খবরঅনলাইন ডেস্ক: ইতিহাস সৃষ্টি করে কেরলে শপথ নিল দ্বিতীয় পিনারাই বিজয়ন-সরকার। চল্লিশ বছরে এই প্রথম বার রাজ্যে ক্ষমতাসীন মুখ্যমন্ত্রীই নতুন সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন। অর্থাৎ, চার দশকে এই প্রথম বার রাজ্যে পুনরায় ক্ষমতায় ফিরল ক্ষমতাসীন কোনো সরকার।

বৃহস্পতিবার তিরুঅনন্তপুরমের গ্রিনফিল্ড স্টেডিয়ামে আয়োজিত শপথানুষ্ঠানে বিজয়নকে শপথবাক্য পাঠ করার রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদ খান। বিজয়নের পর একে একে শপথ নেন রাজ্যের নতুন মন্ত্রীসভার সদস্যরাও।

তবে এই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান নিয়ে কিছুটা বিতর্কেরও সৃষ্টি হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ুর মতো রাজ্যে যেখানে জাঁকজমকহীন অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীরা শপথ নিয়েছিলেন, সেখানে কেরলে এত বড়ো আয়োজন অনেকেরই নিন্দা কুড়িয়েছে। তবে কেরলের নতুন সরকারের দাবি, সব রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই অনুষ্ঠান হচ্ছে।

বিজয়নের নতুন মন্ত্রীসভায় সিপিএমের যে সদস্যরা ঠাঁই পেয়েছেন, তাঁরা সবাই নতুন। প্রথম বার মন্ত্রী হচ্ছেন। গত সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেকে শৈলজাকে এ বার মন্ত্রিত্ব না দেওয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল বিভিন্ন মহলে। তবে এই বিষয়ে শৈলজা বা সিপিএম কেউই কোনো ভ্রূক্ষেপ করেনি। রাজ্যের নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হচ্ছেন বীণা জর্জ।

উল্লেখ্য, প্রতি পাঁচ বছরে সরকার বদলে দেওয়ার যে রীতি এতদিন ছিল কেরলের, সেখানেই পুনরায় ক্ষমতায় ফিরেছেন সিপিএম নেতৃত্বাধীন বাম গণতান্ত্রিক জোট, আগের বারের থেকে আরও বেশি আসনে জিতে। রাজ্যের ১৪০টি বিধানসভা আসনের মধ্যে বামজোট পেয়েছে ৯৯টি আসন। মাত্র ৪১টি আসন পেয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে কংগ্রেস জোটকে।

আরও পড়তে পারেন শিলিগুড়ি পুরসভার জন্য রাজ্য সরকারের আলাদা নিয়ম, ‘দ্বিচারিতা’র অভিযোগ তুললেন অশোক ভট্টাচার্য

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন