Connect with us

দেশ

মিথ্যে অভিযোগ! কংগ্রেস বিধায়কের কাছ থেকে লিখিত ক্ষমাপ্রার্থনা এবং এক টাকা দাবি করলেন সচিন পায়লট

এত দিন চুপ কেন?

Published

on

ওয়েবডেস্ক: রাজস্থানের উপ-মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিপদ থেকে অপসারিত হয়েছেন সচিন পায়লট (Sachin Pilot)। কংগ্রেস বিধায়ক গিরিরাজ সিং অভিযোগ তুলেছিলেন, টাকার বিনিময়ে তাঁকে বিজেপিতে যোগদানের প্রস্তাব দিয়েছিলেন সচিন। অভিযোগটিকে মিথ্যে হিসেবে দাবি করে গিরিরাজের উদ্দেশে একটি নোটিশ পাঠিয়েছেন তিনি।

ওই নোটিশে সচিন তাঁর কাছ থেকে লিখিত ক্ষমাপ্রার্থনা এবং এক টাকা দাবি করেছেন। সাত দিনের মধ্যে এগুলি না করা হলে আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়ে রেখেছেন সচিন।

নোটিশটিতে বলা হয়েছে, গিরিরাজ যদি তা করতে অস্বীকার করেন, তা হলে সচিনের আইনজীবী তাঁর বিরুদ্ধে ফৌজদারি ও মানহানির মামলা দায়ের করবেন।

গিরিরাজের অভিযোগ

এর আগে গিরিরাজ অভিযোগ করেন, সচিন তাঁকে টাকার বিনিময়ে বিজেপিতে যোগদানের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। গেরুয়া শিবিরে যোগ দিলে তাঁকে ৩৫ কোটি টাকা দেওয়া হবে বলেও প্রস্তাব দেওয়া হয়। গিরিরাজ বলেন, সচিনের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন তিনি। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌতকে (Ashok Gehlot) সতর্ক করে দেন। রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার ষড়যন্ত্র চলছে বলে তিনি দাবি করেন।

গিরিরাজের কথায়, “সচিনজির সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। তিনি আমাকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেন। টাকার প্রস্তাবও দেওয়া হয়। আমি সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করি”।

গত ডিসেম্বর মাস থেকে এ বিষয়ে সচিনের সঙ্গে তাঁর দু’-তিনবার কথা হয়েছিল বলে দাবি করেন গিরিরাজ।

এত দিন চুপ কেন?

নোটিশে সচিন দাবি করেছেন, দলবদলের বিষয়ে তাঁর সঙ্গে গিরিরাজের একটি বারের জন্যেও কথা হয়নি। টাকার বিনিময়ে কোনো প্রস্তাবের ব্য়াপারেও কথা হয়নি। দীর্ঘ সাতমাস চুপ করে থাকার পর গিরিরাজের বিস্ফোরক অভিযোগ প্রসঙ্গে সচিনের জবাব, তাঁর সম্মানহানির উদ্দেশ্য নিয়েই মিথ্যা অভিযোগ তোলা হয়েছে।

সচিন এবং তাঁর অনুগামী ১৭ জন বিধায়কের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছেন রাজস্থান বিধানসভার অধ্যক্ষ সিপি জোশী। অধ্যক্ষ সচিন-সহ ওই ‘বিদ্রোহী’ বিধায়কদের বরখাস্তের নোটিশ পাঠায়। সেই নোটিশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েই আদালতের দ্বারস্থ হন তাঁরা। আগামী শুক্রবার পর্যন্ত পাইলটদের বিরুদ্ধে স্পিকার কোনো রকম কোনো ব্যবস্থা নিতে পারবে না বলে এ দিন সাফ জানিয়ে দেয় আদালত।

হাইকোর্ট টু সুপ্রিম কোর্ট

হাইকোর্টে বিষয়টিতে স্থগিতাদেশ জারি হওয়ার পর সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছেন অধ্যক্ষ। ওই মামলার শুনানি হতে পারে আগামী বৃহস্পতিবার।

অন্য দিকে সচিনও সুপ্রিম কোর্টে একটি ক্যাভিয়েট দাখিল করেছেন। এই বিষয়ে কোনো রায় দেওয়ার আগে ‘বিদ্রোহী’ বিধায়কদের শুনানির জন্য শীর্ষ আদালতকে অনুরোধ করেছেন তিনি।

দেশ

বৃদ্ধি দৈনিক সংক্রমণে, আশা জোগাচ্ছে ১৪টি রাজ্য

দৈনিক সংক্রামিতের সংখ্যা বেড়েছে আট হাজারের উপর।

Published

on

নমুনা পরীক্ষা। ফাইল ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: নমুনা পরীক্ষা বেশি হলেও ১৪টি রাজ্যে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার জাতীয় গড়ের তুলনায় কম বলে বুধবার জানাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য এবং পরিবার কল্যাণমন্ত্রক। তবে নমুনা পরীক্ষা ফের বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই সারা দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাতেও বৃদ্ধি ধরা পড়েছে।

ভারতের করোনা পরিস্থিতি

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) বুধবার প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৩৪৭জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৬ লক্ষ ৪৬ হাজার ১০ জন। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৭৫ হাজার ৮৩ জন। 

দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৩৭৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৭ হাজার ৪৮৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৮৯ হাজার ৭৪৬ জন। এর ফলে দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ৪৫ লক্ষ ৮৭ হাজার ৬১৩ জন। সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৮১.২৫ শতাংশ। গত মঙ্গলবার এই হার ছিল ৮০.৮৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ হাজার ৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯০ হাজার ২০। মৃত্যুহার আগের মতোই ১.৫৯ শতাংশে দাঁড়িয়ে রয়েছে।

নমুনা পরীক্ষা নিয়ে কী বলছে কেন্দ্র?

প্রয়োজনের তুলনায় কম নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে বিভিন্ন মহল থেকে। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব সন্দেহজনক কোভিড-১৯ আক্রান্তকে চিহ্নিত করাই সরকারের মূল লক্ষ্য।

বুধবার স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, ভারতে এখন প্রতি দিন ১২ লক্ষের বেশি নমুনা পরীক্ষা করার ক্ষমতা তৈরি হয়েছে। অন্য দিকে, এখনও পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা সাড়ে ছ’কোটি পার হয়ে গিয়েছে।

তবে আগের দিনের থেকে এ দিন নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা মাত্র ২০ হাজার বেড়ে ৯ লক্ষ ৫৩ হাজার হয়েছে।

১৪ রাজ্যে সংক্রমণের হার জাতীয় গড়ের তুলনায় কম

স্বাস্থ্যমন্ত্রক এ দিন জানায়, দেশের ১৪টি রাজ্য প্রতি ১০ লক্ষ নাগরিক পিছু নমুনা পরীক্ষার হার বাড়ালেও ‘পজিটিভিটি রেট’ বা কোভিড পজিটিভের শনাক্তকরণের সংখ্যা কম রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে মিজোরাম, মণিপুর, অরুণাচলপ্রদেশ, গুজরাত, সিকিম, ত্রিপুরা, জম্মু ও কাশ্মীর, ওড়িশা, পঞ্জাব এবং উত্তরাখণ্ডের মতো রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি।

প্রসঙ্গত, প্রতি দিন যে সংখ্যক মানুষের পরীক্ষা হচ্ছে, তার মধ্যে যত শতাংশের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসছে, সেটাকে বলা হচ্ছে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার।

কিন্তু প্রতি ১০ লক্ষ নাগরিক পিছু ভারতে কোভিড সংক্রমণের গড় সংখ্যা কিছুটা হলেও বেশি। বিশ্বে এই গড় যেখানে ৪০৭৮, সেখানে ভারতে ৪০৮২।

নমুনা পরীক্ষায় ওঠানামা

তবে গত সপ্তাহের বুধবারের পর থেকে ক্রমশ নেমে চলা নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা সপ্তাহের শেষ দিকে ফের বাড়লেও এ দিন তা আবার কমে গিয়েছে। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে নমুনা পরীক্ষা হ্রাস পাওয়ায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যাতেও অবনমন ধরা পড়ছে বলে একাংশের দাবি।

স্বাস্থ্য এবং পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক জানায়, সোমবার ২৪ ঘণ্টায় ৯ লক্ষ ৩৩ হাজার ১৮৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এ দিন তা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৫৩ হাজার। যদিও দৈনিক নমুনা পরীক্ষা এখনও ১০ লক্ষের নীচেই রয়েছে।

আরও পড়তে পারেন: বুধবারের পর থেকে দেশব্যাপী নমুনা পরীক্ষায় ক্রমশ অবনমন

Continue Reading

দেশ

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৮৩৩৪৭, সুস্থ ৮৯৭৪৬

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কোনো রকম লাগাম না টানা গেলেও লকডাউনের কড়াকড়ি অনেকটাই শিথিল করা হয়েছে। শুরু হয়েছে আনলক পর্ব। মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই এখন আক্রান্তের সংখ্যা আগের থেকে অনেকটাই বাড়বে। মঙ্গলবার, তথা ১ জুলাই থেকে নতুন করে কোভিড আপডেট শুরু করল খবরঅনলাইন। ৩০ জুন পর্যন্ত যাবতীয় আপডেট পড়ার জন্য ক্লিক করুন এখানে

=================================================================

২৩ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৩৪৭জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৬ লক্ষ ৪৬ হাজার ১০ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৩৭৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৭ হাজার ৪৮৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৮৯ হাজার ৭৪৬ জন। এর ফলে দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ৪৫ লক্ষ ৮৭ হাজার ৬১৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ হাজার ৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯০ হাজার ২০।

২২ সেপ্টেম্বর, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫ হাজার ৮৩ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৫ লক্ষ ৬২ হাজার ৬৬৩ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৯ লক্ষ ৭৫ হাজার ৮৬১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ২৭ হাজার ৫৮৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ১ হাজার ৪৬৪ জন। এর ফলে দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ৪৪ লক্ষ ৯৭ হাজার ৮৬৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ হাজার ৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮৮ হাজার ৯৩৫।

২১ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী সোমবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৪ লক্ষ ৮৭ হাজার ৫৮০। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৬ হাজার ৯৬১ জন। ভারতে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ লক্ষ ৩ হাজার ২৯৯। গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যাটি কমেছে ৭,৫২৫।

পর পর দিন দিন, নতুন আক্রান্তের সংখ্যাকে ছাপিয়ে গেল সুস্থতার সংখ্যা। এ দিন ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৯৩ হাজার ৩৫৬ জন। ভারতে এখনও পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৩ লক্ষ ৮৬ হাজার ৩৯৯ জন। ভারতে এই মুহূর্তে সুস্থহার হার বেড়ে হয়েছে ৭৯.৯৩ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ১১৩০ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮৭ হাজার ৮৮২। মৃত্যুহার কমে হয়েছে ১.৬০ শতাংশে রয়েছে।

২০ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) রবিবার যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ৯২ হাজার ৬০৫ জন নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৪ লক্ষ ৬১৯।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯৪ হাজার ৬১২ জন। এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হলেন ৪৩ লক্ষ ৩ হাজার ৪৩। সুস্থতার হার এখন ৭৯.৬৭ শতাংশ। সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১০ লক্ষ ১০ হাজার ৮২৪ জন।

অন্য দিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ১৩৩ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮৬ হাজার ৭৫২। মৃত্যুহার সামান্য কমে হয়েছে ১.৬০ শতাংশ।

১৯ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী শনিবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৩ লক্ষ ৮ হাজার ১৫। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩ হাজার ৩৩৭ জন। ভারতে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৯৬৪। গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যাটি কমেছে ৩,৭৯০।

রেকর্ড তৈরি করে, ভারতে দৈনিক সুস্থতার সংখ্যাটিও এক লক্ষের দিকে এগোচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৯৫ হাজারের বেশি মানুষ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মোট কোভিডমুক্তির সংখ্যা ৯৫ হাজার ৮৮০ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৪২ লক্ষ ৮৪ হাজার ৩১ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৯.২৮ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ১২৪৭ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮৫ হাজার ৬১৯। মৃত্যুহারে অবশ্য কোনো বদল হয়নি। সেটি ১.৬১ শতাংশে রয়েছে।

১৮ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী শুক্রবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫২ লক্ষ ১৪ হাজার ৩৭৭। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৬ হাজার ৪২৪ জন।

দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটি এক লক্ষের দিকে এগোলেও দৈনিক সুস্থ হওয়ার সংখ্যাটিও এগোচ্ছে ৯০ হাজারের দিকে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৭ হাজারেরও বেশি মানুষ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মোট কোভিডমুক্তির সংখ্যা ৮৭ হাজার ৪৭২ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৪১ লক্ষ ১২ হাজার ৫৫১ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৮.৮৬ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ১১৩২ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮৩ হাজার ১৯৮। মৃত্যুহারে অবশ্য কোনো বদল হয়নি। সেটি ১.৬১ শতাংশে রয়েছে।

১৭ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫১ লক্ষ ১৮ হাজার ২৫৪। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭ হাজার ৮৯৪ জন। সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও দেশে বর্তমানে ১০ লক্ষের গণ্ডি অতিক্রম করেছে।

পর পর দু’দিন দেশে সুস্থ হলেন ৮২ হাজারের বেশি মানুষ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৮২ হাজার ৭১৯ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৪০ লক্ষ ২৫ হাজার ৮৯ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৮.৬৪ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ১১৩২ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮৩ হাজার ১৯৮। মৃত্যুহারে অবশ্য কোনো বদল হয়নি। সেটি ১.৬২ শতাংশে রয়েছে।

১৬ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫০ লক্ষ ২০ হাজার ৩৫৯। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯০ হাজার ১২৩ জন। ৫,৮৭২ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ৯৫ হাজার ৯৩৩ জন।

দৈনিক সুস্থতার সংখ্যায় রেকর্ড তৈরি হল বুধবার। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৮২ হাজার ৯৬১ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৩৯ লক্ষ ৪২ হাজার ৩৬০ জন। ভারতে সুস্থতার হার মঙ্গলবারের থেকে আরও কিছুটা বেড়ে ৭৮.৫২ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ১২৯০ জন। সাম্প্রতিককালের মধ্যে এটা মৃত্যুর সংখ্যায় রেকর্ড। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮২ হাজার ৬৬। মৃত্যুহারে অবশ্য কোনো বদল হয়নি। সেটি ১.৬৩ শতাংশে রয়েছে।

১৫ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৯ লক্ষ ৩০ হাজার ২৩৬। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৮০৯ জন। ৩,৪৬৩ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ৯০ হাজার ৬১ জন।

দেশে দৈনিক সুস্থতার সংখ্যাটি ফের ৮০ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৯ হাজার ২৯২ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৩৮ লক্ষ ৫৯ হাজার ৩৯৯ জন। ভারতে সুস্থতার হার রবিবারের থেকে আরও কিছুটা বেড়ে ৭৮.২৮ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যাটি তাদের আগের দিনের থেকে অনেকটাই কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১০৫৪ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৮০ হাজার ৭৭৬। 

১৪ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৮ লক্ষ ৪৬ হাজার ৪২৭। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯২ হাজার ৭১ জন। ১৩,৪২৩ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ৮৬ হাজার ৫৯৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৭ হাজার ৫১২ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৩৭ লক্ষ ৮০ হাজার ১০৭ জন। ভারতে সুস্থতার হার রবিবারের থেকে আরও কিছুটা বেড়ে ৭৭.৯৯ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১১৩৬ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৯ হাজার ৭২২। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। গত ২৪ ঘণ্টায় সেটা আরও কমে বর্তমানে ১.৬৪ শতাংশ হয়েছে।

১৩ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) রবিবার যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ৯৪ হাজার ৩৭২ জন নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৭ লক্ষ ৫৪ হাজার ৩৫৬।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৮ হাজার ৩৯৯ জন। এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হলেন ৩৭ লক্ষ ২ হাজার ৫৯৫। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৭৭.৮৭ শতাংশে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ১১৪ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছেন ৭৮ হাজার ৫৮৬। মৃত্যুহার কমে এসেছে ১.৬৫ শতাংশে।

১২ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৬ লক্ষ ৫৯ হাজার ৯৮৫। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭ হাজার ৫৭১ জন। ২৪,৪৬২ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ৫৮ হাজার ৩১৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৮১ হাজার ৫৩৩ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৩৬ লক্ষ ২৪ হাজার ১৯৬ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৭.৭৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১২০২ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৭ হাজার ৪৭২। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। গত ২৪ ঘণ্টায় সেটা আরও কমে বর্তমানে ১.৬৬ শতাংশ হয়েছে।

১১ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৫ লক্ষ ৬২ হাজার ৪১২। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৬ হাজার ৫৪৯ জন। ২৪,৪৬২ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ৪৩ হাজার ৪৮০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৮৮০ জন। এর ফলে ভারতে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ৩৫ লক্ষ ৪২ হাজার ৬৬৩ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৭.৬৪ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১২০৯ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৬ হাজার ২৭১। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। গত ২৪ ঘণ্টায় সেটা আরও কমে বর্তমানে ১.৬৭ শতাংশ হয়েছে।

১০ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৪ লক্ষ ৬৫ হাজার ৮৬৩। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৫ হাজার ৭৩৫ জন। ২১,৬২৪ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৯ লক্ষ ১৯ হাজার ১৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭২ হাজার ৩৯৩ জন। বুধবার দৈনিক রেকর্ড হওয়ার পর বৃহস্পতিবার সুস্থতার সংখ্যা কিছুটা কমেছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৪ লক্ষ ৭১ হাজার ৭৮৩ জন। ভারতে সুস্থতার হার বর্তমানে ৭৭.৭৪ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১১৭২ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৫ হাজার ৬২। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। বর্তমানে সেটি ১.৬৮ শতাংশে রয়েছে।

৯ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৩ লক্ষ ৭০ হাজার ১২৮। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯ হাজার ৭০৬ জন। ১৩,৬৯৭ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৮ লক্ষ ৯৭ হাজার ৩৯৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৪ হাজার ৮৯৪ জন। এক দিনে এত সংখ্যক মানুষের সুস্থ হয়ে ওঠার ঘটনা, এর আগে ঘটেনি।

এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৩ লক্ষ ৯৮ হাজার ৮৪৪ জন। ভারতে সুস্থতার হার বেশ অনেকটাই বেড়ে ৭৮.৪৯ শতাংশ হয়েছে।

তবে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যাটি কিছুটা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১১১৫ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৩ হাজার ৮৯০। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। বর্তমানে সেটি ১.৭০ শতাংশে রয়েছে।

৮ সেপ্টেম্বর, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪২ লক্ষ ৮০ হাজার ৪২২। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫ হাজার ৮০৯ জন। ১৪,২৫৬ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৮ লক্ষ ৮৩ হাজার ৬৯৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৩ হাজার ৫২১ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৩ লক্ষ ২৩ হাজার ৯৫০ জন। ভারতে সুস্থতার হার বেশ অনেকটাই বেড়ে ৭৭.৬৭ শতাংশ হয়েছে।

তবে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যাটি সাম্প্রতিককালের মধ্যে একটি রেকর্ড তৈরি করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ১১৩৩ জন। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭২ হাজার ৭৭৫। তবে স্বস্তি দিচ্ছে মৃত্যুর হার। বর্তমানে সেটি ১.৭০ শতাংশে রয়েছে।

৭ সেপ্টেম্বর, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) রবিবার যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ৯০ হাজার ৮০২ জন নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪২ লক্ষ ৪ হাজার ৬১৩।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৯ হাজার ৫৬৪ জন। এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হলেন ৩২ লক্ষ ৫০ হাজার ৪২৯। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৭৭.৩১ শতাংশ।

তবে মৃত্যুর হার কমছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০১৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছেন ৭১ হাজার ৬৪২। মৃত্যুহার কিন্তু কমে এসেছে ১.৭০ শতাংশে।

৬ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৯০ হাজার ৬৩২ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪১ লক্ষ ১৩ হাজার ৮১১ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৮ লক্ষ ৬২ হাজার ৩২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে সুস্থতার সংখ্যাও। দেশে এক দিনে সুস্থ হয়ে উঠলেন ৭৩ হাজার ৬৪২ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ৩১ লক্ষ ৮০ হাজার ৮৬৫ জন।

বর্তমানে ভারতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭০ হাজার ৬২৬। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬৫ জনের। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৭.৩৪ শতাংশ। মৃত্যুহার কমে এসেছে শতাংশে ১.৭১ শতাংশে।

৫ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ৯টা

শনিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী, ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪০ লক্ষ ২৩ হাজার ১৭৯। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৮ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩৯৫। সুস্থ হয়েছেন ৩১ লক্ষ ৭ হাজার ২২৩। মৃত্যু হয়েছে ৬৯ হাজার ৫৬১ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৮৬ হাজার ৪৩২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৭২ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৮৯ জনের।

৪ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৩৪১ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৯ লক্ষ ৩৬ হাজার ৩৪১ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৮ লক্ষ ৩১ হাজার ১২৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১৫ হাজার ৫৮৬।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্তি ঘটেছে ৬৬ হাজার ৬৬৫ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ৩০ লক্ষ ৩৭ হাজার ১৫১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১,০৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৮ হাজার ৪৭২।

৩ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী বুধবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৮ লক্ষ ৫৩ হাজার ৪০৬। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৮৮৩ জন। ১৪,২৫৬ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৮ লক্ষ ১৫ হাজার ৫৩৮ জন। নতুন আক্রান্তের সংখ্যায় যেমন রেকর্ড হল, তেমন রেকর্ড হল সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যায়। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৬৮ হাজার ৫৮৪ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৯ লক্ষ ৭০ হাজার ৪৯২ জন।মৃত্যুর সংখ্যা এখন প্রায় রোজই এক হাজার পেরিয়ে যাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টাতেও তাই হয়েছে। ভারত এ দিন কোভিডে মৃত্যু হয়েছে ১,০৪৩ জনের। ফলে মৃতের সংখ্যা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৭ হাজার ৩৭৬।

২ সেপ্টেম্বর, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী বুধবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৭ লক্ষ ৬৯ হাজার ৫২৩। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮ হাজার ৩৫৭ জন। ১৫,২৮৬ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৮ লক্ষ ১ হাজার ২৮২ জন। মঙ্গলবারের থেকে বুধবার, ভারতে সুস্থ হওয়ার সংখ্যাটা কিছুটা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৬২ হাজার ২৬ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৯ লক্ষ ১ হাজার ৯০৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে কোভিডে মৃত্যু হয়েছে ১০৪৫ জনের। এর ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৬ হাজার ৩৩৩।

১ সেপ্টেম্বর, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী সোমবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬ লক্ষ ৯১ হাজার ১৬৬। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯ হাজার ৯২১ জন। ৪,০২১ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৭ লক্ষ ৮৫ হাজার ৯৯৬। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৬৫ হাজার ৮১ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৮ লক্ষ ৩৯ হাজার ৮৮২ জন। প্রায় এক সপ্তাহে সর্বনিম্ন মৃত্যুর ঘটনা ঘটল ভারতে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৮১৯ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৫ হাজার ২৮৮। 

৩১ আগস্ট, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী সোমবার ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬ লক্ষ ২১ হাজার ২৪৫। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮ হাজার ৫১২ জন। ১৬,৬৭৩ বেড়ে সক্রিয় রোগী বর্তমানে রয়েছেন ৭ লক্ষ ৮১ হাজার ৯৭৫। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৬০ হাজার ৮৬৮ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৭ লক্ষ ৭৪ হাজার ৮০১ জন। স্বস্তির ব্যাপার হল যে দেশে কোভিড-মৃত্যুতে বেশ কিছুটা লাগাম পরানো গিয়েছে। রবিবারের থেকে সোমবার মৃতের সংখ্যা একটু বাড়লেও, তা হাজার পেরোয়নি। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৯৭১ জন। 

৩০ আগস্ট, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮,৭৬১ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৫,৪২,৭৩৩ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭,৬৫,৩০২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে সুস্থতার সংখ্যাও। দেশে এক দিনে সুস্থ হয়ে উঠলেন ৬৪,৯৩৫ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ২৭,১৩,৯৩৩ জন।

বর্তমানে ভারতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৩,৪৯৮। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৯৪৮ জনের। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৬.৬০ শতাংশ। মৃত্যুহার কমে এসেছে শতাংশে ১.৭৯ শতাংশে।

২৯ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬,৪৭২ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪ লক্ষ ৬০ হাজার ২ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ৫২ হাজার ৪২৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১০,৪০১।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৬৫,০৫০ জন। এর ফলে দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ২৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৯৯৮ জন। সুস্থতার হার বৃহস্পতিবারের তুলনায় কিছুটা বেড়ে ৭৬.৫৬ শতাংশ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১,০২১ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে, যা গত দু’ দিনের তুলনায় কিছুটা কম। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬২,৫৫০। এর ফলে দেশে কোভিড-মৃত্যুর হার আরও কিছুটা কমে ১.৮০ শতাংশ হয়েছে।

২৮ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭,২৬৬ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৩ লক্ষ ৮৩ হাজার ৫৩০ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ৪২ হাজার ২৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১৬,০৩২।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্তি ঘটেছে ৬০১৭৭ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ২৫ লক্ষ ৮৩ হাজার ৯৪৮ জন। সুস্থতার হার বৃহস্পতিবারের তুলনায় কিছুটা বেড়ে ৭৬.৩৬ শতাংশ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১,০৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬১,৫২৯।

২৭ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫,৭৬০ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৩ লক্ষ ৬ হাজার ২৬৪ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ২৫ হাজার ৯৯১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১৮,৭২৪।

গত কয়েক দিনের তুলনায় দেশে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা কিছুটা কমল। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৬,০১৩ জন সুস্থ হয়েছেন। তবে বৃহস্পতিবার করোনামুক্ত হলেন ২৫ লক্ষ মানুষ। দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ২৫ লক্ষ ২৩ হাজার ৭৭১ জন। 

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১,০২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা ৬০ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে। বর্তমানে দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৬০,৪৭২ জনের। তবে দেশে মৃত্যুর হার বর্তমানে আরও কিছুটা কমেছে। বৃহস্পতিবার সেটা ১.৮২ শতাংশ হয়েছে। বুধবার এটা ছিল ১.৮৪ শতাংশ।

২৬ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭,১৫১ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩২ লক্ষ ৩০ হাজার ৪৭৪ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ৭ হাজার ২৬৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ২,৯১৯।

তবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৩ হাজারের বেশি মানুষ সুস্থ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার কোভিডমুক্তের সংখ্যাটি ২৫ লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে যেতে পারে। দেশে বর্তমানে সুস্থ হয়েছেন ২৪ লক্ষ ৬৭ হাজার ৭৫৮ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৬.৩৮ শতাংশ। 

তবে গত কয়েকদিনের তুলনায় এ দিন মৃত্যুর সংখ্যা তুলনামূলক ভাবে বেশিই রেকর্ড করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১,০৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৯,৪৪৯ জনের। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার রয়েছে ১.৮৪ শতাংশে।

২৫ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬০,৯৭৫ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৩২৩ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ০৪ হাজার ৩৪৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী কমেছে ৬৪২৩।

কোভিডমুক্তির সংখ্যাটি আরও একটি বিশেষ মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলছে। মঙ্গলবার দেশে ২৪ লক্ষের করোনামুক্তি ঘটল। এর মধ্যে রেকর্ড তৈরি করে এক দিনেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬৬,৫৫০ জন। দেশে বর্তমানে সুস্থ হলেন ২৪ লক্ষ ০৪ হাজার ৫৮৫ জন। 

গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৮,৩৯০ জনের। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার রয়েছে ১.৮৪ শতাংশে।

২৪ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১,৪০৮ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩১ লক্ষ ৬ হাজার ৩৪৮ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৭ লক্ষ ১০ হাজার ৭৭১ জন।

কোভিডমুক্তির সংখ্যাটি অবশ্য এক দিন পর পর বিশেষ মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলছে। সোমবার দেশে ২৩ লক্ষের করোনামুক্তি ঘটল। দেশে বর্তমানে সুস্থ হলেন ২৩ লক্ষ ৩৮ হাজার ৩৫ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৫.২৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। গত কয়েকটা দিনের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যাটা কিন্তু অনেকটাই কমেছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৭,৫৪২ জনের। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার রয়েছে ১.৮৫ শতাংশে।

২৩ আগস্ট, সকাল সাড়ে ৯টা

রবিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩০ লক্ষ ৪৪ হাজার ৯৪০। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৭ লক্ষ ৭ হাজার ৬৬৮। সুস্থ হয়েছেন ২২ লক্ষ ৮০ হাজার ৫৬৬। মৃত্যু হয়েছে ৫৬ হাজার ৭০৬ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯ হাজার ২৩৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৭ হাজার ৯৮৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯১২ জনের।

২২ আগস্ট সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯,৮৭৮ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯ লক্ষ ৭৫ হাজার ৭০২ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬ লক্ষ ৯৭ হাজার ৩৩০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৫,৩০২। কোভিডমুক্তির সংখ্যায় রেকর্ড তৈরি হল শুক্রবার। এক দিনেই সুস্থ হলেন ৬৩ হাজার ৬৩১ জন। এর ফলে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ২২ লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে গেল। দেশে বর্তমানে সুস্থ হলেন ২২ লক্ষ ২২ হাজার ৫৭৭ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৪.৬৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। গত কয়েকটা দিনের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যাটা কিন্তু অনেকটাই কমেছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৫,৭৯৪ জনের। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার রয়েছে ১.৮৭ শতাংশে।

২১ আগস্ট, সকাল সাড়ে দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৮,৮৯৮ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯ লক্ষ ৫ হাজার ৮২৪ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬ লক্ষ ৯২ হাজার ২৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৫,৬৩৩।

কোভিডমুক্তির সংখ্যায় রেকর্ড তৈরি হল শুক্রবার। এক দিনেই সুস্থ হলেন ৬২ হাজার ২৮২ জন। এর ফলে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ২১ লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে গেল।

দেশে বর্তমানে সুস্থ হলেন ২১ লক্ষ ৫৮ হাজার ৯৪৬ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৪.৩০ শতাংশ। ত ২৪ ঘণ্টায় ৯৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডের কারণে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৪,৮৪৯ জনের। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার রয়েছে ১.৮৯ শতাংশে।

২০ আগস্ট, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯,৬৫২ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৮ লক্ষ ৩৬ হাজার ৯২৬ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬ লক্ষ ৮৬ হাজার ৯৩৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৯৮৮১। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে কোভিড-মুক্তি ঘটেছে ৫৮ হাজার ৭৯৪ জনের। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ২০ লক্ষ ৯৬ হাজার ৬৬৪ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৩.৯০ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। অর্থাৎ বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার মৃতের সংখ্যা বেশ কিছুটা কমেছে ভারতে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত কোভিডে মোট মারা গেলেন ৫৩ হাজার ৮৬৬ জন। মৃত্যুহার কিছুটা কমে ১.৮৯ শতাংশে এসে ঠেকেছে।

১৯ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪,৫৩১ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ লক্ষ ৬৭ হাজার ২৭৪ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬ লক্ষ ৭৬ হাজার ৫১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ৩৩৪৮।

এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ২০ লক্ষ ৩৭ হাজার ৮৭০ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৩.৬৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে। এক দিনে মৃত্যুর নিরিখে তুলনামূলক ভাবে এই সংখ্যাটা বেশিই। এর ফলে ভারতে এখন মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫২,৮৮৯। এর ফলে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যুহারে কোনো বদল নেই। সেটি রয়েছে ১.৯১ শতাংশে।

১৮ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫,০৭৯ জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ লক্ষ ২ হাজার ৭৪৩ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ১৬৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যাকে ছাপিয়ে গিয়েছে সুস্থতা। দেশে এক দিনে সুস্থ হয়ে উঠলেন ৫৭,৯৩৭ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ১৯ লক্ষ ৭৭ হাজার ৭৭৯ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭৩.১৭ শতাংশ। ভারতে ৮৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫১,৭৯৭। ভারতে বর্তমানে মৃত্যুহার কমে এসেছে ১.৯১ শতাংশে।

১৭ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭,৯৮২জন। এর ফলে দেশে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৬,৪৭,৬৬৪ জন। দেশে বর্তমানে সক্রিয় রোগী ৬,৭৬,৯০০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে সুস্থতার সংখ্যাও। দেশে এক দিনে সুস্থ হয়ে উঠলেন ৫৭,৫৮৪ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হলেন ১৯ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪২ জন। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে বেড়ে হয়েছে ৭২.৫১ শতাংশ। বর্তমানে ভারতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫০,৯২১। মৃত্যুহার কমে এসেছে শতাংশে ১.৯২ শতাংশে।

১৬ আগস্ট, সকাল সাড়ে দশটা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ লক্ষ ৮৯ হাজার ৬৮২।

শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৩ হাজার ৪৯০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯৪৪ জন করোনা আক্রান্তের। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ৪৯ হাজার ৯৮০।

বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬ লক্ষ ৭৭ হাজার ৪৪৪ জন, সুস্থ হয়েছেন ১৮ লক্ষ ৬২ হাজার ২৫৮ জন। শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৩ হাজার ৩২২ জন।

১৫ আগস্ট, সকাল দশটা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্যে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ লক্ষ ২৬ হাজার ১৯৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ লক্ষ ৬৮ হাজার ২২০। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৮ লক্ষ ৮ হাজার ৯৩৬ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৯,০৩৬।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৫,০০২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৭,৩৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯৯৬ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৭১.৬০ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ১.৯৪ শতাংশে।

১৪ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৪ লক্ষ ৬১ হাজার ১৯৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ লক্ষ ৬১ হাজার ৫৯৫। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লক্ষ ৫১ হাজার ৫৫৫ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৮,০৪০।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪,৫৫৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৫,৫৭৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ১০০৭ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৭১.১৬ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ১.৯৫ শতাংশে।

১৩ আগস্ট, সকাল সাড়ে দশটা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৩ লক্ষ ৯৬ হাজার ৬৩৮। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ লক্ষ ৫৩ হাজার ৬২২। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ লক্ষ ৯৫ হাজার ৯৮২ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৭,০৩৩।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৬,৯৯৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৬,৩৮৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯৪২ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৭০.৭৬ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ১.৯৬ শতাংশে।

১২ আগস্ট, সকাল ১০টা

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৩ লক্ষ ২৯ হাজার ৬৩৯। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ লক্ষ ৪৩ হাজার ৯৪৮। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ লক্ষ ৩৯ হাজার ৫৯৯ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৬,০৯১।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬০,৯৬৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৬,১১০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৩৪ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৭০.৩৯ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ১.৯৭ শতাংশে।

১১ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২২ লক্ষ ৬৮ হাজার ৬৭৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৬ লক্ষ ৩৯ হাজার ৯২৯। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লক্ষ ৮৩ হাজার ৪৮৯ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৫,২৫৭।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৩,৬০১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৭,৭৪৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৭১ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৯.৭৯ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ১.৯৯ শতাংশে।

১০ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২২ লক্ষ ১৫ হাজার ৭৪। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৬ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৪৫। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লক্ষ ৩৫ হাজার ৭৪৩ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৪,৩৮৬।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬২,০৬৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৪,৮৫৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ১০০৭ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৯.৩৩ শতাংশে এসেছে। দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার এসে ঠেকেছে মাত্র ২ শতাংশে।

৯ আগস্ট, সকাল ১০টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২১ লক্ষ ৫৩ হাজার ১০। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ লক্ষ ২৮ হাজার ৭৪৭। সুস্থ হয়েছেন ১৪ লক্ষ ৮০ হাজার ৮৮৪। মৃত্যু হয়েছে ৪৩ হাজার ৩৭৯ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ হাজার ৩৯৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৩ হাজার ৮৭৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৬১ জনের।

৮ আগস্ট, সকাল ১০টা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০ লক্ষ ৮৮ হাজার ৬১১। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৬ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৮। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ২৭ হাজার ৫ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪২,৫১৮।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১,৫৩৭ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৮,৯০০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯৩৩ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৮.৩২ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.০৩ শতাংশে।

৭ আগস্ট, সকাল দশটা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০ লক্ষ ২৭ হাজার ৭৪। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৬ লক্ষ ৭ হাজার ৩৮৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লক্ষ ৭৮ হাজার ১০৫ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪১,৫৮৫।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬২,৫৩৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৯,৭৬৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৮৬ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৭.৯৮ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.০৫ শতাংশে।

৬ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ লক্ষ ৬৪ হাজার ৫৩৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫০১। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লক্ষ ২৮ হাজার ৩৩৬ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪০,৬৯৯।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৬,২৮২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৬,১২১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৯০৪ জনের।

দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৭.৬১ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.০৭ শতাংশে।

৫ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ লক্ষ ৮ হাজার ২৫৪। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৮৬ হাজার ২৪৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ লক্ষ ৮২ হাজার ২১৫ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৮,৭৯৫।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২,৫০৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫১,৭০৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৫৭ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৭.২৯ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.০৮ শতাংশে।

দেশে রোগীবৃদ্ধির হার এখন নেমে এসেছে ২.৮২ শতাংশে

৪ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৮ লক্ষ ৫৫ হাজার ৭৪৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৮৬ হাজার ২৯৮। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ লক্ষ ৩০ হাজার ৫০৯ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৮,৯৩৮।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২,০৫০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৪,৩০৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮০৩ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৬.৩০ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.০৯ শতাংশে।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই প্রথমবার ভারতে রোগীবৃদ্ধির হার নামক তিন শতাংশরও নীচে (২.৮৮ শতাংশ)।

৩ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৮ লক্ষ ৩ হাজার ৬৯৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৭৯ হাজার ৩৫৭। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১১ লক্ষ ৮৬ হাজার ২০৩ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৮,১৩৫।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২,৯৭২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪০,৫৭৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৬৪ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার অনেকটা বেড়ে ৬৫.৭৬ শতাংশে এসেছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.১১ শতাংশে।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল ভারতে রোগীবৃদ্ধির হারও কিন্তু অনেকটা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে মাত্র ৩.০২ শতাংশ হারে রোগী বেড়েছে। রোগীবৃদ্ধির হারের কমে আসা কিন্তু সোমবারের আগে ভারতে কখনও হয়নি।

২ আগস্ট, সকাল সাড়ে ৯টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৭ লক্ষ ৫০ হাজার ৭২৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৬৭ হাজার ৭৩০। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১১ লক্ষ ৪৫ হাজার ৬২৯ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৭,৩৬৪।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪,৭৩৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫১২৫৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৫৩ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৫,৪৩ শতাংশে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.১৩ শতাংশে।

১ আগস্ট, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬ লক্ষ ৯৫ হাজার ৯৮৮। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৬৫ হাজার ১০৩। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ লক্ষ ৯৪ হাজার ৩৭৪ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬,৫১১।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭,১১৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৬,৫৬৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৬৪ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৪.৫২ শতাংশে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.১৫ শতাংশে।

৩১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬ লক্ষ ৩৮ হাজার ৮৭০। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ৪৫ হাজার ৩১৮। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ লক্ষ ৫৭ হাজার ৮০৫ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৫,৭৪৭।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫,০৭৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৭,২২৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৭৯ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৪.৫৪ শতাংশে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.১৮ শতাংশে।

৩০ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৫ লক্ষ ৮৩ হাজার ৭৯২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ২৪ হাজার ২৪২। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ লক্ষ ২০ হাজার ৫৪২ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪,৯৬৮।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২,১২৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩২,৫৫৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৭৫ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৪.৪৩ শতাংশে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.২০ শতাংশে।

২৯ জুলাই, সকাল সাড়ে দশটা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৫ লক্ষ ৩১ হাজার ৬৬৯। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৫ লক্ষ ০৯ হাজার ৪৪৭। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯ লক্ষ ৮৮ হাজার ২৯ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪,১৯৩।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮,৫১৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৫,২৮৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৬৪ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬৪.৫০ শতাংশ হয়েছে, মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে হয়েছে ২.২৩ শতাংশে।

২৮ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪ লক্ষ ৮৩ হাজার ১৫৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৪ লক্ষ ৯৬ হাজার ৯৮৮। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯ লক্ষ ৫২ হাজার ৭৪৪ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৩,৪২৫।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭,৭০৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৫,১৭৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৫৪ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬৪.২৩ শতাংশ হয়েছে, মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.২৫ শতাংশে।

২৭ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৫৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৪ লক্ষ ৮৫ হাজার ১১৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৬৮ জন। অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩২,৭৭১।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯,৯৩১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩১,৯৯১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭০৮ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬৩.৯২ শতাংশে এসেছে, মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.২৮ শতাংশে।

২৬ জুলাই, সকাল ১০টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৩ লক্ষ ৮৫ হাজার ৫২২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪ লক্ষ ৬৭ হাজার ৮৮২। সুস্থ হয়েছেন ৮ লক্ষ ৮৫ হাজার ৫৭৭। মৃত্যু হয়েছে ৩২ হাজার ৬৩ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৬৬১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৬ হাজার ১৪৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭০৫ জনের।

২৫ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮৬১। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৪ লক্ষ ৫৬ হাজার ৭১। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৪৩২ জন । অন্য দিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩১,৩৫৮।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮,৯১৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩২,২২৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৫৭ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬৩.৫৩ শতাংশে এসেছে, মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৩৪ শতাংশে।

২৪ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১২ লক্ষ ৮৭ হাজার ৯৪৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন জন ৪ লক্ষ ৪০ হাজার ১৩৫। তবে বিশাল বড়ো স্বস্তির ব্যাপার হল সুস্থতার সংখ্যা আট লক্ষ ছাড়িয়েছে। এই মুহূর্তে সেটা রয়েছে ৮ লক্ষ ১৭ হাজার ২০৯-এ । অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩০,৬০১।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯,৩০১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৪,৬০৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭৪০ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৩.৪৫ শতাংশে , মৃত্যুহার রয়েছে ২.৩৭ শতাংশে।

২৩ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) পেশ করা রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে যে বর্তমানে ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১২ লক্ষ ৩৮ হাজার ৬৩৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪ লক্ষ ২৬ হাজার ১৬৭। সুস্থ হয়েছেন ৭ লক্ষ ৮২ হাজার ৬০৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৯,৮৬১ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫,৭২০ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৯,৫৫৭ জন। দৈনিক সুস্থতার সংখ্যায় এটা রেকর্ড। মৃত্যু হয়েছে ১,১২৯ জনের।

এক দিনে এত মৃত্যুর ফলে মৃত্যুহারে সামান্ন অবনতি হয়েছে। বর্তমানে সেটি বেড়ে হয়েছে ২.৪১ শতাংশ। অবশ্য খুব সামান্ন হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হারও বেড়েছে (৬৩.১৮ শতাংশ)।

২২ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বুধবার, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পেশ করা রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে যে বর্তমানে ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১ লক্ষ ৯২ হাজার ৯১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪ লক্ষ ১১ হাজার ১৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৭ লক্ষ ৫৩ হাজার ৫০। মৃত্যু হয়েছে ২৮,৭৩২ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৭,৭২৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৮,৪৭১ জন। দৈনিক সুস্থতার সংখ্যায় এটা রেকর্ড। মৃত্যু হয়েছে ৬৪৮ জনের।

উল্লেখ্যজগ্য বিষয় হল ভারতে রোগীবৃদ্ধির হার বেশ কিছুটা কমে ৩.২৬ শতাংশ হয়েছে। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার কিছুটা বেড়ে ৬৩.১২ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যুহার কমে ২.৪০ শতাংশ হয়েছে। মঙ্গলবার এটা ছিল ২.৪৩ শতাংশ।

২১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) পেশ করা রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে বর্তমানে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১ লক্ষ ৫৫ হাজার ১৯১। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪ লক্ষ ২ হাজার ৫২৯। সুস্থ হয়েছেন ৭ লক্ষ ২৪ হাজার ৫৭৮ জন। মৃত্যু হয়েছে জনের ২৮,০৮৪ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৭,১৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি, সুস্থ হয়েছেন ২৪,৪৯১ জন। এখনও পর্যন্ত দৈনিক সুস্থতার সংখ্যায় এটাই রেকর্ড। মৃত্যু হয়েছে ৫৮৭ জনের।

বর্তমানে দেশে সুস্থতার হার রয়েছে ৬২.৭১ শতাংশে। মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৪৩ শতাংশে।

২০ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পেশ করা রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে বর্তমানে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১ লক্ষ ১৮ হাজার ৪৩ । এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ৪৫৯ । সুস্থ হয়েছেন ৭ লক্ষ ৮৭ জনের। মৃত্যু হয়েছে জনের ২৭,৪৯৭ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় ৪০,৪২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি, সুস্থ হয়েছেন ২২,৬৬৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৮১ জনের।

বর্তমানে দেশে সুস্থতার হার রয়েছে ৬২.৬১ শতাংশে। মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৪৫ শতাংশে।

১৯ জুলাই, সকাল ১০টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ লক্ষ ৭৭ হাজার ৬১৮। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৭৩ হাজার ৩৭৯। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ৭৭ হাজার ৪২৩। মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার ৮১৬ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ৯০২ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৩ হাজার ৬৭২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৪৩ জনের।

১৮ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে বর্তমানে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ লক্ষ ৩৮ হাজার ৭১৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন তিন লক্ষ ৫৮ হাজার ৬৯২। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬ লক্ষ ৫৩ হাজার ৭৫১। মৃত্যু হয়েছে ২৬,২৭৩ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪,৮৮৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৭,৯৯৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৭১ জনের।

ভারতে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬২.৯৩ শতাংশে। মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৫২ শতাংশে।

১৭ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য বলছে ভারতে এই মুহূর্তে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ লক্ষ ৩ হাজার ৮৩২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৪২ হাজার ৪৭৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ৩৫ হাজার ৭৫৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৫,৬০২ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে মতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪,৯৫৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ২২,৯৪২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৮৭ জনের।

১৬ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) বৃহস্পতিবার হিসেব বলছে বর্তমানে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৮৭৬ । এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৩১ হাজার ১৪৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ১২ হাজার ৮১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪,৯১৫ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩২,৬৯৫ জন, সুস্থ হয়েছেন ২০,৭৮৩ জন। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৬০৬ জনের। বর্তমানে দেশে মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৫৭ শতাংশে।

১৫ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্যে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৩৬ হাজার ১৮১ । এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪০। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪৩০৯ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯,৪২৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০,৫৭২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৮২ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৩.২৩ শতাংশে। মৃত্যুর হার আরও কিছুটা কমে ২.৫৯ শতাংশে নেমে এসেছে।

১৪ জুলাই, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৬ হাজার ৭৫২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১১ হাজার ৫৬৫। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৭১ হাজার ৪৬০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩৭২৭ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৪৯৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৭,৯৯০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৪৯ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৩.০২ শতাংশে। মৃত্যুর হার আরও কিছুটা কমে ২.৬২ শতাংশে নেমে এসেছে।

১৩ জুলাই, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) সোমবারের হিসেব বলছে, এই মুহূর্তে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ৭৮ হাজার ২৫২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১ হাজার ৬০৯। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৫৩ হাজার ৪৭০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩,১৭৪ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৭০১ জন। রেকর্ড সংক্রমণের পাশাপাশি সুস্থ হয়েছেন ১৮,৮৪৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫০০ জনের।

১২ জুলাই, সকাল ১০টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৫৫৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৯২ হাজার ২৫৮। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৬২১। মৃত্যু হয়েছে ২২ হাজার ৬৭৪ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, শনিবার সকাল ৮টার পর থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ হাজার ৬৩৭ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজার ২৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৫১ জনের।

১১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য বলছে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৯১৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৮৩ হাজার ৪০৭ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ লক্ষ ১৫ হাজার ৩৮৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ২২,১২৩ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৭,১১৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন ১৯,৮৭৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫১৪ জনের। সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬২.৭৮ শতাংশ।

১০ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে রিপোর্ট দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৯৩ হাজার ৮০২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৭৬ হাজার ৬৮৫। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫১৩। মারা গিয়েছেন ২১,৬০৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৬,৫০৬ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯,১৩৪ জন। মারা গিয়েছেন ৪৭৫ জন। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬২.৪২ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে ২.৭২ শতাংশে এসেছে।

৯ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৬৭ হাজার ২৯৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৭৮৯। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৭৬ হাজার ৩৭৮। মারা গিয়েছেন ২১,১২৯ জন।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,৮৭৯ জন। এই রেকর্ডের পাশাপাশি সুস্থতার সংখ্যাও বেড়েছে। এই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ১৯,৫৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪৭ জনের। সুস্থতার হার মঙ্গলবারের থেকে কিছুটা বেড়ে ৬২.০৮ শতাংশ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী বেড়েছে ৩.৩৫ শতাংশ।

৮ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৪২ হাজার ৪১৭। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৪৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৫৬ হাজার ৮৩১। মারা গিয়েছেন ২০,৬৪২ জন।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭৫২ জন গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৬,৮৮৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৮২ জনের। সুস্থতার হার মঙ্গলবারের থেকে কিছুটা বেড়ে সাড়ে ৬১ শতাংশ হয়েছে।

৭ জুলাই, সকাল সাড়ে দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ১৯ হাজার ৬৬৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫৫৭। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৩৯ হাজার ৯৪৮। মারা গিয়েছেন ২০,১৬০।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,২৫২ জন। ৩ জুলাইয়ের পর নতুন আক্রান্তের সংখ্যায় এতটা পতন দেখা গেল। এর ফলে রোগী বৃদ্ধির হার এখন কমে এসেছে মাত্র ৩.১৯ শতাংশে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৫,৫১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৬৬ জনের। সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬১.১৩ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৮০ শতাংশে।

৬ জুলাই, সকাল সাড়ে দশটা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৯৭ হাজার ৪১৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৮৭। সুস্থ হয়েছেন ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৪৩৩। মৃত্যু হয়েছে ১৯,৬৯৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,২৪৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৫,৩৫০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪২৫ জনের। রবিবার মৃত্যু হয়েছিল ৬০৮ জনের।

৫ জুলাই, সকাল দশটা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ১৬৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮১৪। সুস্থ হয়েছেন ৪ লক্ষ ৯ হাজার ৮৩। মৃত্যু হয়েছে ১৯২৬৮ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,৮৫০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৯৩৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬১৩ জনের। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৭৭ শতাংশ।

৪ জুলাই, সকাল দশটা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার ২২৭। মৃত্যু হয়েছেন ১৮,৬৫৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭১১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৪,৩৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪২। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৮০ শতাংশ।

৩ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ২৫ হাজার ৫৪৪। এর মধ্যে সুস্থতার হারই পৌঁছে গিয়েছে ৬০.৭৯ শতাংশ মানুষ। অর্থাৎ ৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮৯২ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

দেশে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৩৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৮,২১৩ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২০,৯০৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০,০৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৭৯ জনের। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগী বেড়েছে মাত্র ৮৯২।

২ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্টে দেখা গিয়েছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪ হাজার ৬৪১। যদিও এর মধ্যে ৫৯.৫১ শতাংশ মানুষই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ৮৬০। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৬ হাজার ৯৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৮৩৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯,১৪৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১১,৯১২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৩৪ জনের। রোগীবৃদ্ধির হার কিছুটা কমে এখন রয়েছে ৩.২৭ শতাংশ।

১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে পরিসংখ্যান দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৮৫ হাজার ৪৯৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ২০ হাজার ১১৪। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৪৭ হাজার ৯৪৮। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৪০০ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮,৬৫৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৩,১২৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫০৭ জনের।

Continue Reading

দেশ

২০১৫ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিদেশ সফরে খরচ হয়েছে প্রায় ৫১৮ কোটি টাকা

প্রধানমন্ত্রী সর্বশেষ বিদেশ সফরে গিয়েছিলেন গত বছরে ১৩ নভেম্বর। সে বার তিনি ব্রিক্স-এর শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে ব্রাজিল গিয়েছিলেন।

Published

on

Narendra Modi
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফাইল চিত্র।

খবর অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Prime Minister Narendra Modi) ২০১৫ সাল থেকে মোট ৫৮টি দেশ সফর করেছেন। আর তাঁর বিদেশ সফরে (foreign visits) খরচ হয়েছে ৫১৭.৮২ কোটি টাকা। রাজ্যসভায় এক লিখিত জবাবে এ কথা জানিয়েছেন বিদেশ দফতরের প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলীধরন (V Muraleedharan)।

প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফরের যে বিস্তারিত তথ্য মুরলীধরন দিয়েছেন, তা থেকে জানা যায়, এই সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী পাঁচ বার করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং চিনে গিয়েছেন। তা ছাড়া আর যে সব দেশে তিনি একাধিক বার গিয়েছেন তার মধ্যে রয়েছে সিঙ্গাপুর, জার্মানি, ফ্রান্স, শ্রীলঙ্কা এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহি (ইউএই)।

নরেন্দ্র মোদীর বহু সফর ছিল বহু-রাষ্ট্রিক অর্থাৎ এক সফরে একাধিক দেশে যাওয়া। আর কিছু ছিল দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করতে শুধু একটি নির্দিষ্ট দেশ সফর।

প্রধানমন্ত্রী সর্বশেষ বিদেশ সফরে গিয়েছিলেন গত বছরে ১৩ নভেম্বর। সে বার তিনি ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে নিয়ে গঠিত ব্রিক্স-এর শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে ব্রাজিল গিয়েছিলেন।

বিদেশ দফতরের প্রতিমন্ত্রী দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রীর সফরের ফলে ওই সব দেশের সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে। বাণিজ্য, বিনিয়োগ, প্রযুক্তি, প্রতিরক্ষা সহযোগিতা এবং জনগণের মধ্যে সংযোগসাধন-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সম্পর্কের উন্নতি ঘটেছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তন, আন্তঃরাষ্ট্র অপরাধ ও সন্ত্রাস, সাইবার নিরাপত্তা, পরমাণু অস্ত্র নিরোধ ইত্যাদি ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক কর্মসূচি রূপায়ণে ভারত এখন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।”

নেপাল সম্পর্কে এক অতিরিক্ত প্রশ্নের জবাবে মুরলীধরন বলেন, প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে যুগ যুগ ধরে ভারতের সঙ্গে যে সম্পর্ক চলে আসছে তা ‘অনন্য এবং বিশেষ’। এই সম্পর্কের ভিত্তি হল দু’ দেশের ইতিহাস, ভূগোল, সংস্কৃতি, মানুষে মানুষে সম্পর্ক, পারস্পরিক নিরাপত্তা এবং ঘনিষ্ঠ অর্থনৈতিক যোগাযোগ।

ভারতের উপর থেকে নির্ভরতা কমাতে গত কয়েক বছরে চিনের সঙ্গে নেপাল যে এক গুচ্ছ ট্রানজিট ও পরিবহন চুক্তি করেছে, সে সম্পর্কে সরকার অবহিত কিনা জানতে চাওয়া হলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কাঠমান্ডুর সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক তার নিজের গুণের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে।

গত মে মাসে নেপাল যে মানচিত্র প্রকাশ করে তাতে তারা উত্তরাখণ্ডের লিপুলেখ পাস, কালাপানি ও লিমপিয়াধুরা নিজেদের বলে দেখায়। তখন থেকে নেপালের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। ইতিমধ্যে অবশ্য ভারত পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে, সীমান্ত বরাবর উত্তরাখণ্ডের জায়গাগুলি সবই ভারতের।

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

অর্থনীতিতে নতুন হাতছানি বাংলাদেশ-ভারত পণ্যবাহী রেল চলাচল

Continue Reading
Advertisement
দেশ53 mins ago

বৃদ্ধি দৈনিক সংক্রমণে, আশা জোগাচ্ছে ১৪টি রাজ্য

দেশ2 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৮৩৩৪৭, সুস্থ ৮৯৭৪৬

রাজ্য3 hours ago

রাজ্যের ৯ জেলায় দৈনিক আক্রান্তের থেকে সুস্থ কোভিডরোগীর সংখ্যা বেশি

Narendra Modi
দেশ10 hours ago

২০১৫ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিদেশ সফরে খরচ হয়েছে প্রায় ৫১৮ কোটি টাকা

দেশ11 hours ago

অর্থনীতিতে নতুন হাতছানি বাংলাদেশ-ভারত পণ্যবাহী রেল চলাচল

IPL rajasthan Royals
ক্রিকেট12 hours ago

রানের বন্যা শেষে চেন্নাই-জয় রাজস্থান রয়্যালসের

Sherpa Ang Rita
অ্যাডভেঞ্চার14 hours ago

অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়াই ১০ বার মাউন্ট এভারেস্ট বিজয়ী আং রিটা প্রয়াত

রাজ্য15 hours ago

পর পর তিন দিন দৈনিক মৃতের সংখ্যা ৬০-এর উপরে, তবে ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার হার

দেশ2 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৮৩৩৪৭, সুস্থ ৮৯৭৪৬

coronavirus west bengal
দেশ1 day ago

এই প্রথম ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ কোভিডরোগীর সংখ্যা এক লক্ষ ছাড়াল

দেশ3 days ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

দেশ3 days ago

ব্যথার কারণ খুঁজতে হল এক্স-রে, বন্দির মলদ্বারে হদিশ মিলল চারটি মোবাইলের

mamata banerjee
রাজ্য3 days ago

সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উত্তরবঙ্গ সফর স্থগিত

বিনোদন2 days ago

অনুমতি না নিয়েই ডেটিং অ্যাপে ছবি, কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ নুসরত জাহান

coronavirus west bengal
রাজ্য2 days ago

রাজ্যের চার জেলার কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ ভাবে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর

corona
দেশ3 days ago

৫টি রাজ্যেই মোট সক্রিয় কোভিডরোগীর ৬০ শতাংশ!

কেনাকাটা

কেনাকাটা17 hours ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা4 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা7 days ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

নজরে