Rafale

ওয়েবডেস্ক: ফ্রান্সের দসাল্ত অ্যাভিয়েশনের কাছ থেকে কেন মাত্র ৩৬টি এয়ারক্র্যাফ্ট কেনার চুক্তি করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী? সরকারি হিসাবেই যেখানে প্রয়োজন ১২৬টি ফাইটার জেটের, সেখানে কী এমন ঘটল যে ওই সংখ্যাকে ৩০ শতাংশের নীচে নামিয়ে নিয়ে আসা হল? রাফায়েল চুক্তি নিয়ে এমন প্রশ্নই তুলল জাতীয় কংগ্রেস।

কংগ্রেস মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী বলেন, ফ্রান্সের সঙ্গে প্রতিরক্ষা সামগ্রী চুক্তি নিয়ে অবিলম্বে তথ্য প্রকাশ করুক সরকার। গত শনিবার মথুরায় তিনি বলেন, সরকার বলছে ওই ভারতীয় প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় ওই ফাইটার জেটগুলির জরুরি প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। অখচ সরকার স্থির করেছে, দসাল্ত অ্যাভিয়েশন প্রথম পর্বের জোগান দেবে ২০১৯ সালে, বাদবাকি ফাইটার জেটগুলি সরকার হাতে পাবে আগামী ২০২২ সালে। তা হলে জরুরিকালীন ভিত্তিতে চুক্তি সাক্ষরের গুরুত্ব কোথায়?

প্রিয়াঙ্কা একই সঙ্গে বলেন, “কংগ্রেস যৌথ সংসদীয় কমিটি গঠনের দাবি তুলেছে। বিজেপি সরকার কেন সে বিষয়ে অনীহা দেখাচ্ছে? ওই চুক্তি যদি স্বচ্ছতার সঙ্গেই হয়ে থাকে, তা হলে তো তাদের সামনে আশঙ্কার কিছু নেই”।


আরও পড়ুন: ভিমা কোরেগাঁও মামলা: ৯০ দিন অতিক্রান্ত, চার্জশিট জমা করতে বাড়তি সময়!

চুক্তি প্রকাশ্যে নিয়ে আসা বা যৌথ সংসদীয় কমিটি গড়ার এই অনীহার কারণ হিসাবে প্রিয়াঙ্কা ইঙ্গিত করেছেন বহু সমালোচিত সেই একটি বিষয়কেই। তিনি মনে করেন, ভারতের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে বন্ধু ব্যবসায়ীদের স্বার্থ রক্ষার্থেই সরকার পিছু হঠছে।

যদিও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি দাবি করেছেন, কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকার যে দরে এই ফাইটার জেট কেনার উদ্যোগ নিয়েছিল, এনডিএ তার থেকে ২০ শতাংশ কম দরে কিনতে চলেছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন