খবরঅনলাইন ডেস্ক: সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত অনশন পালন করছেন লাক্ষাদ্বীপের (Lakshadweep) অধিবাসীরা। পর্যটন, গবাদি পশু এবং পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে দ্বীপের কর্তৃপক্ষ যে সব বিধিনিয়ম চালু করার প্রস্তাব করেছে, তার বিরুদ্ধে এই অনশন। দ্বীপবাসীদের বক্তব্য, ওই সব বিধিনিয়ম কার্যকর হলে দ্বীপের ঐতিহ্য ও অনন্য সংস্কৃতি ধ্বংস হয়ে যাবে।

‘সেভ লাক্ষাদ্বীপ ফোরাম’

ওই সব প্রস্তাবিত বিধিনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকে এক খাতে নিয়ে আসার জন্য তৈরি হয়েছে ‘সেভ লাক্ষাদ্বীপ ফোরাম’ (Save Lakshadweep Forum)। ফোরামের পক্ষ থেকে জানানো হয়, স্থানীয় বাসিন্দারা নিজেদের বাড়িতেই অনশন করছেন। অত্যাবশ্যক ছাড়া সমস্ত দোকানপাট সকাল ৬টা থেকে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে।

আরব সাগরের এই দ্বীপপুঞ্জে এ ধরনের প্রতিবাদ এই প্রথম। দ্বীপের প্রশাসক প্রফুল খোড়া পটেল (Praful Khoda Patel) সকলকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, প্রকাশ্য স্থানে ভিড় রুখতে অতিমারি আইন মোতাবেক কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফোরামের অন্যতম আহ্বায়ক ইউসিকে থঙ্গল বলেন, “এই প্রথম সব দ্বীপ একযোগে প্রতিবাদে শামিল হয়েছে। স্থানীয় ভাবাবেগের কথা শোনা হবে এবং তা মানা হবে বলে বার বার আমাদের আশ্বাস দেওয়া হলেও, প্রশাসক তাঁর একপেশে ও পশ্চাদমুখী সিদ্ধান্ত নিয়ে এগিয়ে চলেছেন।”

রেগুলেশনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ

৩৭টি ছোটো দ্বীপ নিয়ে আরব সাগরের এই দ্বীপপুঞ্জে বাস করেন ৭০ হাজার মানুষ। মাত্র ১১টি দ্বীপে মানুষের বসতি রয়েছে। তাঁরা ২০২১-এর লাক্ষাদ্বীপ ডেভেলপমেন্ট অথরিটি রেগুলেশনের (Lakshadweep Development Authority Regulation) বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।ওই রেগুলেশন লাক্ষাদ্বীপকে একটি বড়ো পর্যটক-গন্তব্য হিসাবে গড়ে তোলার কথা বলা হয়েছে।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, এর ফলে দ্বীপের চরিত্র ও অভিন্নতা ধ্বংস। কারণ দ্বীপপুঞ্জের ৯৭ শতাংশই আদিম অরণ্য এবং জনসংখ্যার ৯৫ শতাংশই সংরক্ষিত তফশিলি উপজাতি শ্রেণিভুক্ত।

আরও পড়ুন: বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২১: করোনা গেলেও জীবনের সঙ্গে মাস্ককে জড়িয়ে রাখবে দূষণ

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন