karnataka mla assettss

ওয়েবডেস্ক: ভারতের আর্থিক অবস্থা বিশেষ ভালো নয়। ২০১৭-এর ফেব্রুয়ারির পরে এই প্রথম ডলারের সাপেক্ষে টাকার দাম ৬৭-তে নেমে গিয়েছে। অর্থাৎ টাকার মূল্যমানে ১ ডলার মানে ৬৭ টাকা। এখানেই শেষ নয়, বিশেষজ্ঞদের মতে টাকার দামে আরও পতন হতে পারে, এবং অচিরেই ডলারের সাপেক্ষে ৭০ ছুঁয়ে ফেলতে পারে টাকা।

এই বিষয়ে ভারতের বিভিন্ন ব্যাঙ্কগুলিকে নিয়ে একটি সমীক্ষা করেছিল ইকোনমিক্স টাইমস। সেখানে দেখা গিয়েছে যে ১৮টি ব্যাঙ্ক এই সমীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে তার মধ্যে দু’টি ছাড়া বাকি সবাই বলেছে ৭০-এ পৌঁছে যেতে পারে টাকা।

কেন কমছে টাকার দাম?

বিশ্ব বাজারে তেলের দামের বৃদ্ধি এর একটা কারণ। ২০১৪-এর নভেম্বরের পর এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে ব্যারেল প্রতি ৭০ ডলার ছুঁয়েছে তেলের দাম। ভারত মোট তেলের ৮০ শতাংশই বিদেশ থেকে আমদানি করে। অন্য দিকে মার্কিন ডলারের শক্তিশালী হওয়াও একটা কারণ।

কী নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে টাকার দামের এই পতন?

টাকার দাম পড়ে যাওয়া মানে আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়া। তেল-সহ এমন কিছু জিনিস রয়েছে যার আমদানি কখনও কমাতে পারবে না ভারত। এর ফলে তেলের দাম বাড়বে। তেলের দাম বাড়লে পরিবহনের খরচ বাড়বে, যার ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়বে। এর ফলে কম্পিউটার, স্মার্টফোন-সহ আরও অন্যান্য জিনিসের দাম বাড়বে।

টাকার দাম কমলে কার সুবিধা হবে?

যারা রফতানির সঙ্গে যুক্ত, তাদের সব থেকে বেশি সুবিধা হবে। কারণ রফতানিতে বেশি টাকা আয় হবে। সুবিধা হবে ওষুধ ব্যবসায়ী এবং তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাগুলির। কারণ মূলত বিদেশ থেকেই তাদের আয় আসে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here