর পরিপ্রেক্ষিতে একটি চিঠিতে সিদ্দারামাইয়া জানিয়েছেন, হিন্দি ভাষার ব্যবহারকে বেশি গুরুত্ব দিলে রাজ্যবাসীর ভাবাবেগে আঘাত লাগবে। তাঁর মতে, সাইনবোর্ডে ইংরেজি এবং কন্নড় ভাষা থাকাই সব থেকে ভালো।

বেঙ্গালুরুর বিভিন্ন মেট্রো স্টেশনের সাইনবোর্ডে হিন্দি ভাষার ব্যবহারের প্রতিবাদে কয়েক মাস ধরেই উত্তাল হয়ে উঠেছে বেঙ্গালুরু। কন্নড়পন্থী কয়েকটি সংগঠনের পাশাপাশি, শহরের অধিকাংশ মানুষই ক্ষুব্ধ। বেশ কয়েক বার কালো কালী দিয়ে হিন্দি লেখা মুছে দেওয়ার চেষ্টা করেন আন্দোলনকারীরা। কিন্তু তাতে বিশেষ পাত্তা দেয়নি বিএমআরসি। তাদের যুক্তি, কেন্দ্রের কোনো নির্দেশ ছাড়া কিছু করা যাবে না।

বিএমআরসিকে সিদ্দারামাইয়ার এই নির্দেশের কথা স্বীকার করেছেন মুখ্যমন্ত্রীর অফিসের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি এলকে আতিক। মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের ফলে সাময়িক ভাবে আন্দোলন থামলেও, সব সমস্যার সমাধান হয়ে গেল এখনই বলা যাবে না। কারণ এই মেট্রো প্রকল্পে একটা বিশাল পরিমাণের অর্থসাহায্য আসছে কেন্দ্র থেকে।

মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন কন্নড়পন্থী সংগঠনগুলি।

এ দিকে ভাষা নিয়ে শুরু হওয়া আন্দোলন কিছু কিছু ক্ষেত্রে জাতিবিদ্বেষের আকার নিচ্ছে। মেট্রোরেল প্রকল্পে কাজ করা সমস্ত অকন্নড় কর্মচারীকে সরাতে হবে, এমনই দাবি তুলেছে কন্নড় উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

মুখ্যমন্ত্রীকে একটি চিঠিতে কন্নড় উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এসজি সিদ্দারামাইয়া জানিয়েছেন, “কর্নাটকে অনেক ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ রয়েছে এবং সেখানে থেকে প্রতি বছর প্রচুর সংখ্যক কন্নড় পড়ুয়া ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও চাকরিতে অকন্নড়দের প্রাধান্য দেওয়া উচিত নয়। সরকারের উচিত আগে কন্নড়দের চাকরি নিশ্চিত করা।”

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন