Shashi Tharoor

বেঙ্গালুরু: কংগ্রেস নেতা শশী তারুরের নতুন মন্তব্য ফের বিতর্কের বন্যা। একটি সাহিত্য সম্মেলনে যোগ দিয়ে তিনি এক আরএসএস নেতার বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে এমন মন্তব্য করলেন, যা ঝড়ের গতিতে বয়ে চলল বিতর্কের অভিমুখে।

তিরুঅনন্তপুরমের একটি সাহিত্য উৎসবে যোগ দিয়ে কংগ্রেস সাংসদ বলেন, ”নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আরএসএস নেতা নরেন্দ্র মোদী ও আরএসএসের সম্পর্ক বোঝাতে একজন সাংবাদিকের কাছে দারুণ একটা রূপক ব্যবহার করেছিলেন । তিনি বলেছিলেন, শিবলিঙ্গের মাথায় বিছের মতো বসে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। যাকে হাত দিয়েও সরানো যাবে না, আবার চপ্পল দিয়েও মারা যাবে না”।

মাস কয়েক আগেই ৬২ বছরের এই কংগ্রেস সাংসদের ‘হিন্দু তালিবান’ মন্তব্য যথেষ্ট চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছিল। তবে দলীয় সমালোচনার আগেই তিনি ওই মন্তব্যকে ব্যক্তিগত হিসাবে স্বীকার করে নিয়ে বিতর্কে জল ঢালেন। সেই তিনি ফের বিছে প্রসঙ্গ টেনে এনে নিজের বিতর্কের মুকুটে নতুন পালক যোগ করলেন!

তারুর সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী মোদির উপর একটি বই প্রকাশ করেছেন। ওই বইয়ের বিষয়বস্তু নিয়েই ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, এ কথা ঠিত মোদীর “ব্যক্তিত্বের সংস্কৃতি” আরএসএস প্রতিষ্ঠানেরও অনেকের সঙ্গে তাঁকে একাসনে বসাতে পারেনি। কিন্তু মোদীর মোদীত্ব এবং হিন্দুত্বের যোগফলেই আরএসএসের সংগঠনে গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় উঠে আসতে সফল হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সাম্প্রতিক সিবিআই আধিকারিদের গৃহযুদ্ধে মোদীর হস্তক্ষেপ প্রসঙ্গও উঠে আসে তারুরের বক্তব্যে। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পুরনো কর্মীদেরও যে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য মোদীর নিযুক্ত নতুন কর্মীদের সম্মতির অপেক্ষায় থাকতে হয়। হয়তো সেই কারণেই সিবিআই আধিকারিকদের রদবদলের বিষয়টি জানতে পারেন না খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। শুধু তাই বা কেন, কোনো মন্ত্রকের নীতি বদলের সময় সেই মন্ত্রকের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীও অন্ধকারে থেকে যান। ঠিক যেমনটা রাফাল চুক্তি নিয়ে বিস্তারিত ঘটনা অনেক পরে জানতে পারেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী”!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here