rohtang pass

ওয়েবডেস্ক: শীতে মানালি যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন? কিন্তু ভাবছেন এই যাত্রায় আর রোটাং পাসটা যাওয়া হল না। কোনো চিন্তা করবেন না, আপনার ভাগ্য যদি অত্যন্ত ভালো থাকে তা হলে বড়োদিন তো বটেই, বছরের শেষ দিনেও ঘুরে আসতে পারেন হিমাচল প্রদেশের এই বিখ্যাত টুরিস্ট স্পটটি থেকে।

তুষারপাত যদি না হয়, তা হলে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত গাড়ি চলাচল করবে রোটাং পাস দিয়ে। শুধু তা-ই নয়, আবহাওয়া ভালো থাকলে লেহ পর্যন্ত পুরো রাস্তাই খোলা থাকবে। প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন হিমাচলের লাহুল-স্পিতি অঞ্চলের মানুষজন। তবে রাস্তা খোলা রাখার জন্য প্রধান শর্ত হল আবহাওয়া। তুষারপাত যদি না হয়, একমাত্র তখনই এই গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে।

সাধারণত ১৫ নভেম্বরের পর থেকে রোটাং পাস সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। কারণ ১৩,০৫০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত এই রোটাং পাসে প্রচুর পরিমাণে তুষারপাত হয়। কিন্তু তুষারপাত তো সব সময় হয় না। শক্তিশালী পশ্চিমী ঝঞ্ঝার আক্রমণেই প্রবল তুষারপাত হয়। পশ্চিমী ঝঞ্ঝা না থাকলে, সাধারণত তুষারপাত হয় না, যদিও বা হয় তা খুবই হালকা।

উল্লেখ্য, এই মঙ্গলবারও হালকা তুষারপাত হয়েছে রোটাং-এ। কিন্তু তাতে গাড়ি চলাচলে কোনো অসুবিধা সৃষ্টি করেনি। তবে পর্যটকরা যাতে বিপদে না পড়েন, সেই জন্য মানালির দিকে মানালি এবং স্পিতির দিকে খোকসারে দু’টি রেসকিউ পোস্ট তৈরি করছে লাহুল-স্পিতি জেলা প্রশাসন। মানালির অটলবিহারী ইনস্টিটিটিউট অফ মাউন্টেনিয়ারিং এবং অ্যালায়েড স্পোর্টসের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এই পোস্ট তৈরি করা হবে।

তবে ১৫ নভেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত রোটাং পাসে যেতে হলে এই পোস্টগুলোয় পর্যটকদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে, এমনই জানিয়েছেন অটলবিহারী ইনস্টিটিটিউটের ডিরেক্টর ক্যাপ্টেন রণধীর সলহুরিয়া। লাহুল-স্পিতি জেলার ডেপুটি কমিশনার দেবা সিংহ নেগি বলেন, “আবহাওয়ার অবস্থা বিচার করে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here